• রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:৫১ অপরাহ্ন |

তিস্তা নদীর উজানে পানির জন্য হাহাকার

Tista Berageহাসান মাহমুদ, হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট): চলতি শুস্ক মৌসুমে তিস্তা নদী এখন মৃত প্রায় । যেখানে তিস্তা নদীর মনমাতান ঢেউ আজ সেখানে ধুধু বালুচর। শুকিয়ে গেছে তিস্তার নদীর পানি। তিস্তা ব্যারাজের উজানে ও ভাটি অঞ্চলে পানি না থাকায় হাজার হাজার কৃষক হতাশ। এবার ভারত কি আমাদের পানি দেবে না দেবে এ নিয়ে চলছে জল্পনাকল্পনা। তবুও পানির আশায় কৃষক।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে তিস্তা ব্যারাজ টি দ্বাড়িয়ে আছে শুধু শুকনো বালু চরে। উজান ও ভাটি অঞ্চলে দেখা দিয়েছে পানির জন্য হাহাকার। পানি শুন্য এই তিস্তা নদী এখন মৃত। প্রাধানমন্ত্রী বিশেষ প্রকল্পের মাধ্যমে তিস্তা  ব্যারাজের উজানের ৫শত মিটার ও ভাটিতে ৩ হাজার মিটার এলাকায় পলি অপসারনের জন্য ড্রেজিং এর কাজ ২০১২ সালে শেষ হয়। ফলে তিস্তা ব্যারাজের মাধ্যমে সেচ প্রকল্প ভেস্তেগেছে । ড্রেজিংযের নামে কোটি কোটি টাকা খরচ করে তা কাজে আসেনি। তিস্তায় পানি না থাকায় এবার বোরোর চাষীরা হতাশায় ভূগছেন। আবার অনেক কৃষক তিস্তার পানীর আশা ছেড়ে দিয়ে শ্যালো মেশিন দিয়ে সেচ দিচ্ছে। রংপুর, দিনাজপুর, নীলফামারীতে এবার এ অঞ্চলে ৭ লাখ ৭০ হাজার ২ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।
নির্ভরযোগ্য সুত্র মতে, বাংলাদেশ ভারতের মধ্যে তিস্তার পানি চুক্তি হবার কথা থাকলেও সেটি এখনও চূড়ান্ত হয়ে উঠেনি। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার তিস্তা চুক্তির বিষয়টি পাইপ লাইনে রাখলেও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জীর কারনে চুক্তি বাস্তবায়নটি থমকে রয়েছে। বর্তমানে শুস্ক মৌসুমে তিস্তার পানি প্রবাহ কত তার একটি জড়িপ পরিচালনা চলছে। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে তিস্তার পানি বণ্টনের একটি বিজ্ঞান সম্মত সমাধান খুঁজে বের করা হচ্ছে।
তিস্তা ব্যারাজের ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মাহবুবু রহমান জানায় শুস্ক মৌসুমে তিস্তার পানি প্রবাহ খুবই কম।যে পরিমারে পানি পাওয়া যাবে তা ধাপে ধাপে রংপুর, দিনাজপুর, নীলফামারী এলাকায় দেয়ার চেষ্টা করবো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ