• বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন |

প্রেমের আগুন জীবন থেকে পুরোপুরি নেভে না

sayedসিসি নিউজ: নরেন্দ্রনাথ মিত্রের গল্প ‘রস’। এ গল্পের নায়ক মোতালেফ সৌন্দর্যের মোহে পড়ে তার বয়স্ক স্ত্রী, দীর্ঘ বছরের দাম্পত্য জীবনের সঙ্গী মাজু খাতুনকে হঠাৎ তালাক দিয়ে দেন। এরপর মোতালেফ বিয়ে করেন ষোড়শী, রুপসী ফুলবানুকে।
ফুলবানুকে বিয়ে করে নতুন সংসার শুরু করেন মোতালেফ। উপভোগ করতে থাকেন ওই জ্বলন্ত রুপসীর সৌন্দর্য। কিন্তু ভোগ, উপভোগ আর নতুন সংসারের মধ্যেও মোতালেফ প্রেমময়ী, গুণবতী, সৌভাগ্যের প্রতীক মাজু খাতুনকে ভুলতে পারেননি।
মাজু খাতুনের জন্য আত্ম অনুশোচনা জন্ম নেয় মোতালেফের মনে। এক পর্যায়ে একদিন স্বপ্নাচ্ছন্নের মতো মোতালেফ গিয়ে হাজির হন মাজু খাতুনের বাড়িতে। মাজু তখন পরের ঘরনি। সংসার পেতে বেশ ভালোই আছেন। তার নতুন স্বামী নাদির শেখ। তিনি সজ্জন, শাদাসিধে, দিলদরিয়া মানুষ। মোতালেফকে তিনি খাতির করে বসতে দিলেন ঘরের দাওয়ায়, তামাক সাজা হুঁকো এগিয়ে দিয়ে সৌজন্যতাও দেখালেন।
তামাক সাজা হুঁকোতে টান দিয়ে নেশাতে নয়, মোতালেফ তখন ডুবে ছিলেন নিজের বেদনা আর অনুশোচনায়। এর মধ্য হুঁকোর তামাক পুড়ে শেষ হয়ে গেছে। কখন যে হুঁকোর তামাক পুড়ে গেছে, বুঝতেও পারেননি তিনি।
প্রেম, ভালোবাসাকে দূরে ঠেলে দিয়ে অনুশোচনায় কাতর মোতালেফের হুঁশ ফিরিয়ে আনেন মাজু খাতুনের স্বামী। বললেন, ‘ওকি মেঞা, হুঁকাই যে কেবল ধইরা রইলেন হাতে, তামাক খাইলেন না, আগুন যে নিভা গেল কইলকার।’
কথাটা শুনে হকচকিয়ে নড়ে বসলেন মোতালেফ। তাড়াতাড়ি মুখের কাছে হুঁকোটা আনতে আনতে বলেছিলেন, ‘না মেঞা ভাই, নেভে নাই।’
এ বাক্যের মধ্য দিয়ে প্রতীকীভাবে মোতালেফ বোঝাতে চেয়েছিলেন, তার প্রেমের কথা। বলতে চেয়েছিলেন, আপাত চোখে মনে হলেও তার প্রেম এখনো বেঁচে আছে। তা নি:শ্বেষ হয়ে যায়নি। জ্বলছে মনের ভেতরে।
আমাদের জীবনও এমনই। মোতালেফের প্রেমের মতো। তার কলকের আগুনের মতো। কিছুই পুরোপুরি নেভে না, জ্বলতে থাকে। মূল অগ্নিকাণ্ড থেমে গেলেও ছোট ছোট আগুনের শিখা এখানে-ওখানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে জ্বলতে থাকে।
তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে জীবনও পাল্টে যায়। একটা সময় ছিল, যখন প্রিয়ার গালের কালো তিলের জন্য জীবন দিয়ে দিতে পারতাম। হ্যাঁ, একসময় সেসব দিনও শেষ হলো। এখন এর চেয়ে অনেক প্রিয় আর দরকারি বিষয় জীবনের চত্বর দখল করে নিয়েছে। উৎসঃ   প্রিয়দেশ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ