• সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন |

জলঢাকায় ভিজিডি’র গম কম দেয়ার অভিযোগ

Daripallaজলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি: নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ভিজিডি’র গম কম দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, গত ফেব্রুয়ারী/১৪ মাসে উপজেলার ৮ জন  ইউ.পি চেয়ারম্যান বিধবা-স্বামী পরিত্যক্তা উপকারভোগীদের সরকারী বরাদ্ধ কৃত গম কম দেয়ার অভিযোগ করেন। উপজেলার কৈমারী, শৌলমারী, খুটামারা, মীরগঞ্জ, শিমুলবাড়ী, ধর্মপাল, গোলমুন্ডা ও গোলনা ইউ.পি চেয়ারম্যান  ভিজিডি’র গম কম দেয়ায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। সরকারী বরাদ্ধ অনুযায়ী প্রতিজন কার্ডধারী ৩০ কেজি করে  চাল/গম পাবে।  কৈমারী ইউ.পি চেয়ারম্যান  কহিনুজ্জামান (লিটন), খুটামারা চেয়ারম্যান ছামছুল হক কবিরাজ, মীরগঞ্জ চেয়ারম্যান মোনরেবরুল হক ও গোলনা চেয়ারম্যান কামরুল আলম কবির এবং ধর্মপাল ইউ.পি চেয়ারম্যান  মোশারফ হোসেন জানান, পযার্য় ক্রমে ১৫,১৮,২২,২৯,ও ৩৫ কার্ডধারীর গম সরবরাহ কম দেয়ায় চরম বিপাকে পরতে হয়।  গত রবিবার গোলনা ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সচিব ও সদস্য সহ জলঢাকা খাদ্য গুদাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে ২৯ জন  কার্ডধারীর বিপরীতে ৮৭০ কেজি গম দাবী করন। গোলনা ইউপি সচিব এনামুল হক জানান, ৬০০ কে,জি গম ওই দিনই  দিয়েছে এবং বাকী ২৭০ কেজি গম এমাসেই দিবে। অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে, জলঢাকা খাদ্য গুদাম ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আইয়ুব আলী (লেবু) গম কম দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন। ওই কর্মকর্তা বিরুদ্ধ ৫/৬ মাস পূর্বে, দিনাজপুর হতে সরবরাহকৃত ভাল চাউল চড়া দামে অন্যত্রে বিক্রী এবং সম পরিমান নিম্নমানের চাল কম মুল্যে ক্রয় করার অভিযোগে স্থানীয় পএিকায় প্রকাশ হলেও বিষয়টি ধামাচাপায় রয়ে যায়। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক আব্দুল বাতেন জানান, আমি চেয়ারম্যান গণের কাছে গম কম দেয়ার কথা শুনেছি, তবে লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শফিকুল ইসলাম জানান, গম কম দেয়ার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। অভিযোগ পেলে আগামীতে চাল/গম কম দিতে না পারে সেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ