• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১:১৪ পূর্বাহ্ন |

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদলে যারা স্থান পাচ্ছেন

Chatro Dolঢাকা: ছাত্রদলের কমিটি মানেই একসময় পদগুলোতে অছাত্রদের জয়জয়কার ছিল পরিচিত একটা দৃশ্য। নিয়মিত ছাত্রদের সামান্য যে কজন কমিটিতে জায়গা পেতেন তারাও গুরুত্বপূর্ণ কোনো পদই পেতেন না। এছাড়া নেতা হতে প্রচুর সময় ও অনিশ্চয়তার কারণে অনেক শিক্ষার্থী ছাত্রদলে যোগ দিতেও চাইতেন না।  আর এসব অভিযোগের কারণে বিএনপিকেও শুনতে হয়েছে বহু সমালোচনা। অন্যদিকে নেতারা বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান শিক্ষার্থী না হওয়ায় বিএনপির বিগত আন্দোলনের সময় দলটিকে কার্যত কোনো সাহায্যই করতে পারেননি বিএনপিপন্থী শিক্ষকরা। কমিটিতে স্থান পাওয়াদের অনেকে ছাত্র না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতির সঙ্গে তাদের সরাসরি যুক্ত করার ব্যাপারেও কার্যকর কোনো পদক্ষেপ নিতে পারেননি শিক্ষকরা। এরফলে বিএনপির সরকার পতন ও নির্বাচন প্রতিহতের আন্দোলনে একরকম নিষ্ক্রিয় ভূমিকা পালন করেন শিক্ষক ও ছাত্ররা।
আন্দোলনে ছাত্রদলের এমন নিষ্ক্রিয় ভূমিকায় তাদের প্রতি ক্ষুব্ধও হয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। আর তাই আগামীতে রাজপথের আন্দোলনকে চাঙ্গা করতে নিয়মিত ছাত্রদের নিয়েই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রদল কমিটিকে ঢেলে সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। ইতোমধ্যে নিয়মিত শিক্ষার্থীদের দিয়ে ঢাবি কমিটি ও অধিভুক্ত হলের কমিটির জন্য নির্দেশও দিয়েছেন। এ জন্য ঢাবি শিক্ষকদের কাছে সুপারিশও চেয়েছেন বেগম জিয়া। এ লক্ষ্যে শিক্ষকরা ইতোমধ্যেই পদপ্রত্যাশীদের নিয়ে একটি খসড়া প্রস্তুত করেছেন বলে একাধিক সূত্র  নিশ্চিত করেছে। কয়েকটি সূত্র জানায়, ছাত্রদলের নতুন কমিটির ব্যাপারে ঢাবি শিক্ষকদের দায়িত্ব দেয়ার পর তারা ইতোমধ্যে কাজ শুরু করছেন। এক্ষেত্রে কমিটিতে পদ পেতে যারা যোগ্য ও দক্ষ নানাভাবে তাদের চিহ্নিত করা হচ্ছে।
সূত্র আরো জানায়, ঢাবি কমিটির ক্ষেত্রে যারা বৈধ শিক্ষার্থী তাদের দিয়েই নতুন কমিটি গঠনের চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগ যাতে কোনোভাবেই তাদের অছাত্র, বহিরাগত, বিবাহিত বলে কটাক্ষ করতে না পারে সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈধ পরিচয়পত্র বহনকারী যোগ্য ও ত্যাগীদের নতুন কমিটিতে আনার পরিকল্পনা করা হয়েছে।
অন্যদিকে হল কমিটির ক্ষেত্রে অবশ্যই নিয়মিত শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে বলে  দলের হাইকমান্ডসহ সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও হলে সহাবস্থানের কথা বিবেচনা করে সব মহল থেকে এ রকম পরার্মশ দেয়া হয়েছে। সব তালিকা থেকে সমন্বয় করে অতীতের ত্যাগ ও ছাত্রত্ব যাচাই করে সংশ্লিষ্টদের পদ দিতে খালেদা জিয়ার কাছে সুপারিশ করা হবে বলে জানিয়েছে সূত্রটি।
কমিটির জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকদের কয়েকজন বলেন, শিক্ষকদের ওপর আস্থা ও বিশ্বাসের কারণেই বেগম খালেদা জিয়া পরামর্শ চেয়েছেন। শিক্ষকরা কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে ভাইতন্ত্রকে বাদ দিয়ে রাজপথের আন্দোলনের জন্য যারা যোগ্য তাদের দিয়েই কমিটি করার জন্য খালেদা জিয়াকে সুপারিশ করবেন। ইতোমধ্যেইে শিক্ষকদের কাছে পদ পেতে তোড়জোড় শুরু করেছেন পদপ্রত্যাশীরা। এর ফলে অনেক শিক্ষককে বিব্রতকর অবস্থায়ও পড়তে হয়েছে।
সূত্র আরো জানায়, খালেদা জিয়ার সঙ্গে ঢাবি শিক্ষার্থীদের মিটিংয়ে ছাত্ররা অভিযোগ করেছিলেন বিএনপিপন্থী সাদা দলের শিক্ষকরা কখনো ক্যাম্পাসে ছাত্রদলকে সহায়তা করেননি। হরতালেও তারা ক্লাস নিয়ে বরং সরকারকে সাহায্য করেছে। ছাত্রদলের কেউ বিপদে পড়লে সাদা দলের শিক্ষকরা সামনে থাকলেও কখনো এগিয়ে আসেননি। এখন শিক্ষকদের সম্পর্কে ছাত্রদের যেই মনোভাব এতে করে তারা নাম দিলে ছাত্ররা মানবে বলে মনে হয় না।
ঢাবি কমিটির নেতৃত্বে যারা আসতে পারেন: শহীদ মাল্লিক (ইসলামের ইতিহাস), মো. জুয়েল হাওলাদার (বাংলা), আরিফ, রুবেল, মো. রওনকুল হাসান শ্রাবণ (বাংলা), ফজলুর রহমান খোকন (সমাজবিজ্ঞান), এম মুহিনউদ্দিন রাজু (সমাজবিজ্ঞান), মো. আলী হাসান (বাংলা), বিশ্বজিৎ ভদ্র (সংস্কৃত), মেহেদী হাসান (হিসাববিজ্ঞান)।

এর বাইরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান কমিটি থেকেও কয়েকজন সিনিয়র নেতা কমিটির মূল নেতৃত্বে আসতে পারেন বলে জানা গেছে।
ঢাবির বিভিন্ন হলে পদপ্রত্যাশীরা হলেন:
সলিমুল্লাহ মুসলিম হল: সজীব (গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা), সাইদ (আরবি) মুজাহিদুর রহমান (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), হাবিবুল বাশার (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), জাফর (সমাজবিজ্ঞান), রাজু (লাইব্রেরি সাইন্স), ওয়াসিম খান মুক্ত (ইসলামের ইতিহাস), জয় (আইন বিভাগ), জসিমউদ্দিন খান (সমাজবজ্ঞিান), মিরাজ (ফার্সি), শিপন।
শহীদ সার্জন্টে জহুরুল হক হল: রাশেদ ইকবাল (ইতিহাস), শ্যামল মালুম (আরবি), নাদির শাহ (ইসলাম শিক্ষা), শফিউল আলম সৌরভ (আরবি), আসাদ (ইতিহাস), জাবেদ (আইন), আমানুল্লাহ (সঙ্গীত)।
স্যার এএফ রহমান হল: এসএম সোহেল রানা সম্রাট (বাংলা),  মো. তাজবীর সিরাজী শিশির (ইতিহাস), মো. উজ্জল (পালি অ্যান্ড বুদ্ধিস্ট স্ট্যাডিজ), গোলাম সারোয়ার সুমন (ব্যবস্থাপনা), বদিউজ্জামান পলাশ (পালি), মো. রেজোয়ানুল হক সাকি (তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা) ।
হাজী মুহম্মদ মুহসীন হল: মো. রাসেল মিয়া (ম্যানেজমন্টে অ্যান্ড ইনফরমশেন সিস্টেম), রিয়াজ (লোকপ্রশাসন), রাকিব বিশ্বাস, সজল মিয়া (ইংরেজি), সোহেল (উন্নয়ন অধ্যয়ন), তারেক (আইন), শহিদুল ইসলাম, পারভেজ (লোক প্রশাসন), মো. রনি হাসান (দর্শন), সুমন (সমাজকল্যাণ), মো. খালদুন (ফার্সি)।
সূর্যসেন হল: রোকনুজ্জামান (ইতিহাস বিভাগ), আশিকুর রহমান (আইন বিভাগ), নিজামুদ্দীন (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), শিমুল (ইসলামের ইতিহাস), খাইরুল ইসলাম (সমাজবিজ্ঞান)।
কবি জসমিউদ্দীন হল: সোহেল রানা (শান্তি ও সংঘর্ষ), আনোয়ার পারভেজ (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), সালাহউদ্দিন শুভ (দর্শন), সাবিত হোসাইন (সমাজবিজ্ঞান), জুবায়ের মাহমুদ রাজু (বিশ্বর্ধমতত্ত্ব), অলিউর রহমান জনি (বাংলা) মেহেদী ইসলাম ফুয়াদ (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), মো. রায়হান (সমাজবিজ্ঞান), মওদুদ আহমেদ (দর্শন), রিয়াজ (দর্শন), শিপন।
মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল: আবু সুফিয়ান (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), শাওন (সমাজবিজ্ঞান), সাব্বির হোসেন র্সূয (আইইআর), সিকান্দার আলী সুমন (দর্শন), আশিকুর রহমান (হিসাব বিজ্ঞান)।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল: করিম প্রধান রনি (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), ফারহান (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), মতিউর রহমান (পালি), আশরাফুল আলম (বাংলা), আহাদ হোসেন (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), শরিফুল ইসলাম (রাষ্ট্রবিজ্ঞান), লিটন এ আর খান (দর্শন)।
ফজলুল হক মুসলিম হল: রাকিব (পদার্থ বিজ্ঞান), রনি (গণিত), পারভেজ (পরিসংখ্যান), শিবলী (মৃত্তিকা পানি ও পরিবেশ), শফিক (পদার্থ বিজ্ঞান), সম্রাট (ফার্মাসি), ফজলুল হক (মৃত্তিকা), ইজাজুল কবির রয়েল (প্রাণিবিদ্যা), আবু রায়হান রনী (গণিত)।
অমর একুশে হল: অনিক (গণিত), রিয়াদ (কম্পিউটার সায়েন্স), নিলয়, শাকির, রিয়াদ, নাসির, আবুল হাসনাত, হাসান মোশারফ।
শহিদুল্লাহ হল: মির্জা গোলাম শাবু (পরিসংখ্যান), রাজিব রহমান (মৃত্তিকা বিজ্ঞান), মো. হাসনাত (মৃত্তিকা বিজ্ঞান), ইমন (গণিত), মাহমুদ (মৃত্তিকা বিজ্ঞান), পিয়াস (বোটানি), রাসেল (বোটানি), গোলাম সারোয়ার ইমন, ফারাবি।
জগন্নাথ হল: সজীব মজুমদার (গণিত), হেমন্ত কুমার সাহা (গণিত ), সম্রাট মালাকার (ট্যুরিজম), কৃষ্ণ রায় অনাবিল, সঞ্জিব সিংহ জন, সাহস রায়, তপু সরকার, প্রসেনজিৎ কর্মকার, পাপন দাস, চন্দন মিত্র, গোবিন্দ পাল, অর্জুন চাকমা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ