• সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪৯ পূর্বাহ্ন |

প্রার্থী নেই প্রতীক আছে, অর্ধলাখ ভোট নষ্ট

67193_1
নিউজ ডেস্ক: মিরসরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থীর বাইরেও অতিরিক্ত প্রতীক থাকায় বিভ্রান্ত হয়েছেন ভোটাররা। ফলে এক তৃতীয়াংশ ভোট নষ্ট হয়েছে। ব্যালেট পেপারে এই প্রতীক বিভ্রান্তিতে প্রায় অর্ধলাখ ভোট নষ্ট হয়েছে মিরসরাই উপজেলা নির্বাচনে।
ব্যালট পেপারে অতিরিক্ত প্রতীকের ব্যবহার ও ব্যালট পেপারের নিম্নমানের ছাপাকে দায়ী করছেন প্রার্থীরা।
গত বুধবার মিরসরাই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোট পড়েছে ১ লাখ ৩০ হাজার ৯১৮টি। এরমধ্যে ৪৭ হাজার ২২৯টি ভোট নষ্ট হয়ে গেছে। নষ্ট ভোটের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৭ হাজার ২৬টি, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে ২০ হাজার ৯২৪টি, ভাইস চেয়ারম্যান (নারী) পদে ১৯ হাজার ২৭৯টি ভোট রয়েছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান পদে ভোট সংগ্রহ হয়েছে শতকরা ৪৭ দশমিক ৯ ভাগ। ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট সংগ্রহ হয়েছে শতকরা ৪৭ দশমিক ৪ ভাগ। নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট সংগ্রহ হয়েছে শতকরা ৪৭ দশমিক ৪১ ভাগ। উপজেলার মোট ভাটার ২ লাখ ৭৩ হাজার ৩৩৯ জন।
জানা গেছে, নির্বাচনে তিন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৯ প্রার্থীর (প্রতিটি পদে ৩ জন করে) তিনটি ব্যালট পেপারে অতিরিক্ত প্রতীক দেয়া হয়েছে। ফলে ভোটাররা সঠিকভাবে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেনি। ব্যালট পেপারে দুইটি প্রতীক দেখতে অনেকটা একই রকমের হওয়ায় ভোটাররা সঠিক প্রতীকে ভোট দিতে পারেনি বলে অভিযোগ করেন ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে বই প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থী এনায়েত হোসেন নয়ন।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘ব্যালট পেপারে বই ও টাইপ রাইটার প্রতীক দেখতে প্রায় একই ধরনের। আর এ কারণে টাইপ রাইটার প্রতীকে অনেকেই ভোট দিয়েছেন। অথচ এ প্রতীকে কোনো প্রার্থী ছিল না।’
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু ছালেক বলেন, ‘জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যালট পেপারে প্রত্যেক প্রার্থীর জন্য নির্দিষ্ট প্রতীক ছাড়া অন্য কোনো প্রতীক থাকে না। কিন্তু উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন থেকে প্রার্থীদের জন্য বরাদ্ধকৃত প্রতীক ছাড়াও ব্যালট পেপারে একাধিক প্রতীক থাকে। ব্যালট পেপারে একাধিক প্রতীক রাখার বিষয়টি নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ার।’
উৎসঃ   বাংলামেইল২৪


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ