• বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন |

আ’লীগে গুরুত্বহীন জাপা

japa flagসিসি ডেস্ক: আওয়ামী লীগের কাছে গুরুত্বহীন হয়ে পড়েছে জাতীয় পার্টি। এখন তাদের কথা আওয়ামী লীগ শুনছে না। রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণে জাতীয় পার্টির ডাক পড়ে না। তাদের প্রতি সরকারের কোনো আগ্রহ নেই। শুধু নিজের প্রয়োজনেই তারা জাতীয় পার্টিকে একতরফা নির্বাচনে সংসদ সদস্য ও সরকারের আসীন করেছে। অথচ সবার অংশগ্রহণে উপজেলা নির্বাচনে এসে তারা জাতীয় পার্টিকে বেমালুম ভুলে গেছে। আওয়ামী লীগের কাছে জাতীয় পার্টির প্রয়োজন ফুরিয়ে গেছে।

উপজেলা নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থীদের প্রতি আওয়ামী লীগের ভূমিকা সম্পর্কে জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির নেতারা ক্ষোভ ও দুঃখের সঙ্গে প্রাইমনিউজ.কম.বিডিকে এ কথা বলেন।

জাতীয় পার্টির নেতারা জানান, আওয়ামী লীগ আদর্শ নয় স্বার্থকে বেশি গুরুত্ব দেয়। স্বার্থের প্রয়োজনে আওয়ামী লীগ জাতীয় পার্টির দ্বারস্থ হয়। প্রয়োজন ফুরিয়ে গেলে তারা জাপাকে ছুঁড়ে ফেলে দেয়। আওয়ামী লীগ কখনো সঙ্কীর্ণ স্বার্থের উর্ধ্বে উঠতে পারেনি। আওয়ামী লীগ বিপদের দিনে জাতীয় পার্টির সাহায্য নিয়েছে কিন্তু সুসময়ে তাদের অস্বীকার করেছে। আসলে এটাই আওয়ামী লীগের চরিত্র।

জাতীয় পার্টির একাধিক সূত্র জানায়, জাতীয় পার্টির সমর্থন নিয়ে শেখ হাসিনা সব সময় সরকারের গিয়েছে। ১৯৯৬ সালে আওয়মী লীগ জাতীয় পার্টির সমর্থন নিয়ে প্রথম সরকার গঠন করে। সরকার গঠনের পর মন্ত্রিসভায় আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর যোগদানকে কেন্দ্র করে জাতীয় পার্টিতে ব্যাপক মতভেদ দেখা দেয়। পার্টি চেয়ারম্যানের নির্দেশে আনোয়ার হেসেন মঞ্জু মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেননি। পরবর্তীতে জাতীয় পার্টির ভাবমূর্তি রক্ষায় হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ মন্ত্রিসভা থেকে আনোয়ার হোসেন মঞ্জুকে বহিষ্করের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অনুরোধ জানান। কিন্তু শেখ হাসিনা এরশাদের কথা রাখেননি। শেখ হাসিনার প্ররোচনায় আনোয়ার হোসেন মঞ্জু মন্ত্রিসভায় বহাল তবিয়তে থাকেন। তিনি আলাদা জাতীয় পার্টি গঠন করেন। এই ঘটনা জাতীয় পার্টির প্রতি আওয়ামী লীগ সরকারের প্রথম আঘাত।

২০০৮ সালে মহাজোট গঠন করে আওয়ামী লীগ নির্বাচনে যায়।ওই সময় শেখ হাসিনা এরশাদকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দেয়। কিন্তু সরকার গঠনের পর আওয়ামী লীগ এরশাদের পরিবর্তে জিল্লুর রহমানকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করে। এটা ২য় দফায় জাতীয় পার্টির প্রতি আওয়ামী লীগের প্রতারণা।

জাপা নেতাদের অভিযোগ, ৫ জানুয়ারির বিতর্কিত নির্বাচন জাতীয় পার্টি প্রত্যাখান করে। এরশাদের নির্দেশে জাতীয় পার্টির প্রার্থীরা মনোনয়ন প্রত্যাহার করে। কিন্তু সরকার ও নিবাচন কমিশনের যোগসজসে জাতীয় পার্টির ৩৪ জন সদস্য মনোনয়ন প্রত্যাহার করতে গেলেও রহস্যজক কারণে প্রত্যাহারের আবেদন গ্রহণ করা হয়নি। দলীয় চেয়ারম্যানের ইচ্ছার বিরুদ্ধে পার্টির তিনজন সদস্যকে মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী বানানো হয়। এরশাদ না চাইলেও তাকে মন্ত্রীর মর্যাদায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষদূত নিয়োগ করা হয়।

অথচ জাতীয় নির্বাচনের রেশ না কাটতেই এই আওয়ামী লীগ উপজেলা নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রতি মুখ ফিরিয়ে নেয়। জাতীয় পার্টির প্রার্থীদের সহযোগিতা সমর্থন তো দূরের কথা উল্টো আওয়ামী লীগ নেতারা জাতীয় পার্টিকে জড়িয়ে আপত্তিকর কথাবার্তা বলে। যে কারণে ২১২টির মতো উপজেলা নির্বাচনে বিভিন্ন পদে ৩৩৬ জন প্রার্থীর মধ্যে জাতীয় পার্টি থেকে মাত্র ২ জন চেয়ারম্যান নিবার্চিত হয়।

উপজেলা নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রতি আওয়ামী লীগের্ আচরণ সম্পর্কে জাতীয় পাটির প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম হাবিব দুলাল প্রাইমনিউজ.কম.বিডিকে বলেন, আওয়ামী লীগ অকৃতজ্ঞ। তারা তাদের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য জাতীয় পার্টিকে সংসদ ও সরকারের নেয়। তারা মনে করে এখন তারা নিরাপদ। যে কারণে উপজেলা নির্বাচনে তারা জাতীয় পার্টির প্রার্থীর প্রতি সমর্থন সহযোগিতাতো করেইনি বরং বিভিন্ন জায়গায় জাপা প্রার্থীদের হয়রাণি করে।

পার্টির আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন প্রাইমনিউজ.কম.বিডিকে বলেন, শেখ হাসিনা জাতীয় পার্টির সমর্থন নিয়ে তিন বার সরকার গঠন করেছে। তারা মনে করে তাদের দুর্দিন শেষ হয়ে গেছে। তাই তারা উপজেলা নির্বাচনে জাপার কাছ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে।

জাতীয় পার্টির ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল আলম রুবেল প্রাইমনিউজ.কম.বিডিকে বলেন, আওয়ামী লীগ মনে করে জাতীয় পার্টিকে তাদের আর দরকার নেই। এ কারণে উপজেলা নির্বাচনে আমাদের প্রতি তাদের অসহযোগিতা ও অবহেলা।

বাণিজ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, উপজেলা নির্বাচনের মধ্য দিয়ে একটি রাজনৈতিক মেরুকরণ হয়েছে, সেটা হলো রংপুরের মতো জায়গায় বিএনপি জিতেছে। হয়তোবা এ নির্বাচনে জাতীয় পার্টিও বিএনপির সঙ্গে ছিল।

শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিআইপি লাউঞ্জে রাষ্ট্রবিজ্ঞান সমিতির গোলটেবিল আলোচনা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ