• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন |

সন্তানের কারাযন্ত্রণা সইতে পারেননি সেই মা

Maসিসি ডেস্ক: সম্পদের লোভে ৮০ বছর বয়সী অশীতিপর বৃদ্ধা রওশন আরা বেগমকে গলা টিপে মেরে ফেলার চেষ্টা করেছিল তিন ছেলে ও পুত্রবধূ। ‍অসহায় মায়ের দায়ের করা মামলায় সস্ত্রীক তিন পুত্রকে কারাগারে পাঠিয়েছিলেন আদালত। যে মাকে খুনের চেষ্টা করেছিল সন্তানেরা, সেই সন্তানদের কারাভোগের যন্ত্রণা সহ্য করতে পারেননি সেই মা।
বুধবার আদালতে হাজির হয়ে সেই মা সন্তানদের ক্ষমা করে দেয়ার কথা জানিয়েছেন বিচারককে। গর্ভধারিণী মায়ের মহানুভবতায় কারাযন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেয়েছেন তিন ছেলে ও তিন পুত্রবধূ।
বুধবার চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম ফরিদুল আলম তিন ছেলে ও তাদের স্ত্রীদের জামিন দেন। তবে সন্তানেরা মায়ের ভরণপোষণের দিকে নজর রাখছে কিনা সেটি পর্যবেক্ষণ করতে আদালত মামলা চালিয়ে যাবার নির্দেশ দিয়েছেন।
বাদিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এস এইচ এম হাবিবুর রহমান আজাদ বাংলানিউজকে জানান, প্রথমে আদালতে মা এসে সন্তানদের কারাভোগের যন্ত্রণা তিনি সহ্য করতে পারছেন না বলে জানান। এসময় তিন ছেলে এবং তাদের স্ত্রীরাও মায়ের কাছে প্রকাশ্যে ক্ষমা চান।
এছাড়া কখনও সম্পদের ভাগবাটোয়ারা নিয়ে ‍মায়ের উপর চাপ সৃষ্টি করবেনা এবং ভরণপোষণ বাবদ মাকে প্রতি মাসে ৬ হাজার টাকা দেয়া হবে বলে তিন ছেলে অঙ্গীকার করেন। তিন পুত্রবধূ শ্বাশুড়ির যত্ন নেবেন বলে অঙ্গীকার করেন। এরপর আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।
অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান আজাদ বলেন, ‘আমাদের পরামর্শে বৃদ্ধা মা মামলা প্রত্যাহার করেননি। আদালতের কাছে তাদের অঙ্গীকার প্রতিপালনের বিষয়ে আন্তরিকতা প্রমাণিত হলেই মামলা তুলে নেয়া হবে।’
উল্লেখ্য চট্টগ্রাম নগরীর বন্দর থানার মধ্যম হালিশহরে আড়াই গণ্ডা জায়গা আছে রওশন আরা বেগমের। ওই জায়গা ভাগ-বাটোয়ারায় রাজি করাতে না পেরে বৃদ্ধা রওশন আরাকে গত ২৪ জানুয়ারি তার তিন ছেলে ও তিন পুত্রবধূ মিলে গলা টিপে হত্যার চেষ্টা করে। মৃত্যু না হওয়ায় তাকে মারধর করে একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে আটকে রাখে।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ ফেব্রুয়ারি রওশন আরা মহানগর হাকিম ফরিদুল আলমের আদালতে দণ্ডবিধির ৩০৭, ৩২৩, ৩২৪, ৫০৬ ধারায় মামলা দায়ের করেন। ওইদিনই মামলাটি আমলে নিয়ে আদালত অভিযুক্ত ছয়জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।
গত ২ মার্চ অভিযুক্ত ছয়জন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন জানান। বিচারক জামিন আবেদন নাকচ করে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
অভিযুক্ত ছয়জন হলেন, নূর ইসলাম (৪০) ও তার স্ত্রী শামীম আক্তার (৩৩), নূর আলম (৩৮) ও স্ত্রী পারভিন আক্তার (৩০) এবং নূর হোসেন (২৫) ও স্ত্রী বিউটি আক্তার (২০)।
বাদি রওশন আরা নগরীর মধ্যম হালিশহরের বাকেরটেক এলাকার মৃত নূরউদ্দিন ড্রাইভারের স্ত্রী।

উৎসঃ   বাংলানিউজ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ