• রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৩৩ অপরাহ্ন |

ফুলবাড়ীতে শিক্ষক সমিতির বই বিক্রি বাণিজ্য

notbookআফজাল হোসেন, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর): দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলায় মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেনীর শিক্ষার্থিদের পাঠদানে ব্যাকরন ও গ্রামার বই বিক্রি বাণিজ্যে নেমেছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ফুলবাড়ী উপজেলা শাখা। অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকরা  তাদের বিদ্যালযের ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি বছর সমিতির নির্ধারিত একটি প্রকাশনীর ওই সব পাঠ্য বই কিনতে বাধ্য করছেন ।
ফুলবাড়ী উপজেলা শিক্ষক সমিতির একটি সুত্র জানায় চলতি শিক্ষাবর্ষে ফুলবাড়ীর সকল উচ্চ বিদ্যালয়ের  ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেনীর পাঠ্য তালিকায় “একাডেমী’ নামে একটি অখ্যাত প্রকাশনীর ব্যাকরণ, ইংরেজী গ্রামার বই চলতি বছরে কিনতে ছাত্র-ছাত্রীদের বাধ্য করতে ফুলবাড়ী শিক্ষক সমিতিকে পৌনে ৭ লাখ টাকা ডোনেশন দিয়েছে ওই প্রকাশনীটি। ওই বইগুলোর মান যাচাই বাছাইও না করেই প্রতিটি স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের কাছে সমিতির সিদ্ধান্ত জানাতে এবং ওই প্রকাশনীর তালিকাভুক্ত সহায়ক বই এবং নিষিদ্ধ গাইড বই পাঠ্য তালিকায় অর্ন্তভুক্ত করতে শিক্ষক নেতারা বুক লিষ্ট বিতরন করে বেড়াচ্ছেন ।
বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ফুলবাড়ী উপজেলা শাখার পদধারী এক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান,  উপজেলার ৩৮টি স্কুলে  ৬ষ্ঠ থেকে ৯ম শ্রেনীর শিক্ষার্থিদের পাঠ্য তালিকায় শিক্ষক সমিতি কর্তৃক নির্ধারিত প্রকাশনীর  ব্যাকরন, গ্রামার বই পড়ানোর জন্য প্রতি বছরই ফুলবাড়ী শিক্ষক সমিতি প্রকাশনীর সাথে চুক্তি করে থাকে। চলতি শিক্ষা বর্ষে ফুলবাড়ী শিক্ষক সমিতি পুস্তক প্রকাশনী গুলোর সাথে  অলিখিত টেন্ডারের মাধ্যমে তাালিকাভুক্তির জন্য আগ্রহ দেখালে পুথিঁনিলয় নামে একটি প্রকাশনী ৬ লাখ ৫০ হাজার ১’শ টাকা, কাঁকন নামে একটি প্রকাশনী ৮ লাখ ১৫ হাজার  টাকা এবং একাডেমী নামে প্রকাশনী ৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা শিক্ষক সমিতির ফান্ডে ডোনেশন দিতে আগ্রহী হয়।
একাডেমী প্রকাশনীকে ৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা ডোনেশন প্রদানের শর্তে  সমিতির সাথে চুক্তি হয়েছে। প্রকাশনীর দেওয়া  ডোনেশনের টাকা সমিতির উন্নয়নে ব্যবহার করা হয় বলে জানান তিনি। বুধবার শিক্ষক সমিতির কিছু নেতৃবৃন্দ তথা কয়েকজন প্রধান শিক্ষককে নিয়ে প্রকাশনীর প্রতিনিধি ও প্রকাশনীর নিযুক্ত এজেন্ট লাইব্রেরী প্রতিনিধিরা ফুলবাড়ী উপজেলার ৩৮টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে বিদ্যালয় প্রধানদের ওই প্রকাশনীর বুক লিষ্ট ও সৌজন্য কপি বিলি করে এসেছেন।
এব্যাপারে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ফুলবাড়ী উপজেলা শাখার সভাপতি রুদ্রানী উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক ইসলাম উদ্দীন জানান, গত ৩১ জানুয়ারী ২০১৪ ইং তারিখে ফুলবাড়ীর উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভায় উপস্থিত শিক্ষক সদস্যদের সিদ্ধান্তে প্রকাশনী পরিবর্তন করা হয়। ভিন্ন প্রকাশনীর বই কি ভিন্ন ভিন্ন কারিকুলামের? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, না সকল প্রকাশনীর বই একই নিয়মের, এর বেশী কিছু বলতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন।
এব্যাপারে ফুলবাড়ী মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আঃ সাত্তার সরকারের সাথে মুঠোফোনে কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি রিসিভ না করে ফোন কেটে দেন।
ফুলবাড়ী পৌর শহরের একজন বই বিক্রেতা জানান, ঢাকার নামী দামী প্রকাশনীকে বাদ দিয়ে প্রতি বছর  নতুন  প্রকাশনীর বই শিক্ষক সমিতি তালিকাভুক্ত করছে। চলতি বছরে  অখ্যাত একটি প্রকাশনীর বই তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। বইয়ের মান ও দেখা হয়নি। প্রতিটি ব্যকরন ও গ্রামার বই এর দাম ২৫০-৩০০ টাকা নির্ধারিত রয়েছে বলে তিনি জেনেছেন।
উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের অভিযোগ যদি সমিতিরি উন্নয়নের জন্যই প্রকাশনীর ডোনেশন নেওয়া হয় তাহালে সর্বোচ্চ ডোনেশন দিতে চাওয়া কাকঁন প্রকাশনীকে বাদ দিয়ে রহস্যজনভাবে নতুন একটি প্রকাশনীর সাথে দেড় লাখ টাকা কমে চুক্তি করা হলো কেন?
শিক্ষার্থিদের অভিভাবকদের অভিযোগ ফুলবাড়ীতে  প্রতি বছর ব্যাকরনও গ্রামার বইয়ের প্রকাশনী পরিবর্তন করে নতুন বই কিনতে বাধ্য করার ফলে অভিভাবকদের প্রতিবছর অতিরিক্ত টাকা খরচ করতে হচ্ছে। সরকার যখন সকল বোর্ড বই ফ্রি দিচ্ছেন তখন সহায়ক বইও ফ্রি দেওয়ার ব্যবস্থা করলে শিক্ষক সমিতির অর্থ বাণিজ্য বন্ধ করা যাবে। শিক্ষক সমিতির নবনির্মিত ভবনের কাজ সমাপ্ত করতে সমিতি শিক্ষার্থীদের জিম্মি করে ফেলেছেন বলে তারা মনে করছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ