• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন |

চিরিরবন্দরে বোরো আবাদ অনিশ্চিত

জামাল উদ্দিন, চিরিরবন্দর (দিনাজপুর): খাদ্য শষ্যের ভান্ডার হিসাবে খ্যাত দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলায় চলতি মৌসুমে বোরো চাষের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে চারা রোপন করলেও তিস্তার পানি সরবরাহ না থাকায় প্রায় ২০ হাজার বিঘা জমির বোরো আবাদ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এতে প্রায় সাড়ে ৪ লক্ষ টন ধান উৎপাদন কমে আসবে।
উপজেলার অভ্যান্তরে তিস্তা ব্যারেজের দু’টি ক্যানেল প্রবাহিত। এ ক্যানেলের আওতায় প্রায় ২০ হাজার বিঘা জমিতে বোরো চাষ করা হয়েছে। প্রতি বছর তিস্তার পানি নিয়ে চাষিদের  দূর্ভোগ পোহাতে হয়। এ বছর তার ব্যতিক্রম হয়নি। বোরোর ভরা মৌসুমে প্রায় ২০ দিন থেকে ক্যানেলে পানি নেই। দীর্ঘ দিন ধরে তিস্তা ব্যারেজ থেকে পানি সরবরাহ বন্ধ থাকায় কৃষকরা জমিতে সেচ দিতে পারছে না। ফলে নাগানো বোরো চারা মরে যাচ্ছে। এতে ক্ষতির সম্মূখীন হচ্ছে কৃষকরা। ইতিপূর্বে পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে জানালেও কোন সমাধান না পাওয়ায় বাধ্য হয়ে পানির দাবীতে দু’বার রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ করে। খবর পেয়ে চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান ঘটনাস্থলে পৌঁছে পানি সরবরাহের আশ্বাস দিলে অবরোধকারীরা অবরোধ তুলে নেয়। এ সময় চিরিরবন্দর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রওশন মোস্তফা পিপিএম উপস্থিত ছিলেন।
ক্যানেলের আওয়াতাভোগি কৃষক ফজলুল হক, মনজের আলী, নজরুল, আফছার, আজিজুুল, আলাউদ্দিন, আজগার, মোক্তার, আমির উদ্দিন, বেলাল উদ্দিন, উপেন্দ্র চন্দ্র রায়, এমদাদআলী, আফজাল জানান, প্রতি বছর তিস্তার পানি নিয়ে দূর্ভোগ পোহাতে হয়। এজন্য উৎপাদন ব্যহত হয়। এ বছর প্রায় ২০ হাজার বিঘা জমির বোরো আবাদ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এতে প্রায় সাড়ে ৪ লক্ষ টন ধান উৎপাদন কমে আসবে। কৃষকদের দাবী অনতিবিলম্বে ক্যানেলে পানি সরবরাহ করা না হলে কঠোর কর্মসূচী গ্রহণ করা হবে।
উপজেলা কৃষি অফিসার বিপ্লব কুমার মোহন্ত জানান, এ বছর চিরিরবন্দর উপজেলার ১৮ হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে বোরে চাষের লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রতি বছর উপজেলার উৎপাদিত ধান উপজেলার চাহিদা মিটিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় রপ্তানী হয়ে থাকে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ