• বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৩:৪১ পূর্বাহ্ন |

চিরিরবন্দর মুঠোফোনের চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত তিন লাখ মানুষ

Mobilমাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর: দিনাজপুর চিরিরবন্দর উপজেলায় মুঠোফোনে স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে। সাধারন মানুষের মধ্যে প্রচারনা না করায় অনেকে এ সেবার কথা জানে না। ফলে সুবিধাবঞ্চিত গ্রামের সাধারণ জনগোষ্ঠী চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, চিরিরবন্দর উপজেলায় প্রায় তিন লাখ মানুষের বসবাস। তাদের চিকিৎসা সেবার একমাত্র ভরসা চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। সেখানে চিকিৎসক-নার্স সংকটসহ নানা কারনে মানুষ চিকিৎসা সেবা থেকে বরাবরই বঞ্চিত হচ্ছে। তারপরও সরকার মানুষের দোরগোড়ায় চিকিৎসা সেবা পৌছে দিতে প্রায় ৪-৫ বছর আগে সারা দেশের ন্যায় চিরিরবন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মুঠোফোন কার্যক্রম চালু করে। কিন্তু এ সেবা সম্পর্কে মানুষের ধারনা না থাকায় তা কোন কাজে আসছে না। কোন রকম প্রচার-প্রচারনা না থাকায় উপজেলা সদর থেকে প্রত্যন্ত গ্রামঞ্চলের লোক জনের কাছে এ সেবা কার্যক্রমটি এখনো অজানা রয়েছে।
জরুরি স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে একটি মুঠোফোন দেয়া হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী একজন মেডিকেল অফিসারের রাত দিন ওই মুঠোফোনের মাধ্যমে জরুরি চিকিৎসা সেবা ও পরামর্শ দেয়ার কথা। ফোন নম্বরটি গুরুত্বপূর্ন স্থানে প্রদর্শনের উদ্যোগ না নেয়ার কারণে মুঠোফোনে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম আজও কার্যকর হয়নি। বর্তমানে ওই ফোনটি স্বাস্থ্য সেবা নয় এটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অভ্যন্তরীন যোগাাযোগের কাজে ব্যবহার করার অভিযোগ উঠেছে। আবার কোনো কোনো সময় বন্ধ থাকে।
খোঁজ নিয়ে জানা যায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স যে মুঠোফোনটি দেয়া হয়েছে। সেটির নম্বর-০১৭৩০৩২৪৬৩৮, নিয়মনুযায়ী মুঠোফোনটি ২৪ ঘন্টা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে থাকার কথা। আর সেখান থেকেই চিকিৎসকের মাধ্যমে পরামর্শ দেয়ার কথা কিন্তু জনস্বার্থে এর কোন কাজ হচ্ছে না। কারন জনগনের এ ধরনের কোন ধারনা নেই।
এ ব্যাপারে চিরিরবন্দর উপজেলার একাধিক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সঙ্গে মোবাইলে কথা হলে তারা জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মুঠোফোনের চিকিৎসা সেবা দেয়া হয় এ সম্পর্কে কিছুই জানেন না। একই বিষয় নিয়ে কর্মরত ডা. মোহসিন আলী (এসএসসিএমও) সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, প্রতিমাসে ১০-১৫ জনকে মুঠোফোনে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। মুঠোফোনে বিষয়টি নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. মোঃ আব্দুল মজিদ সরকারের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, আমি মুঠোফোন চিকিৎসা সেবা সম্পর্কে কিছুই জানি না। ডাক্তারদের উদাসীনতার কারনে এ সেবা সম্পর্কে জনগনের তেমন আগ্রহ নেই। তাই এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য বিভাগের উধ্বর্তন কর্মকর্তার দৃষ্টি কামনা করছেন চিরিরবন্দরবাসী।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ