• সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২৪ পূর্বাহ্ন |

চিরিরবন্দরের কাঁকড়া ব্রিজ হুমকির মুখে

Baluদিনাজপুর প্রতিনিধি: চিরিরবন্দরের কাঁকড়া নদী থেকে বিধি বর্হিভূতভাবে ও অবাধে বালু উত্তোলণ করায় ব্রিজটি বর্তমানে হুমকির মুখে পড়েছে। ব্রিজের দু’পাশে ফাটল দেখা দিয়েছে। এতে যেকোন সময় বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা প্রকাশ করছেন এলাকাবাসী।
দিনাজপুর-পার্বতীপুর সড়কের চিরিরবন্দর উপজেলার কারেন্টহাট নামক স্থানে কাঁকড়া নদীতে এ বেইলী ব্রিজটি অবস্থিত। এ ব্রিজ দিয়ে প্রতিদিন কয়েকশ’ যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। এ বেইলী ব্রিজের নিচ থেকে অবৈধভাবে অবাধে বালু উত্তোলন করায় ব্রিজের পিলারের নিচে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এ নদী থেকে প্রতিদিন ২০০-৩০০ ট্রাক্টর বালু উত্তোলন করে বিভিন্ন বাসা-বাড়ি, ইমারত, সড়ক নির্মাণ কাজে সরবরাহ করছে। ফলে বর্তমানে ব্রিজটি চরম হুমকির মধ্যে পড়েছে। এই সেতুটি তিগ্রস্ত হলে দিনাজপুর শহর থেকে চিরিরবন্দর ও পার্বতীপুর উপজেলার যোগাযোগ পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে।
সরকারী বিধি মোতাবেক ব্রিজের কিনারার ৭০ মিটার দূর থেকে বালু উত্তোলন করা যাবে। কিন্তু বালু ইজারাদার আতিকুর রহমান হাজি সরকারী নিয়ম-নীতির কোন তোয়াক্কা না করে অবৈধভাবে অবাধে ব্রিজের নিচের পিলার ও নদীর তীর থেকে বালু উত্তোলন করে চলেছেন। ফলে সেতুর পিলারে ফাটর দেখা দিয়েছে।
কারেন্টহাট মহাবিদ্যালয়ের অধ্য জালালউদ্দীন মজুমদার, কারেন্টহাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক এমদাদুল হক জানানসহ কয়েকজন এলাকাবাসি জানান, ব্রিজের পিলারের নিকট থেকে বালু উত্তোলনকারীদের বারবার নিষেধ করলেও তারা কোন তোয়াক্কাই করছেন না। ইজারাদারের অজ্ঞাত ঈশারার কারণে বিধি বর্হিভূতভাবে পিলারের পাশে ও নদীর কিনারা থেকে বালু উত্তোলন করে চলেছেন।
এ ব্যাপারে স্থানীয় আউলিয়াপুকুর ইউনিয়ন পরিষদের হাছিবুর হাসান হাছিম বাবু জানান, তিনি বালু মহালের ইজারাদার আতিকুর রহমানকে কাঁকড়া সেতুর নীচ থেকে বালু উত্তোলন না করার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। কিন্ত ইজারাদার কাউকে তোয়াক্কাই করছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান, অভিযোগ যদি সত্যি হয়ে থাকে আমি ব্যবস্থা  নেব। যারা কাঁকড়া নদী থেকে বালু উত্তোলনের সরকারি নীতিমালা মানছেন না তাদের বিরুদ্ধে অচিরেই ব্যবস্থা  নেওয়া হবে। প্রয়োজনে তাদের লিজ বাতিল করা হবে বলেও জানান নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।
এদিকে নদীর তীর থেকে বালু উত্তোলণ করায় নদীটি প্রতি বছর ভাঙ্গনের কবলে পড়ছে। সেই সাথে হুমকির মুখে পড়েছে কারেন্টহাট মহাবিদ্যালয় মাঠের পূর্ব পাশের শহীদ মিনারটি। ব্রিজের দু’পাশে ফাটল দেখা দিয়েছে। যে কোন ব্রিজটি ভেঙ্গে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। নদী ভাঙ্গনের কারণে ইতিমধ্যেই কয়েক’শ ঘরবাড়ি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। এলাকাবাসী অবিলম্বে ব্রিজের নিচ থেকে ও নদীর তীর হতে বালু উত্তোলণ বন্ধ করার দাবী জানিয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ