• বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৩:২৭ অপরাহ্ন |

কাজী জাফর আহমদ কোথায় আছেন?

69705_1বাংলা একটি প্রবাদে বলা হয়, ঝড়ে বক মরে আর ফকিরের কেরামতি বাড়ে। কিন্তু ঝড় হলো না। তাই কেরামতির আশ্বাস দেওয়া ফকিরের এখন কাজ নাই। এমনই একটি অসহায় অবস্থার মধ্যে পড়ে গেছেন কাজী জাফর আহমেদ।

বিএনপির অনুপস্থিতিতে দশম সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির অংশ নেওয়া না নেওয়াটা তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি গুরুত্ব পেয়ে গিয়েছিল। কিন্তু নির্বাচন হয়ে যাওয়ায়, জাতীয় পার্টির সে সময়ের গুরুত্বে ভাটা পড়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু তৎকালীন সময়ে জাতীয় পার্টি ও নিজের ‘গুরত্বের স্ফীতি’ সম্পর্কে সঠিক হিসাব-নিকাশটি করতে পারেননি কাজী জাফর আহমদ। একারণেই, তিনি নিজেকে নিজে জাতীয় পার্টির স্বঘোষিত সভাপতি করেছিলেন। কিন্তু তাতে কোন কূল-কিনারা করতে পারেননি তিনি। এমনকি বিএনপির সাথে ঐক্যের কথা বললেও আগাম নির্বাচন নিশ্চিত করার লড়াইয়ে কোন ভূমিকা রাখতে পারছেন না। ফলে, বর্তমান রাজনীতিতে কাজী জাফর আহমদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে নানান মহলে।
সংবাদ সম্মেলন ও নিজেদের ভাষায় কয়েকটি ‘সাংগঠনিক সফর’ ছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে কাজী জাফর আহমদের কোন কার্যক্রমই চোখে পড়েনি। বিএনপির সাথে প্রকাশ্য কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সর্বশেষ গত ৪ ফেব্রুয়ারি হোটেল ওয়েস্টিনে খালেদা জিয়ার সংবাদ সম্মেলনে দেখা গিয়েছিলো তাকে। অথচ বিএনপি উপজেলা নির্বাচন ও আগাম জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবিতে যে কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছে তাতে কোন ভূমিকাই রাখতে পারছেন না তিনি।
নিছক রাজনীতিবিদদের মতো তিনি এখনও বলে চলছেন, ৫ জানুয়ারী ভোটারবিহীন প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে আওয়ামী বাকশালী চক্র নিজেদের ক্ষমতায় থাকার প্রক্রিয়াকে দীর্ঘায়িত করার অপকৌশল আগামী দিনে জনগণের দুর্বার আন্দোলনে খড়-কুটোর মতো ভেসে যাবে’।
সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, ‘জনগণ ইতোমধ্যে উপজেলা নির্বাচনে ক্ষমতাসীনদের বিরুদ্ধে নিজেদের মনোভাব প্রকাশ করেছে এবং উপজেলা নির্বাচনের পরপরই আন্দোলনের মাধ্যমে তার চূড়ান্ত প্রকাশ ঘটবে’।
কাজী জাফরের এই কথাগুলোর গুরুত্ব ব্যাখ্যা করতে গিয়ে রাজনীতির পর্যবেক্ষকরা আরও একটি প্রবাদ স্মরণ করেন। প্রবাদ আছে, ‘নেই কাজ, তো খই ভাঁজ’। কেবল কথার খই ফোটান ছাড়া বর্তমান রাজনৈতিক সংকট নিরসনে কাজী জাফর মাঠ পর্যায়ে কিংবা কোন পর্যায়েই কোন ভূমিকা রাখছেন না কিংবা রাখতে পারছেন না।
এছাড়া, নিজেকে জাতীয় পার্টির সভাপতি ঘোষণা করলেও, দলটির মূল অংশ চলছে এরশাদ-রওশন এরশাদের মতো করেই। কাজী জাফর নিজেকে সভাপতি ঘোষণা করার পর তার মহাসচিব হয়েছিলেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম মসিহ। কিন্তু সম্প্রতি কাজী জাফরকে একা করে দিয়ে বর্তমান সংসদের বিরোধী দলীয় নেতা রওশন এরশাদের রাজনৈতিক সচিবের দায়িত্ব নেন গোলাম মসিহ। এভাবে কর্মহীন বাক্যাড়ম্বর জীবন-যাপন করছেন কাজী জাফর আহমদ।
উৎসঃ   নতুনদিন

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ