• শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১১:০৩ অপরাহ্ন |

সে কি আমাকে ভালোবাসে না?

Lifeলাইফস্টাইল ডেস্ক: ইদানীং সঙ্গীর ফোন বা ইন্টারনেট ব্যবহার নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করতে দেখা যায় অনেককে। অনেক নারী-পুরুষ তাদের স্বামী বা স্ত্রীর ফোনের রেকর্ড নিয়মিত লুকিয়ে লুকিয়ে ঘেটে দেখেন। কারণ তাদের ধারণা হয়, তাদের স্বামী বা স্ত্রী অন্য কারো সাথে বন্ধুত্ব করছেন বা প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে গেছেন! ভালোবাসার সুতো একবার ছিঁড়ে গেলে আবার হয়তো তা জোড়া লাগানো যায়, কিন্তু রয়ে যায় একটা জোড়াতালির দাগ। কিন্তু এমনটা কেন হয়? হঠাৎ সন্দেহপ্রবণতা সম্পর্কের মাধুর্য কমিয়ে দেয়। এ থেকে এমনকি সম্পর্ক ভেঙে পর্যন্ত যায়!কিন্তু এর ফলাফলটা হয় কী? লুকিয়ে ফোন রেকর্ড ঘাটার বিষয়টা সঙ্গী টের পেলে এটা নিয়েই হয়ে যেতে পারে কথা কাটাকাটি! আর যিনি এমন করছেন তিনি নিজেও কিন্তু লুকিয়েই কাজটা করে থাকেন ফলে তার পক্ষেও এই কাজটিকে ব্যাখ্যা করার কোনো উপায় থাকে না।
সম্পর্কের প্রথম কথা হলো বিশ্বাস। তাই সঙ্গীকে যথেষ্ট পরিমাণ বিশ্বাস করতে হবে তবেই আশানুরূপ বিশ্বস্ততা তার কাছ থেকেও পাওয়া যাবে। ছোট একটা মেসেজ বা মাত্র একটা অজানা ফোনকল দিয়ে তাড়িত হওয়া মানে আপনি আপনার সঙ্গীকে বিশ্বাস করছেন না। খেয়াল রাখুন, আপনার সম্পর্কের গতিপথ নির্ণয় মাত্র একটা অজানা ফোনকল করতে পারে না।আর যদি এমন হয়েই থাকে যে সঙ্গী কিছু লুকাচ্ছে। চুপচাপ লক্ষ্য রাখুন, দেখবেন সে নিজেই আপনাকে বলছে কেন এই লুকোচুরি।
সঙ্গীকে বাধ্য করার ফলাফল কখনোই ভালো হয় না। সম্পর্কের ভিতরে ব্যক্তি-স্বাধীনতার চর্চা রাখুন। তবে সঙ্গীর সাথে বন্ধুত্ব অটুট রেখে। সম্পর্কের প্রতি দায়বদ্ধ থেকে ব্যক্তিস্বাধীনতার চর্চা করলে সম্পর্কের মাধুর্য অটুট থাকে। আর অহেতুক সন্দেহও তৈরি হয় না।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ