• মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৬:০৪ অপরাহ্ন |

ভারতের দখলে চলে যাচ্ছে তিস্তা নদী

Tistaসিসি নিউজ: একের পর এক মিত্রতার নানা কৌশল অবলম্বন করা হলেও কোনো সমঝোতা ছাড়াই তিস্তা নদী কার্যত দখল করে নিচ্ছে ভারতীয়রা। এই আগ্রাসী তৎপরতা দৃশ্যমান হওয়া সত্ত্বেও বাংলাদেশের পক্ষ থেকে কোন জোরালো প্রতিবাদ না করায় হতবাক তিস্তা পাড়ের অবহেলিত হাজার হাজার মানুষ।
নদী পাড়ের মানুষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ভারত প্রতিনিয়ত তিস্তার গতিপথ পরিবর্তন করছে। লালমনিরহাটের বহুল আলোচিত ছিটমহল দহগ্রাম-আঙ্গরপোতার জেগে উঠা চর নিজেদের দখলে রেখেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)।
শুষ্ক মৌসুমে তিস্তার পানি কমে যাওয়ায় বিএসএফ সদস্যরা বড় বড় বোল্ডার ফেলে নদীর গতিপথ পরিবর্তন করে তিস্তা নদীকে ক্রমেই দহগ্রামের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে এক সময় পুরো তিস্তা নদীই ভারতের দখলে চলে যাবে বলে আশঙ্কা করছে সচেতন মহল ।
তিস্তা নদীর তীরবর্তী এলাকায় বসবাসকারীরা অভিযোগ করে বলেন, প্রতিনিয়িত ভারত সীমানা ঠেলছে বাংলাদেশের দিকে। তিনদিকে ভারতীয় ভূখণ্ড এবং একদিকে তিস্তা নদীর ভয়াবহ ভাঙ্গনের ফলে ইতোমধ্যে বহুল আলোচিত ছিটমহল দহগ্রাম-আঙ্গরপোতার অসংখ্য মানুষ ঘরবাড়ি সরিয়ে অন্যত্র চলে গেছে।
দহগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হাবিব জানান, জেগে উঠা তিস্তার চরগুলো বিএসএফ তাদের দখলে রেখেছে। এভাবে চলতে থাকলে ঐতিহ্যবাহী দহগ্রাম ছিটমহলটি ভারতের দখলে চলে যেতে পারে।
তিনি বাংলাদেশ সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করে আরো বলেন, নদীকে ভারতের দখলের কবল থেকে রক্ষা করতে হলে দ্রুত বাঁধ নির্মাণ প্রয়োজন। অন্যথায় তিস্তা নদী যে কোন সময়ে ভারতের সীমানার ভেতরে চলে যাবে।
দহগ্রাম সংগ্রাম কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক রেজানুর রহমান রেজা জানান, দহগ্রাম ছিটমহল রক্ষায় বাঁধের কোন বিকল্প নেই। তিনি দ্রুত বাঁধ নির্মাণের উপর গুরুত্বারোপ করেন।
সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় দহগ্রাম-আঙ্গরপোতার অধিবাসী অলিমা বিবি (৬৬) ও নুরুল হকের (৬০) সঙ্গে। তারা জানান, স্বাধীনতা যুদ্ধের পরও নদীর ওই পাশে ঘর ছিল তাদের। নদী ভেঙ্গে ভেঙ্গে ক্রমেই বাংলাদেশের দিকে আসছে। ওই পারে ভারত বলেই আশ্রয় নিয়েছেন তারা এই পারে। আর এভাবেই বাংলাদেশের ভূখণ্ড দখল করে ভারতীয়রা নির্মাণ করছেন বিভিন্ন স্থাপনা।
তারা জানান, তিস্তা নদীতে সার্বক্ষণিক টহল দিচ্ছে বিএসএফ। কিন্তু বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবির পক্ষ থেকে তিস্তা নদীতে কোনো টহলের ব্যবস্থা নেই। লালমনিরহাটের নদী পাড়ের মানুষজন তিস্তা নদীকে ভারতীয় আগ্রাসন থেকে রক্ষার জোর দাবি জানিয়েছেন।
উৎসঃ   শীর্ষ নিউজ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ