• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:০২ পূর্বাহ্ন |

খালেদা জিয়ার হুমকি অশনিসংকেত : আ.লীগ

Hanif+Kamrulঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার হুমকি দেশের জন্য নতুন করে অশনিসংকেত বলে মন্তব্য করছে আওয়ামী লীগ। গত শনিবার সাবেক বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া রাজবাড়ীর জনসভায় উপজেলা নির্বাচন শেষ করে সরকার পতনের আন্দোলন করবে বলে ক্ষমতাসীন সরকারের প্রতি হুমকি দেয়।

সে জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার এ হুমকিকে ক্ষমতাসীন সরকারের জন্য হুমকি বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। সোমবার দুপুরে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মহড়া কক্ষে চলচ্চিত্রকার আলমগীর কুমকুম স্মরণে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, ‘২০১৩ সাল ছিল বাঙালি জাতির দুঃস্বপ্নের বছর। বিএনপি জামায়াত আন্দোলনের নামে পেট্রোল বোমা, ককটেল বিস্ফোরণ ও মানুষ হত্যা করে দেশে একটি নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি  সৃষ্টি করেছিল।’

তারপর কিন্তু ৫ জানুয়ারি নির্বাচনের পরপরই মানুষের মধ্যে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে এসেছিল। এখন দেশের মানুষ শান্তিতে আছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
সুশীল সমাজের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘নতুন করে হানাহানি সৃষ্টির জন্য দেশের সুশীল সমাজের কিছু ব্যক্তিরা উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। তারা উপজেলা নির্বাচন নিয়ে জাতির মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে চায়। স্থানীয় নির্বাচন নিয়ে জাতি মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করার সুযোগ নেই।’

তিনি বলেন, এটা স্থানীয় নির্বাচন। ব্যক্তির জন প্রিয়তা ও যোগ্যতা এবং পারিবারিক গ্রহণযোগ্যতার মাধ্যমে নির্বাচিত হয়। এখানে দলের কোনো প্রতীক ও মনোনয়ন দেওয়া হয় না। খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, আন্দোলন করার মত সাংগঠনিক শক্তি বিএনপির অতীতেও ছিল না, এখনও নেই।
তিনি বলেন, ‘দেশে সাম্প্রদায়িক বিষবাষ্প ছড়ানো হচ্ছে। দেশকে উগ্র ও জঙ্গিবাদী প্রমাণ করার চেষ্টা চলছে। বিএনপি নিজেদের ভুল স্বীকার না করলেও তা অনুধাবন করেছে।  তারা এখন সুবোধ বালকের মত আচরণ করে গণতন্ত্রের পথে আছে। কিন্তু তাদের এ রূপ স্থায়ী নয়।’
তিনি আরো বলেন, ‘বেগম জিয়ার বক্তব্যে বুঝা যাচ্ছে, তারা যে কোনো মুহূর্তে ছোবল মারতে পারে। সহিংস হয়ে উঠতে পারে। সে ব্যাপারে সতর্ক হতে হবে।’
বিএনপিকে সংগঠন গুছানোর পরামর্শ দিয়ে কামরুল বলেন, বাংলাদেশে কোনো অবস্থাতেই আগাম নির্বাচন এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন হবে না। আগামী নির্বাচনও শেখ হাসিনার অধীনে হবে। সে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য দল গুছিয়ে প্রস্তুতি গ্রহণ করেন।
আয়োজক সংগঠনের সভাপতি অ্যাডভোকেট তারানা হালিমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, অভিনেতা এনামুল হক, পীযূষ বন্দোপাধ্যায়, আলমগীর কুমকুমের একমাত্র সন্তান রনি কুমকুম, অরুণ সরকার রানা প্রমুখ। রাইজিংবিডি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ