• শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন |

শটগান নিয়ে সওজ অফিসে এমপির ভাগ্নে

Short Gunনিউজ ডেস্ক: সওজ অফিসে শটগান নিয়ে প্রবেশ করে তোপের মুখে পড়তে হয়েছে সিরাজগঞ্জ-২ আসনের এমপি প্রফেসর ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্নার ভাগ্নে একরামুল হক রিজভীকে। অবস্থা বেগতিক হওয়ায় এক পর্যায়ে দলবল নিয়ে তাকে সটকে পড়তে হয়। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। দুপুরে সওজ অফিস চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের প্রকৌশলীদের সঙ্গে সু-সম্পর্কের সুবাদে রিজভী ও তার দুলাভাই গত ৫ বছর একচেটিয়া ঠিকাদারী কাজ বাগিয়ে নিয়ে কোটিপতি বনে যান। কাজের ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে সুবিধা বঞ্চিতদের সঙ্গে সম্প্রতি রিজভীর মতানৈক্য সৃষ্টি হয়। অন্যদিকে, কথিত ভাগ্নে রিজভী ও শাহীন গ্রুপের মধ্যে মারপিটের ঘটনায় সম্পর্কের ফাঁটল ধরলে রিজভী ভাগ্নে নয় বলেও ঘোষণা দেন এমপি মুন্না। ওই ঘটনায় রিজভীর নামে মামলা হলে অনেকটা বেকায়দায় পড়ে তাকে গা-ঢাকা দিতে হয়। সম্প্র্র্র্রতি আবারও তিনি প্রকাশ্যে শর্টগান ও দলবল নিয়ে চলাচল শুরু করেন। এ অবস্থায় অস্ত্রসহ সওজ অফিসে গেলে সরকার দলীয় নেতাকর্র্মী ও স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়েন রিজভী। এ সময় উভয়ের মধ্যে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। শ্রমিক নেতা ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর গ্যাদা শাহিন এবং জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাসকিব হাসান সুমন বলেন, প্রকাশ্যে অস্ত্র ও দলবল নিয়ে চলাচলের বিষয়টি আপত্তিকর। এমন কোন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি যে সওজ অফিসে রিজভীকে অস্ত্র নিয়ে ঢুকতে হবে। বার বার অফিসে অস্ত্র নিয়ে প্রবেশ করায় শুধু ঠিকাদার নয়, বরং দলীয় নেতাকর্মী ও স্টাফরাও বিব্রত। নিষেধ সত্বেও সওজ অফিসে প্রবেশ করায় ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে রিজভী বলেন, সওজ অফিসে ঢোকার সময় বেশ ক’জন নেশাখোর পথ আগলে লাইসেন্সকৃত শর্টগানটি কেড়ে নেবার চেষ্টা করে। বিষয়টি পুলিশকে অবগত করেছি। কাজ বাগিয়ে নেবার বিষয়ে তিনি বলেন, যোগ্যতার কারনেই ঠিকাদারী কাজ পেয়েছি। সদর ওসি হাবিবুল ইসলাম বলেন, সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে সেখানে কাউকে পায়নি। নির্বাহী প্রকৌশলী মনিরুজ্জামান বলেন, অফিসের বাইরে থাকায় বিষয়টি আমি অবগত নই।
উৎসঃ   মানবজমিন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ