• শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩৫ অপরাহ্ন |

জাবিতে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁস

Univerঢাকা: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনা ঘটেছে। প্রশ্ন ফাঁস হওয়ায় পরীক্ষা বাতিলের দাবি করেছে অনেক ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা ও ক্যাম্পাসের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।
শনিবার একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনা ঘটে। জানা যায় , দিনের তৃতীয় শিফটের পরীক্ষায় নতুন কলা ভবনের ২১৭ নং কক্ষ থেকে আব্দুল্লাহ আল নোমান নামের এক ভর্তিচ্ছুকে আটক করেছে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক গোলাম রব্বানী। এ সময় তার মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে তাকে ‘এ’ সেটের উত্তর দেয়া হয়। ও এম আর শিটে স্বাক্ষর করার সময় সবগুলি ঘর বলপেন দ্বারা পূরণ করা হলেও সেটকোড পেন্সিল দ্বারা পূরণ করা দেখে সন্দেহ হলে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষক গোলাম রব্বানী তার মোবাইল সিস করলে মোবাইলে এ সেট প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যায়।
আটককৃত নোমানের মাধ্যমে আরো তিনজনকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো চুয়াডাঙ্গার ভর্তিচ্ছু শাহনাওয়াজ ও ইবরার। এছাড়া রায়হান আলী নামে ডেফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীকেও আটক করা হয়। রায়হান এসএমএস এর মাধ্যমে নোমানকে প্রশ্নের উত্তর পাঠিয়েছে বলে নোমান জানিয়েছে। এছাড়া আড়াই লাখ টাকার বিনিময়ে ভর্তি করানো হবে বলেও নোমানকে জানানো হয়েছে বলে সে জানায়।
অভিযুক্ত রায়হান জানায়, আড়াই লাখ টাকার বিনিময়ে একজনের সাথে চুক্তি করা হয়েছে। শাহেদ নামের জাবির প্রতœতত্ত্ব বিভাগের (৪২ ব্যাচ) এক ছাত্রের সাথে তার যোগাযোগ বলেও সে জানায়। শাহেদ তাকে যা করতে বলেছে সে তাই করেছে বলেও সে জানায়।
তবে শাহেদের ছবি পাওয়া গেছে সে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের কিনা যাচাই করছে প্রক্টোরিয়াল বডি। রায়হানকে আটকের পূর্বে আবদুর রহমান নামের এক ছাত্রকে ধাওয়া দিয়েও আটক করতে পারেনি জাবির দুই সাংবাদিক। রায়হানের সাথে রহমানের যোগাযোগ রয়েছে বলে রায়হান জানান।
আটকের বিষয়ে ইতিহাস বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক গোলাম রব্বানী জানান, ভর্তিচ্ছু ওই শিক্ষার্থী পরীক্ষার রোলসহ সকল ঘরগুলি বলপেন দ্বারা পূরণ করলেও সেটকোডের ঘর পেন্সিল দ্বারা পূরণ করায় সন্দেহ হলে তার মোবাইল নেয়া হলে তার মোবাইলে এ সেট প্রশ্নের উত্তর গুলির এস এম এস পাওয়া যায়। ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী বি সেট পেলেও পেন্সিল দিয়ে ঘর পূরণ করে পরে এ সেট লেখার জন্য সেটকোডের ঘর পেন্সিল দ্বারা পূরণ করেছে। পরবর্তীতে সে সেটের পাঠানো উত্তরগুলি মিলে যাওয়ায় ফলাফল স্থগিত করার আহ্বান জানান তিনি।
প্রক্টর ড. মুজিবুর রহমান বলেন, এসএমএস এর উত্তর আর সে সেট প্রশ্নের উত্তর সিংহভাগই মিলে গেছে। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে মূল হোতাকে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। পুলিশকে বলা হয়েছে। পরীক্ষার ফলাফল বাতিল করা হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রশাসনকে সকল বিষয়ে অবহিত করা হবে। এটা ভর্তি পরিচালনা কমিটি করবে। কেন্দ্রিয় ভর্তি পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব ডেপুটি রেজিষ্টার (শিক্ষা ১) মুহম্মদ আলী শীর্ষ নিউজকে বলেন, এ বিষয়ে বসে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
উৎসঃ   শীর্ষ নিউজ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ