• বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:০০ পূর্বাহ্ন |

জন্মগত ত্রুটি কোন অভিশাপ নয়

Healthস্বাস্থ্য ডেস্ক : সন্তানের জন্মটা স্বজনের কাছে আনন্দের হলেও ভূমিষ্ট শিশুর জন্মগত ত্রুটি তার স্বজনের আনন্দটাকে কিছুটা হলেও ম্লান করে দেয়। ভূমিষ্ট শিশুর জীবনে নেমে আসে স্বাচ্ছ্যন্দে বেঁচে থাকার অসম প্রতিবন্ধকতা। কারণ একজন নারী যখন গর্ভবতী হয়, তখন তার গর্ভে ধীরে
ধীরে একটি ভ্রুণ থেকে জন্ম হয় মানব শিশুর । আর একে ঘিরে সেই গর্ভবতী মায়ের মনে উঁকি দেয় অনাবিল স্বপ্ন। সেই স্বপ্নে বিভোর হয়ে গর্ভবতী মায়ের মনে সৃষ্টি হয় এক অব্যক্ত ভালবাসা। যে ভালবাসা তাকে নারী জীবনের পূর্ণতার স্বপ্ন দেখায়। ধীরে ধীরে বেড়ে উঠা ভ্রুণ যখন পরিপূর্ণ শিশুতে পরিণত হয়, তখন সে স্বপ্ন দেখতে শুরু করে, কখন আসবে সেই মহেন্দ্রক্ষণ! দশ মাস দশ দিন নিজ গর্ভে বেড়ে উঠা সন্তানের মুখটি কখন দেখতে পাবে! কিন্তু যখন কোন ভূমিষ্ট শিশু জন্মগত ত্রুটি নিয়ে পৃথিবীতে জন্ম গ্রহণ করে, তখন সকল আনন্দের মাঝেও যেন নেমে আসে এক অনাকাঙ্খিত অন্ধকার। যে অন্ধকারের কালো আধারে সকল আনন্দ ম্লান হয়ে পড়ে। শুধৃু তাই নয়, আমাদের সমাজের প্রচলিত কুসংস্কার ভূমিষ্ট শিশুর এই জন্মগত ত্রুটির জন্য প্রসূতি মাকেই অপবাদে জর্জরিত করে। কারণ কুসংস্কার বিশ্বাসীদের ধারণা, হয়তো এটি প্রসূতি মায়েরই কোন অপকর্মের ফল। কিন্তু সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকদের মতে, এটি মানবদেহের অন্যান্য সমস্যার মতোই একটা সমস্যা। যা সুষ্ঠু চিকিৎসার মাধ্যমে নিরাময় যোগ্য। এটা কোন ভাবেই কারো অপকর্মের ফল নয় এবং জন্মেরপর যত দ্রুত এর চিকিৎসা শুরু করা যায়, শিশুর জন্য এটি ততই মঙ্গল।
অপ্রিয় হলেও সত্য, চিকিৎসার জন্য পর্যাপ্ত অর্থ এবং চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্যের অপ্রতুলতার ফলে অনেক অভিভাবকই এসকল সমস্যায় সুচিকিৎসার উদ্যোগ নিতে পারেন না। ফলে সামাজিক
কুসংস্কারের জাঁতাকলে পিষ্ট হয় ভূমিষ্ট শিশুর আগামীর সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ। শুধু তাই নয়, জন্মগত সমস্যা হিসেবে ঠোঁট কাটা, তালু কাটা এবং মুগুর পা যতটা না স্ব্স্থ্যাগত সমস্যা তৈরি করে, তার চেয়ে বেশী কষ্টদায়ক আমাদের সমাজ সৃষ্ট সামাজিক প্রতিবন্ধকতা। এ সকল শিশুকে পড়াশোনা, সামাজিক আচার অনুষ্ঠানে যোগদান করা বা বিয়ে নিয়ে নানাবিধ প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে হয়, শুধু তাই নয়, শিশুর এ শারীরিক এ প্রতিবন্ধকতার জন্য শিশুর অভিভাবককেও অনেকক্ষেত্রে হেয় প্রতিপন্ন হতে হয়।
আশার কথা, স্বনামধন্য দাতব্য প্রতিষ্ঠান লায়ন মোখলেছুর রহমান ফাউন্ডেশন শিশুদের জন্মগত ঠোঁট কাটা, তালু কাটা এবং মুগুর পা সমস্যা নিয়ে উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার সহযোগিতায় ২০০১ সাল হতে চট্টগ্রাম বিভাগের ৯টি জেলায় সচেতনতা বৃদ্ধি ও সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আধুনিক অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশা, অমিত সম্ভাবনা নিয়ে জন্ম নেওয়া কোন শিশুর ভবিষ্যত যেন শুধু মাত্র জন্মগত ত্রুটি ঠোঁট,তালুকাটা বা মুগুর পা’র কারণে অন্ধকারে ঢেকে না যায়।
একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে, আপনিও এই সামাজিক আন্দোলনের সাথে একাত্ব হয়ে পৌঁছে দিবেন তাদের লক্ষ্যের কথা, চিকিৎসা পদ্ধতির কথা। কেউ জানে না, আগামীকাল কার ঘরে এমন ত্রুটি নিয়ে একটি শিশু জন্মাবে। তাই সকলের সচেতনতা ও চিকিৎসার পদ্ধতির সঠিক তথ্য প্রদান একটি শিশুর জীবনে জন্মগত ত্রুটির সুচিকিৎসার দ্বার উন্মোচন করে দিতে পারে। এছাড়া, এ সকল সমস্যা দ্রুত চিকিৎসা না করালে, বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে জন্মগত ত্রুটি অস্বাভাবিক অবস্থায় রূপ নেয়, ফলে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনাটা বেশ কষ্ট সাধ্য হয়ে পড়ে। আমার বিশ্বাস, এ ধরনের শুভ উদ্যোগ মানুষের ঘুমন্ত মানবিকতাকে জাগাতে এবং সহযোগিতার সীমাবদ্ধতাকে অতিক্রম করতে অন্যকে অনুপ্রাণিত করবে।
তাই সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান, আসুন ‘মানুষ মানুষের জন্য’ এ অমর বাণীকে হৃদয়ে ধারণ করে জন্মগত ত্রুটি নিয়ে জন্ম নেয়া শিশুদের বিনামূল্যে সুচিকিৎসা পেতে প্রতি আমাদের সহযোগিতার হাতটুকু বাড়িয়ে দেই। যা অবশ্যই আমাদের দেশের অগণিত শিশুর মুখে হাসি এবং সাবলীল ভাবে হেঁটে চলার সুযোগ করে দেয়ার পাশাপাশি দেশের সার্বিক শিশু স্বাস্থ্যের উন্নয়নকেও ত্বরান্বিত করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ