• শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ০৯:৩১ অপরাহ্ন |

চুয়াডাঙ্গায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী নিহত

Bondukচুয়াডাঙ্গা: জেলার দামুড়হুদায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আবুল কাশেম (৩৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। কাশেম একজন তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী বলে পুলিশ জানিয়েছে।
মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে উপজেলার বোয়ালমারী গ্রামের কানাইবাবুর আমবাগানে এ ঘটনা ঘটে।
কাশেম মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার বোয়ালমারি গ্রামের মৃত জুড়ন আলীর ছেলে।
বন্দুকযুদ্ধের সময় সন্ত্রাসীদের ছোড়া বোমায় এসআই নিয়াজ আলী (৩৮) ও কনস্টেবল খায়রুল ইসলাম (৪৫) গুরুতর আহত হন।
দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, রাতে বোয়ালমারী গ্রামের কানাইবাবুর আমবাগানে ১০-১২ জন সন্ত্রাসী গোপন বৈঠক করছিল। এ খবরের ভিত্তিতে দামুড়হুদা থানার এসআই রবিউল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা তাদের লক্ষ্য করে তিনটি শক্তিশালী বোমা ছুড়ে মারে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে উভয়ের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধ শুরু হয়। এতে কাশেম ঘটনাস্থলে নিহত হন।
বোমার স্প্লিন্টারে দামুড়হুদা মডেল থানার এসআই নিয়াজ আলী ও কনস্টেবল খায়রুল ইসলাম গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের দামুড়হুদা চিৎলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশি বন্দুক, বন্দুকের চার রাউন্ড গুলি, চারটি তাজা বোমা, বেশ কয়েকটি গুলির খোসা উদ্ধার করেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
নিহত আবুল কাশেম পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে অপহরণ, হত্যা, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন থানায় প্রায় এক ডজন মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি আহসান হাবিব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ