• বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৪৮ পূর্বাহ্ন |

দিনাজপুরে প্রেমিকাকে তিন মাস আটকে রেখে ধর্ষণ, গ্রেফতার-২

dorsonদিনাজপুর প্রতিনিধি: মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবতীকে ডেকে এনে তিন মাস আটকে রেখে দুই বন্ধু মিলে ধর্ষণ করেছে। ধর্ষনের পর জোর করে বের করে দেয়ার সময় স্থানীয় জনতা ২ প্রতারককে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। প্রতারণার শিকার যুবতীর নাম সাইমুন নাহার (১৯)। সে লক্ষিপুর জেলার রামগতি উপজেলার চর বাঘাতি গ্রামের আব্দুল খালেকের কন্যা।
গ্রেফতার হওয়া যুবকের নাম জয়নুদ্দিন জৎ। সে দিনাজপুর শহরের উপশহর ২নং ব্লকের বাবু মিয়ার ছেলে ও তার বন্ধু বাড়ীর মালিক রানা। রানা শহরের উপশহর ৭নং ব্লকের বাসিন্দা।
দিনাজপুর কোতয়ালী থানার এস আই বিদ্যুৎ সাহা জানান, জয়নুদ্দিন জৎ এর সাথে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সাইমুন নাহারের পরিচয় হয়। এর পর থেকে প্রায় সময় তারা মোবাইলে কথা বার্তা বলত। এক সময় তাদের মধ্যে মন দেয়া নেয়া শুরু হয়। সেই সুযোগ নিয়ে জয়নুদ্দিন জৎ তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দিনাজপুরে ডেকে নিয়ে আসে। সাইমুন দিনাজপুরে এসে পৌছালে তাকে শহরের উপশহর ৭নং ব্লকের রানার বাসায় আটকে রেখে তিন মাস থেকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে আসছিল। এরই মধ্যে সাইমুন বিয়ের জন্য চাপ দিলে গত শুক্রবার রাতে নির্যাতন করে তাকে জোর পূর্বক তাড়িয়ে দেয়ার সময় সে চিৎকার শুরু করলে এলাকার লোকজন টের পায়।এ সময় স্থানীয় জনতা জয়নুদ্দিনজৎ ও তার বন্ধু বাড়ীর মালিক রানাকে আটক করে থানায় সংবাদ দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের আটক করে এবং সাইমুন নাহারকে উদ্ধার করে।
এ ব্যাপারে সাইমুন নাহার বাদী হয়ে কোতয়ালী থানায় শিশু ও নারী নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের হয়েছে। শনিবার দুপুরে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজে তিন সদস্যের বোর্ডের মাধ্যমে নির্যাতিতার ডাক্তারী পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।
বিকালে সাইমুনকে দিনাজপুর সদর সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির করা হলে বিচারক ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি গ্রহল করার পর তাকে নিরাপদ হেফাজতে প্রেরণ করে এবং আসামীদেরকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ