• সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩০ পূর্বাহ্ন |

রাতের অন্ধকারেও দেখতে সক্ষম হবে মানুষ!

11প্রযুক্তি ডেস্ক: একটু অন্ধকারে থাকলেই আমরা চোখে কিছুই দেখতে পাই না। মানুষের চোখ অন্ধকারে এক রকম অচলই বলা যেতে পারে। তবে এ সীমাবদ্ধতাও হয়তো আর থাকবে না। কারণ বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত এক নতুন প্রযুক্তির সাথে মানুষ রাতের অন্ধকারেও দেখতে সক্ষম হবে বলে আশা করা হচ্ছে।
বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, আমেরিকার বিজ্ঞানীরা গ্রাফিন দিয়ে এক বিশেষ ধরণের উপাদান বানিয়েছেন, যা কন্টাক্ট লেন্সের সাথে ব্যবহার করা যাবে। এর ব্যবহারকারী এ লেন্সের মাধ্যমে ইনফ্রারেড বা অবলোহিত রশ্মি থেকে শুরু করে দৃশ্যমান ও অতিবেগুনী রশ্মি বা আলোতেও যেকোনো কিছু দেখতে পাবেন লেন্সের ব্যবহারকারী। ইউনিভার্সিটি অব মিশিগানের ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এর সহকারী অধ্যাপক ঝাহোই ঝং জানান, তারা এ লেন্সটির ডিজাইন অত্যন্ত পাতলা করে করতে সক্ষম হয়েছেন। এ গ্রাফিন নির্মিত উদ্ভাবনাটি সাধারণ কন্টাক্ট লেন্স কিংবা সেলফোনের সাথে ব্যবহার করা যাবে।
বর্তমানে শিকারী কিংবা সেনাসদস্যরা অন্ধকারে দেখার জন্য যে প্রযুক্তি ব্যবহার করেন তাতে বিশাল আকৃতির ‘কুলিং’ বা শীতলীকরণ যন্ত্র ব্যবহার করতে হয়, যাতে এর ব্যবহারকারী যন্ত্রের নিজস্ব তাপ বিকিরণে দিক হারিয়ে না ফেলেন। কিন্তু নতুন এ ‘গ্রাফিন মডেল’ একেবারেই সাধারণ, কোনো বড় যন্ত্রের প্রয়োজন নেই। মাত্র কয়েক স্তরের অণু দিয়ে গঠিত এ পাতলা জিনিসটি মানুষকে করে তুলবে অন্ধকারে দেখতে সক্ষম।
আলোর বর্ণালী বা spectrum এর অবলোহিত বা ইনফ্রারেড রশ্মি ধারণ (capture) করার মাধ্যমে অন্ধকারে দেখার জন্য নির্মিত প্রযুক্তি সবচেয়ে ভালো কাজ করতে পারে। গবেষক ঝং এর মতে তাঁর উদ্ভাবিত এ প্রযুক্তি শুধু কন্টাক্ট লেন্সের মাঝেই সীমাবদ্ধ থাকবে না, ব্যবহৃত হতে পারে আরো অনেক ক্ষেত্রেই। যেমন চিকিৎসাবিজ্ঞানে। চিকিৎসকরা এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে একজন রোগীর দেহের রক্তপ্রবাহ পর্যবেক্ষণ করতে পারবেন। এছাড়া শিল্প ও ইতিহাস সংক্রান্ত বিভিন্ন কাজেও ব্যবহার করা যেতে পারে এ প্রযুক্তি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ