• শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৫:৩৩ অপরাহ্ন |

আ.লীগের তাণ্ডব, বিএনপির ভোট বর্জন

rijviঢাকা: উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কেন্দ্র দখল, ব্যাপক জাল ভোট, বিএনপির প্রার্থীদের পোলিং এজেন্ট বের করে দেয়ার অভিযোগ করেছে বিএনপি। এছাড়া নির্বাচন কমিশন (ইসি) অফিসে ভোট গণনার চক্রান্ত চলছে বলেও অভিযোগ করা হয়। এসব তাণ্ডব ও ভোট জালিয়াতির প্রতিবাদে কোথাও কোথাও প্রার্থীরা নির্বাচন বর্জন করছেন।

বুধবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ এসব অভিযোগ করেন।

যৌথবাহিনী ও আওয়ামী লীগের ‘সন্ত্রাসী’ বাহিনী দিয়ে দলের নেতাকর্মী হত্যা ও গুম করার জন্য প্রধানন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিজের অধীনে রেখেছেন বলেও মন্তব্য করেন রিজভী।

তিনি বলেন, ‘গত ৫ জানুয়ারির মতো উপজেলা নির্বাচনের ফলাফল যেন আওয়ামী লীগের অধীনে নেয়া যায় সেজন্য প্রধানমন্ত্রী স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিজের হাতে রেখেছেন।’

রিজভী বলেন, ‘জনগণ যা চায় সরকার তার বিপরীত করবেন। কারণ জনগণকে তারা তোয়াক্কা করেন না। এর মূল কারণ হচ্ছে সরকারেরর প্রভুরা যা চাইবে তারা তাই করবেন। আওয়ামী লীগ গত ৫ জানুয়ারি একতরফা নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছেন। ফলে উপজেলা নির্বাচনে প্রশাসনকে দিয়ে একটি সাজানো ও প্রহসমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে চাচ্ছেন।’

উপজেলা নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রশাসনের নাকের ডগায় আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা নির্বাচনে অবৈধ কার্যকলাপ চালাচ্ছে। এতেই বুঝা যায় প্রশাসন সরকারের সঙ্গে গোপনে নয়, প্রকাশ্যে আঁতাত করেছে।’

রিজভী বলেন, ‘গত রাত (মঙ্গলবার) থেকে বিএনপির নেতাকর্মীদের বাড়িতে আওয়ামী লীগের দলীয় সন্ত্রাসী ও সরকারের আজ্ঞাবহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাণ্ডব চালিয়েছে।’

ভোটকেন্দ্রে ভোট গণনা না করে নির্বাচন কমিশনের অফিসে ভোট গণনার জন্য সরকার চক্রান্ত করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

ভোটকেন্দ্রগুলো আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসী বাহিনী দখল করেছে দাবি করে ভোটার ও এজেন্টদের বের করে দিয়ে জাল ভোট দিচ্ছে বলে অভিযোগ করে তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপির শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবীর খোকন, সহ দপ্তর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি, শামীমুর রহমান শামীম, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম আজাদ, মহিলাদলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কেন্দ্র দখল, তাণ্ডব, জাল ভোট
বগুড়া জেলা: গতরাতে সোনাতলা উপজেলা পদ্মপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হুয়াকুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আগনেতায়ের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রশিদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, এনায়েতপুর থানা উচ্চ বিদ্যালয়, বয়রা প্রাথমিক বিদ্যালয়, বয়রা কারিগর স্কুল ও কলেজ কেন্দ্র, নওদা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ধর্মপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বালুয়াহাট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রসহ প্রায় ৩৩টি ভোট কেন্দ্রের আশেপাশের গ্রামগুলোতে পুলিশ প্রশাসনের ছত্রছায়ায় আওয়ামী সশস্ত্র গুণ্ডাবাহিনী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে ব্যাপক হামলা চালায় এবং পোস্টারসহ নির্বাচনী অফিস পুড়িয়ে দেয়। এছাড়া আজ ভোট শুরু হওয়ার পরপরই  উল্লিখিত কেন্দ্রগুলো থেকে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দিয়ে উন্মুক্তভাবে জাল ভোট দিচ্ছে।

সারিয়াকান্দি উপজেলায় স্থানীয় প্রশাসন আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থীর হুকুমে ভোটকেন্দ্রে ভোট গণণা না করে ইউএনও অফিসে ভোট গণণা করবে বলে জানিয়েছে।

ভোলা জেলা:  লালমোহন উপজেলার কালমাত ইউনিয়নের ১নং মজু মিয়ার বাড়ির দরজা কেন্দ্র, ২নং তোরাপাঞ্জা কেন্দ্র এবং বদরপুর মাতবর বাড়ির দরজা কেন্দ্র থেকে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দিয়েছে। এছাড়া থানা কৃষকদলের সাংগঠনিক সম্পাদক হোসেন মিয়াকে ভোটকেন্দ্রে ঢোকার সময় পুলিশ অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার করেছে।

শরিয়তপুর জেলা:  আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থীর সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা গোসাইরহাট উপজেলার নাগরপাড়া ইউনিয়ন ডালিবাড়ী প্রাইমারি স্কুল ও রানীসার ভোট কেন্দ্রে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর এজেন্টদের বের করে দিয়ে উন্মুক্তভাবে প্রিজাইডিং অফিসারের সামনে জাল ভোট দিচ্ছে। এছাড়া গরিবের চর ইউনিয়ন, কোদালপুর ইউনিয়ন, কোচাইপট্টি ইউনিয়ন কেন্দ্র থেকে পোলিং এজেন্ট বের করে দেয়া হয়েছে এবং প্রকাশ্যে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে মহড়া দিয়ে ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। প্রশাসন নির্বিকার।

মানিকগঞ্জ জেলা:  আওয়ামী সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা শিবালয় উপজেলা আরোয়া ইউনিয়নে মালতি ও কুষ্টিয়া কেন্দ্রে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে ভোট না দেয়ার জন্য প্রকাশ্যে হুমকি দিচ্ছে। প্রশাসনকে জানালেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না।

পাবনা জেলা: সুজানগর উপজেলার সুজানগর হাইস্কুল, সুজানগর গার্লস স্কুল, ভায়না, রানীনগর, তাঁতী বন্ধ, ভবানীপুরসহ সব কয়টি (৬৩টি) কেন্দ্র দখল করে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা বিএনপি প্রার্থীর সকল এজেন্টদের বের করে দিয়েছে। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ভোট বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং ভোট ডাকাতির  প্রতিবাদে আগামীকাল স্থানীয়ভাবে হরতাল ঘোষণা করা হয়েছে।

উৎস: বাংলামেইল


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ