• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৪৬ অপরাহ্ন |

গ্রাহক হয়রানিতে শীর্ষে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক

BB-1ঢাকা : ব্যাংক সেবা খাতে গ্রাহকদের ভোগান্তি দিয়ে শীর্ষে রয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, জনতা ও অগ্রণী ব্যাংক। এছাড়া বেসরকারি খাতের ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ ও ব্রাক ব্যাংকের বিরুদ্ধেও গ্রাহকদের অভিযোগ অনেক বেশি। সেবা নিতে গিয়ে গত জানুয়ারী মাসে এ ব্যাংকগুলোতে সবচেয়ে বেশি বিভিন্ন ধরনের হয়রানির শিকার হতে হয়েছে বলে বাংলাদেশ ব্যাংকে অভিযোগ করেছেন গ্রাহকরা। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।
বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্র জানিয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারিতে দেশের ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে ৩৮২টি অভিযোগ এসেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ২৯টি করে অভিযোগ এসেছে রাষ্টায়ত্ব সোনালী, অগ্রণী ও জনতা ব্যাংক এবং বেসরকারি খাতের ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশের বিরুদ্ধে। এ ছাড়া ব্রাক ব্যাংকের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৬টি অভিযোগ এসেছে।
পরিসংখ্যাণ মতে, ২০১১ সালের এপ্রিল থেকে চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে সর্বমোট ৮ হাজার ৮৩৭টি অভিযোগ এসেছে। এর মধ্যে নিষ্পন্ন করা হয়েছে ৮ হাজার ৩২৪টি। এখনও ৫১৩টি অভিযোগ নিষ্পন্ন করতে পারেনি বাংলাদেশ ব্যাংক। এর মধ্যে টেলিফোনে প্রাপ্ত ৩ হাজার ১০৬টি অভিযোগই নিষ্পন্ন করা হয়েছে কিন্তু ইমেইল ও ডাকযোগে প্রাপ্ত ৫ হাজার ৭৩৬ টি অভিযোগের মধ্যে নিষ্পত্তি করা হয়েছে ৫ হাজার ২২৩টি।
জানুয়ারি মাসে গ্রাহকরা ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে টেলিফোনের মাধ্যমে ৮০টি, ই-মেইলের মাধ্যমে ৩০২টি অভিযোগ করেছেন। জানুয়ারিতে টেলিফোনের মাধ্যমে প্রাপ্ত সকল অভিযোগ নিষ্পন্ন করা হলেও ইমেইল ও ডাকযোগে প্রাপ্ত অভিযোগগুলোর মধ্যে নিষ্পন্ন করা হয়েছে মাত্র ৪৪টি অভিযোগ। এখনও অনিষ্পন্ন অবস্থায়ে রয়ে গেছে ১৬৩টি অভিযোগ।
বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্যাংকগুলোর বিরুদ্ধে গ্রাহকদের অভিযোগ সংখ্যা অনেক কমে গেছে। কিন্তু প্রকৃতভাবে হয়রানি হয়তবা কমেনি। কর্মকর্তাদের ধারণা, প্রচারণার অভাবে হয়তবা গ্রাহকরা অভিযোগ করার বিষয়টি জানতে পারছে না।
এ বিষয়ে ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিগ্রিটি এন্ড কাস্টমার সার্ভিসেস ডিপার্টমেন্টের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, গ্রাহকদের অভিযোগ পাওয়া মাত্র আমরা নিষ্পন্ন করার চেষ্টা করি। কয়েকটি অভিযোগ আমাদের পক্ষে নিষ্পন্ন করা সম্ভব হয়নি। এক্ষেত্রে ক্ষতিগ্রস্থদের আইনের আশ্রয় নিতে বলেছি। সম্প্রতি হয়রানির অভিযোগ কিছুটা কমেছে বলে  তিনি জানান।
উল্লেখ্য, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক ২০১১ সালের ১ এপ্রিল গঠন করে গ্রাহক স্বার্থ সংরক্ষণ কেন্দ্র। পরে এর পরিধি বাড়তে থাকায় আরো বৃহৎ পরিসরে একে ঢেলে সাজিয়ে গঠন করা হয় ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিগ্রিটি অ্যান্ড কাস্টমার সার্ভিস বিভাগ (এফআইসিএসডি)। টেলিফোন, মোবাইল, ইমেইল, ডাকযোগে ক্ষতিগ্রস্থরা অভিযোগ করতে পারেন। – See


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ