• শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১১:১৮ অপরাহ্ন |

বিপাকে নতুন ৯ ব্যাংক

Bankঅর্থনীতি ডেস্ক: রাজনৈতিক অনিশ্চিয়তা গ্যাস ও বিদ্যুৎ সঙ্কটসহ অবকাঠামো অসুবিধার কারণে বছরখানে ধরেই বিনিয়োগে চলছে স্থবিরতা। পুরনো ব্যাংকের পাশাপাশি রাজনৈতিক বিবেচনায় অনুমোদন পাওয়া নতুন ৯টি ব্যাংকেরও বিনিয়োগ পরিস্থিতি প্রকট আকার ধারণ করেছে।
বাজার পরিস্থিতি বিশ্লেষণ না করেই উচ্চ সুদে আমানত সংগ্রহ করেছে চতুর্থ প্রজন্মের নতুন ব্যাংক। সেই আমানতই এখন তাদের জন্য বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিনিয়োগ করতে না পেরে বিপাকে পড়েছে ব্যাংকগুলো।
এজন্য রাজনৈতিক অস্থিরতায় ব্যবসায়ীদের ঋণের চাহিদা কমে যাওয়াকে দায়ী করছেন ব্যাংকাররা। এতে একদিকে যেমন তৈরি হয়েছে ঝুঁকি, অন্যদিকে কমেছে ব্যাংকগুলোর মুনাফার সম্ভাবনাও। রাজনীতিনির্ভরতায় জন্ম নেয়া এসব ব্যাংক এখন তাকিয়ে আছে স্থিতিশীল রাজনীতির দিকে। পরিস্থিতির উন্নতি হলে এ অবস্থা সামলে নেয়ার সুযোগ আছে বলেই মত ব্যাংকিং খাত সংশ্লিষ্টরা।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ সর্বশেষ পরিসংখ্যানে দেখা যায়, নতুন অনুমোদন পাওয়া অধিকাংশ ব্যাংকেরই ঋণ বিতরণ আমানতের চেয়ে অনেক কম হয়েছে। এ সময় বেসরকারি ব্যাংকগুলোর ঋণ ও আমানতের গড় অনুপাত (এডিআর) ৭৬ দশমিক ৯৩ হলেও নতুন ৯টি ব্যাংকের গড় অনুপাত মাত্র ৫২ দশমিক ৪৩ শতাংশ।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের আমানত ও ঋণ দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৬৫৫ ও ৪১৮ কোটি টাকা, এসবিএসির ৫২০ ও ৩৪৫ কোটি, মেঘনার ২৯৪ ও ২০৪ কোটি, মিডল্যান্ডের ৩২৮ ও ১৯৪ কোটি, ফার্মার্সের ১৬৬ ও ২৮ কোটি, তবে এ সময়ে ইউনিয়ন ব্যাংকের(ইসলমী)আমানত ও ঋণ দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ১৩১২ ও ৯১৭ কোটি টাকা, এনআরবির ২৩১ ও ৬১ কোটি, এনআরবি গ্লোবালের ৩৭২ ও ৩৩৩ কোটি টাকা এবং মধুমতি ব্যাংকের ১৬৪ ও ২১ কোটি টাকা।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে, জানুয়ারি শেষে বেসরকারি খাতের ব্যাংকগুলোর আমানতের গড় সুদহার ৮.৮৮ শতাংশ হলেও ঋণের গড় সুদহার দাঁড়িয়েছে ১৪.০৫ শতাংশ। নতুন ব্যাংকগুলো প্রায় ১১ থেকে ১২ শতাংশ সুদে আমানত নেয়।
এ প্রসঙ্গে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের (এসবিএসি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রফিকুল ইসলাম বলেন, নতুন ব্যাংক হয়েও সরকারি ও বেসরকারি আমানতে আমরা ভালো সাড়া পেয়েছি। তবে পরিস্থিতির কারণে আশানুরূপ বিনিয়োগ করা যায়নি। বিনিয়োগ না হলেও আমানতের বিপরীতে মুনাফা তো দিতে হচ্ছে। তবে রজনৈতিক পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বিনিয়োগ বাড়বে বলে তিনি জানান।
রাজনৈতিক অস্থিরতার মধ্যে ২০১৩ সালের প্রথম প্রান্তিকের পর ধাপে ধাপে নতুন অনুমোদন পাওয়া ৯টি ব্যাংক যাত্রা শুরু করে। এর মধ্যে রয়েছে দেশীয় উদ্যোক্তাদের প্রতিষ্ঠিত ছয়টি ও প্রবাসীদের অর্থায়নে তিনটি ব্যাংক। কার্যক্রমে আসা নতুন ৯টি ব্যাংক উল্লেখযোগ্য মুনাফাও দেখাতে পারেনি। পুরনো ব্যাংকগুলো (মান ও ধরনভেদে) যেখানে হাজার কোটি টাকা মুনাফা করে সেখানে এসব ব্যাংকের অবস্থান অনেক নিচে। ২০১৩ বিদায়ী বছরে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক পরিচালন মুনাফা করেছে ১৪ কোটি টাকা, ইউনিয়ন ইসলামী ২৫ কোটি টাকা, এনআরবি কমার্শিয়াল ১০ কোটি টাকা, এনআরবি দুই কোটি টাকা, মেঘনা সাড়ে ৬ কোটি টাকা, ফারমার্স চার কোটি টাকা, মিডল্যান্ড চার কোটি টাকা, মধুমতি ১০ কোটি টাকা পরিচালন মুনাফা করেছে। তবে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক এ সময়ে লাভ বা ক্ষতি কিছুই করতে পারেনি।
নতুন ব্যাংকের পরিচালন বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, এমন সময় যাত্রা করেছি, যখন পুরনো ব্যাংকগুলোই বিপাকে। আমরাও শুরুতে বেশি সুদে আমানত সংগ্রহ করেছি। তবে বিনিয়োগ করতে না পারায় বিপাকে আছি। এ কারণে শুরুতেই লোকসান গুনতে হচ্ছে। পরিস্থিতির উন্নতি হলে আমানতের দিকে না ছুটে ঋণগ্রহীতার দিকে ঝুঁকতে হবে। পুরনো ব্যাংকগুলোর সঙ্গে প্রতিযোগিতায় না গিয়ে বিনিয়োগের জন্য নতুন নতুন খাত খুঁজতে হবে।
এদিকে নানা পক্ষের বাধার পরও সরকারদলীয় চাপে গত বছর নতুন ৯টি ব্যাংকের অনুমোদন দিতে বাধ্য হয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক। এগুলো হচ্ছে সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহীউদ্দীন খান আলমগীরের ফারমার্স ব্যাংক, মহাজোট সরকারের তৎকালীন শরিক দল ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের ইউনিয়ন ব্যাংক, আওয়ামীপন্থী ব্যবসায়ী এসএম আমজাদ হোসেনের সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক (এসবিএসি), প্রধানমন্ত্রীর আয়কর আইনজীবী ও কর্মসংস্থান ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান এম মনিরুজ্জামান খন্দকারের মিডল্যান্ড ব্যাংক, আওয়ামী লীগের রংপুর-৫ আসনের সংসদ সদস্য এইচ এন আশিকুর রহমানের মেঘনা ব্যাংক (এ ব্যাংকের অন্য উদ্যোক্তাদের মধ্যে অন্যতম ঢাকা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নসরুল হামিদ বিপু), ঢাকা-১২ আসনের সংসদ সদস্য ফজলে নূর তাপসের মধুমতি ব্যাংক, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা, ইঞ্জিনিয়ার ফরাছত আলীর এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক, যুক্তরাজ্য প্রবাসী ব্যবসায়ী ও সীমার্ক গ্রুপের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইকবাল আহমেদের নন-রেসিডেন্ট ব্যাংক (এনআরবি) এবং যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা নিজাম চৌধুরীর এনআরবি গ্লোবাল।
 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ