• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৬:১০ অপরাহ্ন |

মির্জা ফখরুল কারামুক্ত

Fokrulগাজীপুর প্রতিনিধিঃ গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জামিনে মুক্তি পেয়েছেন।  কাশিমপুরের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির জানান, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে গাড়িতে পেট্রোলবোমা ছুড়ে মানুষ হত্যা, নাশকতা ও ভাংচুরসহ বিভিন্ন অভিযোগে রাজধানীর রমনা, শাহাবাগ ও ধানমন্ডি থানায় তিনটি মামলা রয়েছে। ইতোমধ্যে শাহাবাগ ও ধানমন্ডি থানার দু’টি মামলায় তিনি জামিন লাভ করেন। গত ৩০ নবেম্বর মালিবাগে পেট্রোল বোমা হামলা চালিয়ে গাড়ি চালক হত্যা ও নাশকতার অভিযোগে রমনা থানায় দায়েরকৃত মামলায় সর্বশেষ সোমবার আদালতের বিচারপতি বোরহান উদ্দিন ও কেএম কামরুল কাদেরের বেঞ্চ তাকে ৬ মাসের অন্তর্বর্তী জামিন প্রদান করেন।

জামিনের কাগজপত্র মঙ্গলবার ৫টা ৫ মিনিটে কাশিমপুরের কারাগারে এসে পৌছে। পরে জামিননামার কাগজ-পত্র যাচাই-বাছাইয়ের শেষে মঙ্গলবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় তাকে কারাগার থেকে মুক্তি দেয়া হয়। এর আগে তাকে গ্রেপ্তারের পর এ বছরের ১৬ মার্চ ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে কাশিমপুরস্থ ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এ স্থানান্তরিত করা হয়। ইতোপূর্বে বিভিন্ন মামলায় গ্রেপ্তারের পর দুই বার এ কারাগার  থেকেই জামিনে মুক্তি পান বিএনপির ওই নেতা।  মির্জা ফখরুল ইসলামের মুক্তির পর কারাগারের প্রধান ফটকে তার স্ত্রী রাহাত আরা বেগম, গাজীপুর জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক কাজী সাইয়েদুল আলম বাবুল, বিএনপি’র মিডিয়া পারসন মো. শায়রুল কবির খান, বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হুমায়ুন কবির খান, গাজীপুর সদর উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মো. সুরুজ আহমেদ, জেলা ছাত্রদলের জেষ্ঠ্য সহ-সভপতি মনিরুল ইসলাম মনিসহ বিএনপি এবং অঙ্গসংগঠণের স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী  তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। মুক্তি পেয়ে তিনি ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন।

উল্লেখ্য, অবরোধকালে গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর ঢাকার বাংলা মোটর এলাকায় গাড়িতে পেট্রোলবোমা ছুড়ে পুলিশ হত্যা, ৩০ নবেম্বর মালিবাগ ও ৩ জানুয়ারি পরিবাগে বাসে পেট্রোল বোমা  ছুড়ে মানুষ হত্যা ও  নাশকতার ঘটনায় দায়েরকৃত তিনটি মামলায় গত ২০ জানুয়ারি হাইকোর্ট থেকে ৮ সপ্তাহের জামিন পান ফখরুল। এছাড়া মির্জা আব্বাস এবং আব্দুস সালামও ওই তিন মামলায় জামিন পান। কিন্তু রাষ্ট্র পক্ষের  আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত ৯ মার্চ ওই ৩ জনসহ বিএনপি’র ৫ নেতার জামিন বাতিল করে দেন। পরে ১৬ মার্চ বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির  সদস্য মির্জা  আব্বাস ও ঢাকা মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব আব্দুস সালাম সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের আদালতে আত্মসমর্পন করে জামিনের আবেদন করেন। আদালত আবেদন নামঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ