• বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:০৭ পূর্বাহ্ন |

জয়ের জন্য বাংলাদেশের লক্ষ্য ৪৫৫ রান

CRIঢাকা:  চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিন শেষে স্বাগতিক বাংলাদেশ ৮ ওভার ব্যাট করে বিনা উইকেটে ১২ রান সংগ্রহ করেছে। ফলে শনিবার চট্টগ্রাম টেস্টের চূড়ান্ত দিনে বাংলাদেশকে জয়ের জন্য আরও ৪৫৫ রান করতে হবে। অক্ষত রয়েছে সবগুলো উইকেটই।

দিনশেষে ঘরের ছেলে তামিম ইকবাল ৭ রানে এবং প্রথম ইনিংসে ক্যারিয়ারের প্রথম শতকের দেখা পাওয়া শামসুর রহমান শুভ ৪ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে দিনের ৭ ওভার বাকী থাকতে স্বাগতিকদের চেয়ে ৪৬৬ রানে এগিয়ে থেকে অর্থাৎ ৪ উইকেটে ৩০৫ রান করে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করে শ্রীলঙ্কা।সাঙ্গাকারার পর এবার শতক তুলে নেন দিনেশ চান্দিমাল। মূলতঃ তার শতক পূর্ণ হওয়ার পরেই লঙ্কান দলপতি অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ ইনিংস ঘোষণা করেন।

৪র্থ উইকেটে সাঙ্গাকারার সঙ্গে ১৪৫ রানের জুটি উপহার দেয়ার পর চান্দিমাল অধিনায়ক ম্যাথুজের সঙ্গে ৫ম উইকেটে অবিচ্ছিন্ন থেকে ৮২ রান যোগ করেন। এ পথেই তিনি টেস্ট ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতকটি তুলে নেন ১৫৮ বলের মোকাবেলায় মাত্র ৪ বাউন্ডারির সাহায্যে। অন্য প্রান্তে অধিনায়ক ম্যাথুজ মাত্র ৩৮ বলে ৩ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৪৩ রানের আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৩১৯ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলা সাঙ্গাকারা দ্বিতীয় ইনিংসেও টেস্ট ক্যারিয়ারের ৩৫তম শতরান করলেন। তবে ৯৯ রান থেকে সোহাগ গাজীর বলে ছক্কা হাঁকিয়ে শতরান পূর্ণ করা সাঙ্গাকারা পরের বলেই বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে যান। এ সময় শ্রীলঙ্কার দ্বিতীয় ইনিংসের সংগ্রহ ছিল ৪ উইকেটে ২২৩ রান। বাংলাদেশের চেয়ে ৩৮৪ রানে এগিয়ে ছিল তখন পর্যন্ত অতিথিরা।

শুক্রবার চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে দলীয় ৭৮ রানের মধ্যে দিমুথ করুনারত্মে, কৌশল সিলভা ও মাহেলা জয়বর্ধনের বিদায়ের পর লঙ্কানদের টেনে নিয়ে যান আগের ম্যাচের ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ান কুমার সাঙ্গাকারা ও দিনেশ চান্ডিমাল। কুমার সাঙ্গাকারার ১০৫ রানের চমৎকার ইনিংসটি ১৪৪ বলে ১১ বাউন্ডারি এবং ২ ছক্কায় সাজানো ছিল। অল্পের জন্য তিনি সাবেক ইংলিশ ব্যাটসম্যান গ্রাহাম গুচ এবং অস্ট্রেলিয়ার সাবেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মার্ক টেলরের রেকর্ড ভাঙতে ব্যর্থ হন।চট্টগ্রাম টেস্টের দুই ইনিংসে ৪২৪ রান করা সাঙ্গাকারা মাত্র ২ রানের জন্য টেলর (৪২৬) কে ছুতে পারেননি। অন্যদিকে এক টেস্টে ট্রিপল সেঞ্চুরি ও সেঞ্চুরি করা গ্রাহাম গুচের (৪৫৬) রেকর্ডের সঙ্গী ঠিকই হয়েছেন লঙ্কান এই বাঁহাতি তারকা ব্যাটসম্যান। চা বিরতীর পর ওভার প্রতি সাড়ে ৪ রান করে ১৪৫ রান করা সাঙ্গাকারা ও চান্দিমাল জুটি বিচ্ছিন্ন হয়।অবশ্য সাঙ্গাকারার এই ইনিংসটি ঠিক নিখুঁত ছিল না। ৩৬ রানে তিনি সাকিব আল হাসানের বলে নাসির হোসেনের কাছে জীবন ফিরে পেয়েছিলেন।

এর আগে বাংলাদেশ টেস্টের তৃতীয় দিনের (বৃহস্পতিবার) আট উইকেটে সংগ্রহ করা ৪০৯ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নেমে আর মাত্র ১৭ রান যোগের পর ৪২৬ রানে গুটিয়ে যায়। শ্রীলঙ্কার প্রথম ইনিংসের সংগ্রহ করা ৫৮৭ রান থেকে ১৬১ রান দুরে থাকতে। মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আগের দিনের ৩০ রানের সঙ্গে আর কোন রানই যোগ করতে পারেননি। শেষ ব্যাটসম্যান আব্দুর রাজ্জাক ১১ রানে অপরাজিত থাকেন।শ্রীলঙ্কার পক্ষে রহস্যময় ক্যারম বোলার অজন্থা মেন্ডিস ৯৯ রানে ৬ উইকেট শিকার করেন। চতুর্থ দিনেও তিনি স্বাগতিকদের অবশিষ্ট ২ উইকেট দখল করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা প্রথম ইনিংস: ১৫৬.৪ ওভারে ৫৮৭/১০ (কুমার সাঙ্গাকারা ৩১৯, জয়বর্ধনে ৭২, মেন্ডিস ৪৭, ভিথানাগে ৩৫, করুনারত্নে ৩১ চান্দিমাল ২৭, সিলভা ১১,ম্যাথুজ ৫। সাকিব ৫/১৪৮, নাসির হোসেন ২/১৬, আল আমিন ১/৮১,সোহাগ গাজী ১/১৮১ ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১/১১০) ও

দ্বিতীয় ইনিংস ৩০৫/৪(ডিক্লেয়ার্ড) (সাঙ্গাকারা ১০৫, চান্দিমাল অপরাজিত ১০০, ম্যাথুজ অপরাজিত ৪৩, সিলভা ২৯, করুনারত্মে ১৫, জয়বর্ধনে ১১, মাহমুদুল্লাহ ২/৪৬, সাকিব ১/৮০, সোহাগ ১/৮৭)

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস ৪২৬ (ইমরুল ১১৫, শামসুর ১০৬, সাকিব ৫০, নাসির ৪২, মাহমুদুল্লাহ ৩০, মুশফিক ২০, মুমিনুল ১৩, রাজ্জাক অপরাজিত ১১ মেন্ডিস ৬/৯৯, পেরেরা ৩/১১৯, লাকমাল ১/৭০)

ও দ্বিতীয় ইনিংস ১২/০ (তামিম ব্যাটিং ৭, শামসুর ব্যাটিং ৪)


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ