• বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১২:৫৪ অপরাহ্ন |
শিরোনাম :
ইউনূস, হিলারি ও চেরি ব্লেয়ারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার দাবি সংসদে মার্কেট-শপিং মলে মাস্ক বাধ্যতামূলক করে প্রজ্ঞাপন খানসামায় র‌্যাবের অভিযান ইয়াবাসহ দুই মাদককারবারী গ্রেপ্তার ডোমার ও ডিমলায় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ ১০ উদ্যোগ নিয়ে কর্মশালা নীলফামারীতে ৫ সহযোগীসহ কুখ্যাত চোর ফজল গ্রেপ্তার সৈয়দপুরে তথ্যসংগ্রহকারী ও সুপারভাইজারদের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত জয়পুরহাট বিনা খরচে আইনের সেবা পেতে সেমিনার শিক্ষক লাঞ্চনা ও হেনস্তার বিরুদ্ধে সৈয়দপুরে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর প্রতিবাদ সমাবেশ সৈয়দপুরে শহীদ আমিনুল হকের স্মরণসভা অনুষ্ঠিত ফুলবাড়ীতে বিনামূ‌ল্যে বীজ ও সার বিতরণ

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে চার্জের ওপর আয়কর কর্তনের নির্দেশ

Mobilঅর্থ-বাণিজ্য ডেস্ক: মোবাইল ব্যাংকিংয়ে লেনদেনের ক্ষেত্রে চার্জ, কমিশন, ফি, রেভিনিউ শেয়ার ইত্যাদির ওপর ১০ শতাংশে হারে উৎসে আয়কর কর্তন করা হবে।
জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সিদ্ধান্তের পর  মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ-সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, আয়কর অধ্যাদেশ অনুসারে সুনির্দিষ্ট সার্ভিসগুলো ব্যতীত অন্য যে কোনো সেবা প্রদানের জন্য প্রদেয় অর্থের ওপর ১০ শতাংশ হারে উৎসে আয়কর কর্তনের বিধান রয়েছে। এতে মোবাইল ব্যাংকিং সেবার সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন পক্ষকে মোবাইল ব্যাংকিং কার্যক্রম থেকে চার্জ/ কমিশন/ফি/রেভিনিউ শেয়ার ইত্যাদি আয়ের ওপর আয়কর কর্তন করতে হবে।
প্রজ্ঞাপনে আরো বলা হয়, উদ্যোক্তা ব্যাংককে মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরকে চার্জ/ কমিশন/ফিস/রেভিনিউ শেয়ার ইত্যাদি পরিশোধকালে প্রদেয় অর্থের ওপর ১০ শতাংশ হারে উৎসে আয়কর কর্তন করতে হবে। একইভাবে কারিগরি সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠান, মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস ডেলিভারির জন্য সার্ভিস ডেলিভারি এজেন্ট/প্রতিষ্ঠান/এনজিও/ব্যক্তিকে পরিশোধিত চার্জ পরিশোধকালে প্রদেয় অর্থের ওপর ১০ শতাংশ হারে উৎসে আয়কর      এতে বলা হয়, মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরকেও কারিগরি সহায়তার জন্য কারিগরি সহায়তা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ও ডেলিভারি এজেন্টকে অর্থ পরিশোধের সময় ১০ শতাংশ উৎসে আয়কর আদায় করতে হবে। তবে লিখিত চুক্তিপত্রের শর্ত অনুসারে উদ্যোক্তা ব্যাংকের পক্ষে মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর বা কারিগরি সহায়তা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান যদি কোনো অর্থ ব্যয় করে সে অর্থ উদ্যোক্তা ব্যাংককে মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর বা কারিগরি সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠানকে ব্যয়ের অর্থ পরিশোধ করার ক্ষেত্রে কোনোরূপ উৎসে কর আদায় করতে হবে না। এ ক্ষেত্রে কোনোরূপ মুনাফা ব্যতীত একই মূল্যে ব্যয়ের অর্থ পরিশোধ করতে হবে এবং মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর বা কারিগরি সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠানকে অবশ্যই অন্য কোনো তৃতীয় পক্ষকে উক্ত অর্থ পরিশোধ করতে হবে।
এতে আরো বলা হয়েছে, কোনো কোনো ব্যাংক নিজস্ব প্রযুক্তি ব্যবহার করে মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরের সঙ্গে কমিশন বা রেভিনিউ শেয়ারিংয়ের দ্বিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় নেটওয়ার্ক ও সার্ভিস ডেলিভারি এজেন্ট ব্যবহার করে মোবাইল ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা করছে। অন্যদিকে কোনো কোনো ব্যাংক প্রযুক্তি সহায়তা, টেলিফোন নেটওয়ার্কিংয়ের সার্ভিস ডেলিভারি এজেন্টের সঙ্গে আলাদাভাবে চুক্তিবদ্ধ হয়ে সেবা প্রদান করছে। আবার কোনো কোনো ক্ষেত্রে মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটর উদ্যোক্তা ব্যাংকের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় চুক্তির আওতায় মোবাইল নেটওয়ার্কিং সেবা ও সার্ভিস ডেলিভারি এজেন্ট উভয় কার্যক্রম সম্পাদন করে থাকে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদনক্রমে বর্তমানে দেশে বিকাশ, এমক্যাশ, ইজিক্যাশ, শিওর ক্যাশ, মোবাইল ব্যাংকিং, মোবাইল মানি, ওয়ান ক্যাশ (ওকে) ইত্যাদি সেবা চালু রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ