• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন |

সৈয়দপুরে সেনা সদস্য পরিবারকে উচ্ছেদ ও হত্যার হুমকি

CCসিসি নিউজ: দীর্ঘদিন পর আদালতের বিচারে জমির দখল ও মালিকানা বুঝে পাওয়ায় এক সেনা সদস্য পরিবারকে উচ্ছেদ ও হত্যার হুমকি দিয়েছে প্রতিপক্ষের প্রভাবশালীরা। ফলে পরিবারটি উৎকন্ঠায় বন্দী জীবনযাপন করছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে সৈয়দপুর সেনানিবাস সংলগ্ন বাড়াইশলা পাড়াস্থ নিজ বাসভবনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে ওই সেনা সদস্যের পরিবার এসব অভিযোগ করেন।
সংবাদ সম্মেলনে সেনা সদস্যের স্ত্রী লতিফা বেগম জানান, ২০০০ সালে সৈয়দপুর উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের বাঙ্গালীপুর মৌজার ৩৯৯ খতিয়ান, ৪৬০ দাগের পৌনে ২০ শতক জমি একই এলাকার মৃত গমির উদ্দিনের ওয়ারিশদের কাছে ক্রয় করি। যা  স্বামী আলী নেওয়াজ ও আমার (লতিফা) নিজ নামে দলিল করা হয়। কিছুদিন পর একই ইউনিয়নের লক্ষণপুর এলাকার মৃত কাজী মতিয়ারের পুত্র কাজী দুলাল দলিলকৃত ওই জমিটি তার বলে দাবি করে দখলে নেয়ার চেষ্টা করেন। এ নিয়ে সৃষ্টি হয়  বিরোধ। এ ঘটনায় আলী নেওয়াজ নিজে বাদী হয়ে ২০০৫ সালে নীলফামারী সহকারী জজ আদালত সৈয়দপুরে একটি বাটোয়ারা মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় ২০১২ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর আদালত থেকে আলী নেওয়াজ ও লতিফা বেগম ১৫ শতক জমির মালিকানার রায় পান। পরে আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে জমিটি গত রবিবার বাদীপক্ষকে বুঝে দেন। আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে প্রতিপক্ষরা।
সেনা সদস্য আলী নেওয়াজ জানান, আদালত জমিটি বুঝে দেওয়ার পরের দিনই চৌমুহনী বাজারে একটি মহল প্রকাশ্যে আমার পরিবারকে উচ্ছেদ ও হত্যার হুমকি দেয়। যেহেতু এ শহরে আমার কোন স্বজন নেই। তাই প্রাণভয়ে অনেকটা বন্দী দশায় কাটছে আমাদের জীবন।
সেনা সদস্যের স্ত্রী লতিফা বেগম জানান, মূল মালিকের জমি সবার আগে কিনেও স্থানীয়রা বেদখলে নিয়েছিল। পরে আদালতের মাধ্যমে যখন ফেরত পেলাম তখন ষড়যন্ত্রকারীরা আমাদের মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছে। এখন আমরা কোথায় যাব? শ্বশুর বাড়ী বাগেরহাট জেলায় হলেও অবসরের টাকা দিয়ে সৈয়দপুর শহরে বসবাসের নিমিত্তে সম্পত্তি কেনায় এখন বিপদে পড়েছি। তাই শেষ সম্বলটুকু পেতে কি আমাদের জীবন দিতে হবে? সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় প্রশাসনসহ সকলের সহযোগিতা চান ওই সেনা সদস্যের পতœী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ