• সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন |

তৃতীয় স্ত্রী মিতার সঙ্গে এরশাদের সংসার?

Arsadনিউজ ডেস্ক: ‘জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ তৃতীয় বিয়ে করেছেন। তার নতুন স্ত্রীর নাম মিতা।’ গত ২০০৯ সালের মাঝামাঝি এ রকম প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল দৈনিক নয়া দিগন্ত পত্রিকা।
নয়া দিগন্তের প্রতিবেদন পড়ে এরশাদ ‘ক্ষুব্ধ’ হয়ে উঠেন। এ প্রতিবেদন প্রকাশের জন্য পত্রিকাটির বিরুদ্ধে তখন এরশাদের পক্ষে মামলাও করেন জাতীয় পার্টির এক নেতা।
নয়া দিগন্তের ওই প্রতিবেদন প্রকাশের পর ঢাকার বনানীতে জাতীয় পার্টির কেন্দ্রিয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এরশাদ দাবি করেন, ‘নয়া দিগন্ত বানোয়াট গল্প ছাপিয়েছে আমার বিরুদ্ধে। আমার নতুন করে বিয়ের খবর মিথ্যে।’
সংবাদ সম্মেলনে সাবেক স্বৈরশাসক এরশাদের করা ‘দাবি’ পরদিন পত্রিকায় ছাপা হয়। তা দেখে এরশাদের সাবেক দ্বিতীয় স্ত্রী বিদিশা প্রতিক্রিয়া জানান। প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেছিলেন, ‘এরশাদ ঢাহা মিথ্যেবাজ। তিনি আমাকে বিয়ে করার পরও প্রথম কয়েক বছর এমন কথাই বলতেন যে, বিয়ে করেননি।’
এ নিয়ে তখন দেশিয় গণমাধ্যমে মুখরোচক নানা আলোচনা, সমালোচনা চলতে থাকে। নারীকামী এরশাদ দেশের রাজনীতিতে ডিগবাজির শ্রেষ্ঠ নায়কও। রাজনীতি নিয়ে তার ডিগবাজি চলতে থাকে। একের পর এক ডিগবাজির ঘটনার ভিড়ে গণমাধ্যমের কাছে চাপা পড়ে যায় তার তৃতীয় বিয়ের প্রসঙ্গটি। জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের মধ্যে অনেকে তা ভুলেও যান।
গত ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে জাতীয় পার্টির অনেক নেতা আসেন এরশাদের ঢাকার বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কের বাড়িতে। ওই বাড়িতে তারা একটিবারের জন্যও দেখেননি এরশাদের প্রথম স্ত্রী রওশনকে। এর থেকে দলের নেতাদের মধ্যে গুজব ছড়িয়ে পড়ে, রওশন নন, অন্য একজনকে নিয়ে এরশাদ এখন সংসার করছেন!
গত প্রায় পাঁচ দশক ধরে টিকে আছে এরশাদ, রওশনের দাম্পত্য জীবন। রওশন কখনোই স্বামীর সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর সাহস করেছেন, এমন কোনো নজির নেই। রাষ্ট্রপতি থাকাকালে এরশাদের পরকীয়া কাহিনী দেশ, বিদেশে জানাজানি হয়। এ নিয়ে রওশন কোনোদিন একটি শব্দও উচ্চারণ করেননি স্বামীর বিরুদ্ধে। বিদিশাকে বিয়ে করা, অন্যান্য ভক্ত নারীদের সান্নিধ্য, তাদের সঙ্গে এরশাদের সেক্স কাহিনী, সব চোখ বুজে সহ্য করেছেন তিনি। সেই রওশন নেই এরশাদের সঙ্গে!
জাতীয় পার্টির শীর্ষ পর্যায়ের দুই নেতা জানান, গত বছরের ৩ ডিসেম্বর এক সংবাদ সম্মেলন করে জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন এরশাদ। এরপর গত ১২ ডিসেম্বর রাতে তাকে ‘চিকিৎসার’ জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তত্ত্বাবধানে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়া হয়। এক মাস তিনি ‘হাসপাতালের বিছানা’য় থাকলেও তার পাশে রওশন ছিলেন না। একদিন মাত্র ঘণ্টাখানেকের জন্য তাকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন রওশন।
জাতীয় পার্টির নেতারা জানতে পারেন, গত কয়েক বছর ধরে রওশন আলাদা থাকছেন। শেষ বয়সে এসে সতীনের সঙ্গে সংসার করার বিষয়টি মেনে নিতে পারেননি বলেই তিনি আলাদা আছেন। কয়েক নেতার দাবি, প্রেসিডেন্ট পার্কের বাড়িতে তারা মিতাকে দেখেছেন। তবু তাদের প্রশ্ন, এরশাদ কি এখন তৃতীয় স্ত্রী মিতার সঙ্গে সংসার করছেন? বিডি টুডে


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ