• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৩৩ পূর্বাহ্ন |

যৌন হয়রানীর অভিযোগে শিক্ষক বরখাস্ত

Dorsonপার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি: দিনাজপুরের পার্বতীপুরে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে দর্গাপাড়া ফাজিল স্নাতক মাদ্রসার শিক্ষক ওবায়দুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবির মুখে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় মাদ্রসার কমিটির জরুরি সভায় অভিযুক্ত শিক্ষক ওবায়দুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত  করা হয়। উপজেলা পলাশবাড়ী ইউনিয়নের উত্তর দর্গাপাড়া গ্রামের যৌন হয়রানির শিকার ওই ছাত্রী। তার বাবা ভ্যান চালক মিজানুর রহমান ও মা আফসানার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দর্গাপাড়া ফাজিল স্নাতক মাদ্রসার আরবি’র প্রভাষক ওবায়দুর রহমান, সাইদুজ্জামান ও এবতেদায়ী শাখার শিক্ষক জহুরুল ইসলাম মাদ্রাসা ছুটির পর পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির ১৮ জন শিক্ষার্থীকে কোচিং করাতো। কিছুদিন ধরে আরবি’র প্রভাষক পার্শ্ববর্তী চান্দাপাড়া গ্রামের মৃত আবু দাউদের ছেলে ওবায়দুর রহমান ওই ছাত্রীকে গাইড বই কেনার জন্য চাপ দিতে থাকে। কিন্ত অর্থাভাবে তার পরিবার বই কিনে দিতে পারেনি। গত ৫মার্চ বুধবার বিকেল ৪টার দিকে কোচিং শেষে মেয়েটিকে বলে আমি নিজের টাকায় তোমার গাইড বই কিনে এনেছি। বই তুমি নিয়ে যাও পরে টাকা দিও। এ কথা বলে সে শিক্ষক কমন রুমে মেয়েটিকে ডেকে যৌন হয়রানি করে এবং গাইড বইটি দিযে দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনার পর ওই মাদ্রাসায় যাওয়া বন্ধ করে দেয়। মেয়েটিকে মাদ্রসায় যাওয়ার জন্য তার বাবা-মা চাপ দিলে সে শুধু ঝর ঝর করে চোখের পানি ফেলে বোবার মতো চেয়ে থাকে। এক পর্যায়ে বলে সে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করবে তবু ওই মাদ্রাসায় আর পড়তে যাবে না। পরে শিক্ষক ওবায়দুর রহমানের কুকীর্তির কথা সে মা আফসানাকে খুলে বলে। পরে বিষয়টি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ইয়াছিন আলীকে জানানো হয়। অধ্যক্ষ কোন পদপেক্ষ গ্রহণ না করায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসি শিক্ষকের শাস্তির দাবিতে গত দু’দিন ধরে মাদ্রাসা ঘেরাও করে বিক্ষোভ মিছিল অব্যাহত রাখে। এর ফলে মাদ্রাসা বন্ধ হয়ে যায়।
এব্যাপারে মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি তারিকুল ইসলাম ও অধ্যক্ষ ইয়াছিন আলী বলেন, ওই ছাত্রীর মা আফসানার অভিযোগের ভিত্তিত্বে বৃহস্পতিবার মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির জরুরি সভায় অভিযুক্ত শিক্ষক ওবায়দুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এছাড়াও মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি তারিকুল ইসলামকে আহবায়ক করে পাচঁ সদস্যের একটি তদন্ত  কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন, ইউপি সদস্য (মেম্বার) সিরাজুল ইসলাম, অভিভাবক সদস্য মাহবুবর রহমান, শিক্ষক প্রতিনিধি মোখলেছুর রহমান ও এলাকাবাসীর পক্ষে আসাদুর রহমান। কমিটিকে আগামী পাচঁ দিনের মধ্যে তদন্ত  প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ