• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৫:৪২ অপরাহ্ন |

‘বঙ্গবন্ধু অবৈধ প্রধানমন্ত্রী’

Tareqসিসি নিউজ: এবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রথম প্রধানমন্ত্রিত্বের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন বিএনপি’র সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান।
মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় লন্ডনের ওয়েস্ট মিনিস্টার হলে যুক্তরাজ্য বিএনপি আয়োজিত এক সুশীল সমাবেশের প্রধান অতিথি তারেক বঙ্গবন্ধুর সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রিত্ব গ্রহণের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বলেন, মুক্তিযুদ্ধকালীন অস্থায়ী সরকারের পক্ষ থেকে দেশের সংবিধান তৈরির পর সরকার গঠনের কথা বলা হলেও দেশে ফিরে এসে সংবিধান তৈরির আগেই জোর করে শেখ মুজিব প্রধানমন্ত্রিত্ব দখল করেন, যেভাবে বর্তমানে তার কন্যা (শেখ হাসিনা) দখল করেছেন এই পদ।
বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি দাবি করা নিয়ে সৃষ্ট সমালোচনার ঝড় উপেক্ষা করে তারেক বলেন, শেখ মুজিব ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম অবৈধ প্রধানমন্ত্রী, আর তাঁর কন্যা হলেন আজকের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী।
তিনি প্রশ্ন রাখেন, বঙ্গবন্ধু যদি প্রথম রাষ্ট্রপতি হন, তাহলে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি কেন আবার প্রধানমন্ত্রী হলেন?
পাকিস্তানি পাসপোর্ট নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের সমালোচনা করে তারেক বলেন, পাকিস্তানি পাসপোর্ট ছাড়া কি দেশে ফেরা যেত না?
শেখ মুজিব‍ুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা চাননি বলেও মন্তব্য করেন তারেক।
যুক্তরাজ্য বিএনপি’র সভাপতি শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে দলের কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মহিদুর রহমান, টাওয়ার হ্যামলেটস বারার ডেপুটি মেয়র কাউন্সিলর অহিদ আহমদ, ড. হাসনাত এম হোসাইন, ড. এম এ মালেক, ব্যবসায়ী মুকিম আহমেদ ও কে এম আবু তাহের চৌধুরী প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
জিয়াউর রহমানকে প্রথম রাষ্ট্রপতি দাবি করায় আওয়ামী লীগের বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সমালোচনা করে তারেক বলেন, শেখ হাসিনা থেকে শুরু করে আওয়ামী লীগের নেতারা পার্লামেন্টসহ বিভিন্ন মাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে যেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন তা খুবই ন্যাক্কারজনক।
তারেকের মতে, জিয়াই বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি, এটিই বাস্তবতা। কিন্তু আওয়ামী লীগ কোনো যুক্তি ও তথ্য প্রমাণ ছাড়া এর বিরোধিতা করে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে চাইছে।
মুক্তিযুদ্ধের সময় জিয়াউর রহমান চারশ’ টাকার বেতনভোগী কর্মচারী ছিলেন বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার করা মন্তব্যের কড়া সমালোচনা করে তারেক বলেন, শেখ হাসিনা এমন মন্তব্য করে সকল মুক্তিযোদ্ধাদের অপমান করেছেন।
এই মন্তব্য প্রত্যাহার করে মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমা প্রার্থনার পরামর্শ দেন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ