• রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৪০ অপরাহ্ন |

রাবিতে আন্দোলনের মুখে বর্ধিত ফি প্রত্যাহার

RUরাজশাহী: শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনের মুখে পরীক্ষার ফিসহ বিভিন্ন বর্ধিত ফি প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মিজান উদ্দিন। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ে চালুকৃত সান্ধ্যকালীন মাস্টার্স কোর্স চালু থাকবে বলে জানান রাবি উপাচার্য। শনিবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ববিদ্যালয়ে চালুকৃত সান্ধ্যকালীন মাস্টার্স কোর্স সম্পর্কে তিনি বলেন, এই সিদ্ধান্তটি সম্পূর্ণ একাডেমিক। তারা পর্যালোচনা করেই সিদ্ধান্তটি নিয়েছেন। এই কোর্স চালু থাকবে।

সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান, আইন ও কলা অনুষদের সান্ধ্যকালীন মাস্টার্স কোর্স চালু ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষাসহ বিভিন্ন ফি দুই থেকে পাঁচ গুণ পর্যন্ত বাড়ানো হয়।
এরপর গত ১৬ জানুয়ারি থেকে এর বিরুদ্ধে আন্দোলন করছে শিক্ষার্থীরা। ‘বর্ধিত ফি ও সান্ধ্যকোর্স বিরোধীশিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ’ ব্যানারে এই আন্দোলন বৃহস্পতিবার ধর্মঘটে গড়ায়।

এদিকে এ ধর্মঘটের কারণে শনিবারও কোনো বিভাগে ক্লাশ-পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়নি। এ আন্দোলনে প্রায় সাড়ে তিনহাজার ছাত্রী বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশে অংশ নেন।

শনিবার সকাল ৭টা থেকেই লাগাতার ধর্মঘটের সমর্থনে আবাসিক হলগুলো থেকে শিক্ষার্থীরা মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসে আসতে শুরু করে। শীতের কুয়াশা ভেদ করে ক্যাম্পাস এখন হাজার হাজার শিক্ষার্থীর স্লোগানে কম্পমান। ধর্মঘটের সমর্থনে সকাল পৌনে ৮টার মধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

সকাল ৭টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়েরা মন্নুজান, রহমতুন্নেসা, রোকেয়া, বেগম খালেদা জিয়া ও তাপসী রাবেয়া হল থেকে অন্তত এক হাজার শিক্ষার্থী স্লোগান নিয়ে ক্যাম্পাসে আসতে শুরু করে। এসময় বিক্ষোভ মিছিল থেকে জ্বালো রে জ্বালো আগুন জ্বালো, শিক্ষা ব্যবসা এক সাথে চলে না এসব স্লোগানে গোটা ক্যাম্পাস আন্দোলিত হতে থাকে। মেয়েরা শীতের কুয়াশা ভেদ করে মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসের টুকিটাকি চত্বরে জড়ো হতে শুরু করে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলে শিক্ষার্থীরা শাহ মখদুম, আমীর আলী ও নবাব আব্দুল লতিফসহ ক্যাম্পাসের সকল আবাসিক হল থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসে আসছে। এসময় শিক্ষার্থীরা সান্ধ্যকোর্স ও ফি বৃদ্ধির বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে। শিক্ষার্থীরা সকাল পৌনে ৮টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভবনে তালা ঝুলিয়ে সকল প্রকার ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনেরও ঘোষণা দেয়।

উল্লেখ্য, বর্ধিত ফি প্রত্যাহার ও সান্ধ্য কোর্স বন্ধের দাবিতে ১৯ জানুয়ারি থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ, প্রশাসন ভবন ঘেরাও, ধর্মঘটসহ নানা কর্মসূচি পালন করে আসছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সাথে কয়েক দফা বৈঠকের পরেও কোন প্রকার সমঝোতায় না আসায় শিক্ষার্থীরা শনিবার থেকে লাগাতার ধর্মঘটের ডাক দেয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ