• শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৫:১৭ অপরাহ্ন |

ব্যর্থতার দায় স্বীকার মুশফিকের

Musfikঢাকা: পাঁচ দিনের ম্যাচ সাড়ে তিন দিনেই শেষ। লঙ্কান ক্রিকেটারদের সামনে মুশফিকদের অসহায় আত্মসমর্পণে দেড় দিন আগেই শেষ হয়েছে ঢাকা টেস্ট। ইনিংস ও ২৪৮ রানে পরাজিত হয় তারা।
এ নিয়ে অষ্টম বারের মতো শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইনিংস ব্যবধানে পরাজিত হল বাংলাদেশ। ব্যাটিং, বোলিং কিংবা ফিল্ডিং তিন বিভাগেই ফ্লপ বাংলাদেশ। ব্যাটিংয়ে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার পর বোলিংয়েও একাই দশা। আর ফিল্ডিং তো হয়েছে যাচ্ছেতাই। পুরো ম্যাচে বাংলাদেশ ক্যাচ ছেড়েছে চারটি। যা অনেক পিছিয়ে দিয়েছে তাদেরকে।
দলের ব্যর্থতায় অধিনায়ক মুশফিকের কন্ঠেও ছিল হতাশা। ম্যাচ শেষে তার দায়ভারও স্বীকার করেন তিনি। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে মুশফিক বলেন, ‘দুর্ভাগ্যবশত খুব বাজেভাবে হেরে গেছি। গত দুই বছর ধরে আমরা ধারাবাহিক ক্রিকেট খেলছি। এবারের ম্যাচে ব্যাটসম্যনরা তাদের স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারেনি। আর কখনো এই ফলাফলের পুনরাবৃত্তি হবে না।’
ব্যর্থতার কারণগুলো তুলে ধরে মুশফিক বলেন, ‘মিডল অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা রান না পাওয়ায় এ অবস্থা হয়েছে। আমাদের বোলিং খারাপ হয়নি। ফিল্ডিংটা খুব বাজে হয়েছে। ব্যাটিংয়ে যে সমস্যাগুলো ছিলো সেটা কাটিয়ে উঠতে হবে। ব্যাটসম্যানরা যেভাবে আউট হয়েছে সেটা খুব চোখে লেগেছে।’
উইকেট সম্পর্কে টাইগার দলপতি বলেন, ‘উইকেট খুবই ভালো ছিল। এ উইকেটে আউট হওয়ার আসলে খুব কঠিন। সেদিক থেকে বলতে গেলে আমাদের ব্যাটসম্যানরা অনেক পারদর্শি ভালো ইনিংস খেলার ব্যাপারে। কিন্তু এ টেস্ট ব্যাটসম্যানরা ব্যর্থ  হয়েছে। ছন্দপতন নয়।’
মাঠের বাহিরের বিষয়গুলো নিয়ে চিন্তিত কি না জানতে চাইলে মুশফিক বলেন, ‘চাপ অনুভব করার কিছু নেই। ভালো দলের সঙ্গে ভালো খেলা সেটা আমাদের চ্যালেঞ্জ ছিলো। আমাদের দূর্ভাগ্য আমরা তা পারি নাই। পরের টেস্টে আমাদের ভুলের জায়গাগুলো শুধরে নিবো।’
ব্যাটসম্যানদের নিজের উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসা প্রসঙ্গে উইকেট রক্ষক এই ব্যাটসম্যানের অভিমত, ‘আমাদের ব্যাটসম্যানদের আর একটু সচেতন হওয়া উচিত। গতকাল তামিম যে শর্টটা খেলেছে সেটা খেলা উচিত হয়নি। আবার এই শটেই অনেক সময় রান পেয়েছে। আমাদের হাতে ৯ ওভার ছিলো। সেই সময়টাতে আমাদের সারভাইব করা উচিত ছিলো।’
লঙ্কান বধে তিন পেসার নিয়ে খেলেছে বাংলাদেশ। স্পিনারের অভাব অনুভব করেছে কিনা জানতে চাইলে মুশফিক বলেন, ‘আমরা শ্রীলঙ্কাকে যেই সুযোগ গুলো দিয়েছি সেগুলো না দিলে ৫৫০ রানের মধ্যে আটকে দিতে পারতাম। স্পিনাররা ভালো বল করেছে। আসলে সেরকম কিছু মনে হয়নি। কারণ উইকেটে ওরা ওয়েল সেটেল হয়ে গিয়েছিল।’
চট্টগ্রাম টেস্টের পরিকল্পনা নিয়ে মুশফিক বলেন, ‘ভুলগুলোকে শুধরে নিতে চেষ্টা করবো। সবাইকে সতর্ক হতে হবে। এই টেস্ট দিয়ে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে। আশা করছি কোন সমস্যা হবে না।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ