• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন |

হৃদরোগের ঝুঁকি কমায় বিয়ে

Marrageলাইফস্টাইল ডেস্ক: বিয়ে করলে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে যায়। সম্প্রতি ৩৫ লাখ বিবাহিত লোকের ওপর গবেষণা চালিয়ে এ তথ্য আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা।
গবেষণায় দেখা যায়, বিবাহিত ব্যক্তিদের (নারী বা পুরুষ যেই হউক না কেন)হ্রদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি শতকরা ৫ ভাগ কম হয়। বিশেষ করে পেরিফেরাল ধমনি রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি শতকরা ১৯ ভাগ কমে যায়। এ রোগে আক্রান্তদের পায়ে রক্ত সরবরাহ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তাদের সেরেব্রোয়াসকুলার রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে যায় ৯ ভাগ। এ রোগে আক্রান্ত হলে মস্তিষ্কে রক্ত সরবরাহ বিঘ্নিত হয়। তবে তরুণ বিবাহিতদেরই লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে। যেসব দম্পতির বয়স ৫০ বছরের নিচে তাদের হৃদরোগে আহ্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি শতকরা ১২ ভাগ কম হয়ে থাকে।
নিউইয়র্কের ল্যাঙ্গন মেডিকেল সেন্টারের কার্ডোলজিস্ট এবং গবেষণা দলের প্রধান জেফরি বারজার এ সম্পর্কে বলেন,‘বিয়ের পর স্বামী বা স্ত্রী তাদের সঙ্গীদের প্রতি অনেক বেশি মনোযোগী হয়ে থাকেন। এ কারণে তাদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভবনা হৃাস পায়।’
তিনি আরো বলেন,‘ তাই আমার কোনো রোগীর বিবাহ বিচ্ছেদ হলে বা সঙ্গী মারা গেলে আমি তার স্বাস্থ্য পরীক্ষ করি। তার হৃদযন্ত্রে কোনো সমস্যা দেখা দিল কিনা বা হতাশায় আক্রান্ত হলেন কিনা তা খুটিয়ে দেখি।’
এ গবেষণায় আরো দেখা যায়, বিধবা বা বিপত্নীকদের মধ্যে এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি ৩ ভাগ বেশি। ধূমপায়ীদের মধ্যে এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি এবং বিধবাদের সবচেয়ে কম। বিবাহ বিচ্ছেদের পর মোটা হওয়ার প্রবণতাও বেড়ে যায়। এছাড়া বিধবাদের মধ্যে উচ্চ রক্ত চাপ, ডায়াবেটিস এবং অপর্যাপ্ত ব্যায়াম করারও সমস্যা দেখা যায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ