• মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৪৪ অপরাহ্ন |

বড়পুকুরিয়া কলেজের শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছেন

Parbatipur (Dinajpur) Photo -18-3-14
রুকুনুজ্জামান বাবুল, পার্বতীপুর (দিনাজপুর): পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির কারণে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় অবস্থিত বড়পুকুরিয়া স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছেন প্রতিদিন। খনি কর্তৃপক্ষ ক্ষতিপূরণের অর্থ দিলেও অদৃশ্য কারণে আজও স্থানান্তর করা হয়নি কলেজটি।
এব্যাপারে বড়পুকুরিয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মাহাবুবুর রহমান বলেন, আশা করছি আগামী এপ্রিল মাসে বড়পুকুরিয়া স্কুল এন্ড কলেজের কাজ শুরু হবে। পাতি গ্রামের অভিভাবকেরা বলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির কারণে এই এলাকাটি ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষনা করে ইতিমধ্যেই খনি কর্তৃপক্ষ কলেজটিসহ অত্র এলাকার জায়গা জমি হুকুম দখল করে নিয়েছেন। এ কারণে খনি কর্তৃপক্ষ ক্ষতিপূরণ বাবদ জমির মূল্য ৭০ লাখ ৭৩ হাজার ৫৫০ টাকা ও অবকাঠামো বাবদ ১কোটি ৩৮ লাখ ১৬হাজার ৬৪০ টাকা কলেজ কর্তৃপক্ষকে পরিশোধ করেছে। কলেজ কর্তৃপক্ষ স্থানীয়দের চাপে গত ২০১৩ সালে বৈদ্যনাথপুর মৌজায় ৪৯ লাখ ৪২ হাজার ১৬০ টাকা দিয়ে ২.২৬ একর জমি খরিদ করেছে।
বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির আন্দোলনকারী নেতা ইব্রাহিম খলিল বলেন, আমি নিজ উদ্যোগে একটি রাস্তাও তৈরি করে দিয়েছি যাতে করে কলেজটিতে শিক্ষার্থীরা সহজে যাতায়াত করতে পারে। অথচ কলেজ কর্র্র্তৃপক্ষ অদৃশ্য কারণে আজও নতুন জায়গায় কলেজটি স্থাপন না করে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় কলেজের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এ কারণে কলেজের অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীদের অভিভাবকেরা কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গত রোববার বিকেলে স্কুল এন্ড কলেজ মাঠেই প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ