• শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:১৫ অপরাহ্ন |

এরশাদ কোণঠাসা দল গোছাচ্ছেন রওশন

Rosan Arsadনিউজ ডেস্ক: জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিয়ে সংসদে যোগ দিলেও নিজের স্ত্রী ও দলের ভাইস চেয়ারম্যান রওশন এরশাদের সঙ্গে দূরত্ব কমার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। জাপা নেতারা বলছেন, রওশনের সঙ্গে দূরত্ব বাড়ায় কার্যত একা হয়ে পড়ছেন এরশাদ। জাতীয় পার্টির নেতারা এখন সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদের কাছে বেশি ভিড়ছেন। সুযোগ বুঝে এরশাদের ঘনিষ্ঠজনদের দূরে সরিয়ে নিজের মতো করে দল গোছাতে শুরু করেছেন রওশন। অনেককে তিনি পুরস্কৃতও করছেন। অচিরেই পরিবর্তন আনা হতে পারে দলের মহাসচিব পদেও। জাতীয় পার্টির নির্ভরযোগ্য সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
জাপার সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এরশাদ প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হওয়ায় সব মামলা থেকে তিনি মুক্তি পাবেন বলে আশা করছিলেন দলের নেতা-কর্মীরা। কিন্তু মঞ্জুর হত্যা মামলার বিচারক বদল হওয়ার পর এখন আর সে আশা করছেন না সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। নেতাদের অনেকে বলছেন, মামলা শেষ না হওয়ায় এরশাদ আর নড়াচড়া করতে পারছেন না। একেক সময় একেক কথা বলার কোনো সুযোগ পাচ্ছেন না। তা ছাড়া গত নির্বাচনে এরশাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে যাঁরা সংসদ নির্বাচন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছিলেন তাঁরা এরশাদের ওপর ক্ষুব্ধ। যাঁরা এমপি নির্বাচিত হয়েছেন তাঁরাও এখন আর এরশাদের কাছে যাচ্ছেন না। এরশাদের একসময়ের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম মসিহকে রওশন এরশাদ তাঁর ব্যক্তিগত সচিব নিয়োগ করেছেন। দলটির মহাসচিব ও সংসদ সদস্য এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদারকে কাছে টানছেন না রওশন। জাতীয় পার্টির পার্লামেন্টারি বোর্ডের সাম্প্রতিক কয়েকটি সভায় এরশাদের পাশাপাশি রুহল আমিন হাওলাদারকেও ডাকা হয়নি।
জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির এক প্রেসিডিয়াম সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে কালের কণ্ঠকে বলেন, সংসদ নির্বাচনের বিরোধিতা করা, একেক সময় একেক কথা বলা, সব সময় সুবিধাবাদীদের কাছে টানা এবং সর্বশেষ রওশন এরশাদের সঙ্গে দূরত্ব ঘোচাতে না পারার কারণে এরশাদ এখন কার্যত একা।
সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হওয়ার পর দলে এরশাদের গুরুত্ব আরো কমে গেছে। এরশাদ নির্বাচনের পর রওশনের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করার উদ্যোগ নিলেও তা সফল হয়নি। এখন জাপা নেতারা রওশনের কাছে নিয়মিত হাজিরা দিচ্ছেন। দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ এবং সরকারের বিভিন্ন করপোরেশনের দায়িত্ব পেতে তাঁরা এখন উদগ্রীব।
দলের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, রওশন এরশাদ জাতীয় পার্টিকে নতুন করে সাজাতে শুরু করেছেন। দশম সংসদে নির্বাচিত জাপার প্রায় সবাই এখন রওশনের লোক বলে দলে পরিচিত। এ ছাড়া এরশাদের ঘনিষ্ঠজনরাও এখন রওশনমুখী। কাজী জাফর আহমদের নেতৃত্বাধীন অংশের মহাসচিব গোলাম মসিহকে নিজের ব্যক্তিগত সচিব নিয়োগ করে রওশন কাজী জাফরের অংশেরও মাজা ভেঙে দিয়েছেন। গতকাল কাজী জাফর গ্রুপের কেন্দ্রীয় নেতা মাহমুদ হাসান মারা গেছেন। ওই অংশের ডাকসাইটে নেতা মোস্তফা জামাল হায়দার, এস এম আলম, টি আই ফজলে রাবি্বও এখন আর কাজী জাফরের কাছে যাচ্ছেন না। এসব নেতা এখন গোলাম মসিহর মাধ্যমে রওশনের কাছাকাছি হওয়ার চেষ্টা করছেন।
সূত্র জানায়, গোলাম মসিহ কাজী জাফরের অনুমতি নিয়েই রওশনের রাজনৈতিক সচিব হয়েছেন। অনেকে বলছেন, কাজী জাফর যে আশায় বিএনপির সঙ্গে জোট করেছিলেন, তাঁর সে আশার গুড়ে বালি পড়েছে।

উৎসঃ   কালের কন্ঠ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ