• বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩২ পূর্বাহ্ন |

আইনজীবি সহকারিকে থানায় নির্যাতনের অভিযোগ

Policনওগাঁ প্রতিনিধি: ঘুষের টাকা কম দেয়ায় থানার ভেতরে হকিষ্টিক দিয়ে পিটিয়ে নওগাঁ জজ আদালতের আইনজীবি সহকারি দিপেন কুমার সরকার (৩৫) কে নির্যাতন চালিয়ে আহত করা এবং এই মারপিটের ঘটনা জানাজানি করলে আহত  দিপেনকে সাইকেল চুরি সহ বিভিন্ন  মামলায় জড়ানো ও ক্রসফায়ার করার হুমকি দানের অভিযোগ উঠেছে মান্দা থানার এস,আই শফিকুর রহমানের  বিরুদ্ধে। মান্দা থানার এস,আই শফিকুর রহমানের মারপিট, নির্যাতন  ও হুমকির কারনে দিপেন ৩দিন মারপিটের বিষয়টি গোপন রাখলেও শুক্রবার গোসল করার সময় দুই বাহু, হাত ও পিটে  কালসিটে পরিবারের লোকজন দেখে ফেলায় এই ঘটনা প্রকাশ করে। ওইদিন রাতেই তাকে ভর্তি করা হয় মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। দিপেন মান্দা উপজেলার সাহাপুকুরিয়া  গ্রামের শ্রী দ্বিনেশ চন্দ্র সরকারের ছেলে। এই ঘটনার প্রতিকার চেয়ে  নির্যাতিত দিপেনের চাচা নওগাঁ জজ আদালতের আইনজীবি এ্যাড: বিশ্বজিৎ সরকার শনিবার রাতে মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে আবেদন করেছেন।
আইনজীবি এ্যাড: বিশ্বজিৎ সরকার জানান, মান্দা থানার সাইকেল চুরি সংক্রান্ত একটি মামলায় (জি,আর নং ৮৭/১৪ ধারা-৩৭৯/৪১৪ দ:বি:) আসামী গোলাম রব্বানীকে এস,আই শফিকুর রহমান গত ১১ মার্চ ১ দিনের রিমান্ডে থানায় নিয়ে আসে। আসামীর বাবা থানা চিনতে না পারায় দিপেনকে নিয়ে থানায় গেলে  রাত ৮টার দিকে রিমান্ডে নেয়া ওই আসামীকে মারপিট করা হবেনা মর্মে দিপেনের কাছে ২০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করে এস আই শফিকুর রহমান । দিপেন এতো টাকা দিতে  অস্বীকার করে এবং এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে  এস,আই শফিকুর রহমান হকিষ্টিক দিয়ে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এই মারপিটের ঘটনা জানাজানি করলে আহত  দিপেনকে সাইকেল চুরি সহ বিভিন্ন  মামলায় জড়ানো ও ক্রসফায়ার করার হুমকি দেন এরপর তার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা ও সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয় ওই এস,আই।প্রাণভয়ে দিপেন ঘটনাটি চেপে গেলেও  তার জখম পরিবারের লোকজন দেখে ফেলায় ও সে ক্রমান্বয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ায় পরিবারের লোকজনের কাছে এই পুলিশী  নির্যাতনের ঘটনাটি প্রকাশ করে।
অভিযুক্ত এস,আই শফিকুর রহমান মোবাইল ফোনে দিপেনকে শারিরিক নির্যাতন ও ঘুষ দাবির কথা অস্বীকার করে বলেন, দিপেন আমার নামে বেশি টাকা নিয়ে ওই রাতে ১ হাজার টাকা দেয়ার চেষ্টা করলে আমি তাকে আটক করি এবং আইনজীবি সহকারির পরিচয় দেয়ায় পরে তাকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।
নওগাঁ জজকোট এর  ঁআইনজীবি সহকারি নির্যাতিত দিপেন কুমার সরকার জানান, আসামীকে রিমান্ডে মারপিট করবেনা বলে দাবিকৃত ২০ হাজার টাকা দিতে না চাইলে হকিষ্টিক দিয়ে পিটিয়ে আমাকে জখম করে ও ক্রসফায়ার করার হুমকি দেন এস,আই শফিকুর রহমান।
মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের উপ-সহকারি মেডিকেল অফিসার আশরাফুল ইসলাম জানান, তার জখম দেখে মনে হয় তাকে লাঠি দিয়ে পেটানো হয়েছে।
মান্দা সদর ইউপি চেয়ারম্যান এজাজ আহমেদ হিন্দুল বলেন, এই ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।
মান্দা থানার ওসি আব্দুল্লাহ-হেল বাকী বলেন, আমি এই ঘটনার কথা গতরাতে জেনেছি এবং আইনজীবি সহকারি দিপেনের  জখমও দেখেছি। ভোট নিয়ে ব্যস্ততার কারনে এ বিষয়ে খোজ খবর নেয়া যায়নি। ভোটের পর তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
ঘটনার বনর্না দিয়ে  নওগাঁ জজকোটের আইনজীবি এ্যাডভোকেট বিশ্বজিৎ সরকার জানান, থানায় এ নির্যাতনের প্রতিকার না পেলে এ ব্যাপারে প্রচলিত আইনের আশ্রয় নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ