• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন |

আইনি জটিলতায় আটকে আছে ময়ুরী বেওয়ার বয়স্ক ভাতা

DSC01876 copyদিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার হরানন্দপুর গ্রামের ময়ুরী বেওয়ার বয়স ৭৫ বছর পেরিয়ে গেলেও আইনি জটিলতায় আটকে আছে তার বয়স্ক ভাতার কার্ড। পাচ্ছেন না তিনি কোন সরকারী সহযোগিতা। জাতীয় পরিচয় পত্রে তার বয়স কম হওয়ায় ময়ুরী বেওয়া বঞ্চিত হচ্ছেন। আর সে কারনেই চেয়ারম্যানও মেম্বাররা কোন সরকারী সুযোগ সুবিধা দেন না।
বৃহত্তর রংপুর জেলার বর্তমান কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী থানার দই খাওয়ার চরে জন্ম নেয়া মুয়ুরী (৭৫)। মাতাঃ আছিয়া ও পিতা তনু মিয়ার-৮ মেয়ে-১ ছেলের মধ্যে সবার বড় ময়ূরী বেওয়া। ছোট বয়সে বাবা-মা মারা যাওয়ার পর থেকেই অন্যের বাড়ীতেই ঝি চাকরের কাজ করার সময় ১০-১২ বছর বয়সে একই চরের তমিজ উদ্দিনের ছেলে আধা প্রতিবন্ধি মোকছেদ আলীর (মেঘু) সংগে। তার এক  ছেলে আরান ও এক মেয়ে মর্জিনা তারা দু’জনই বিবাহিত। ১৯৭৪ সালের দুর্ভিরে সময় চর ছেড়ে এসে অনেকের সাথে দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলা পুনট্টি ইউনিয়নের হরানন্দপুর গ্রামের মৃত হাজী তমিজ উদ্দিনের পরিত্যক্ত (পুরানা) ভিটায় আশ্রয় নেন। পরবর্তীতে বিভিন্ন জায়গা ঘুরে অবশেষে একই গ্রামের হরানন্দপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের পুকুর পাড়ে একটি মাথা গোজার একটি ঘর বানিয়ে  সেখানে বসবাস করেন।
ভাগ্যের নিষ্ঠুরতায় ১৯৯৭ সালের জুলাই মাসে আমতলীরহাটে বাস দুর্ঘটনায় তার স্বামী মোকছেদ আলী নিহত হয়। স্বামী হারানোর পর থেকে বাড়ী বাড়ী ঘুরে পাওয়া সাহায্য নিয়ে কোন রকমে বেচেঁ আছেন অসহায় ময়ুরী বেওয়া। এলাকার জনপ্রতিনিধিসহ শিতি সমাজের কাছে দাবী জানিয়ে তিনি বলেন, তার মত বৃদ্ধা যেন সরকারী সহযোগিতা সময়মত পান।
এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আতিয়ার রহমান জানান, আমি তার ব্যাপারে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহন করব আর জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন হলেই বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দেয়া যাবে। জাতীয় পরিচয় পত্রের সংশোধীর ব্যাপারে উপজেলা র্নিবাচন কর্মকর্তা বলেন, আমি তার জন্ম নিবন্ধন কার্ডসহ আবেদন পত্র পেলেই উর্দ্ধতন কর্তৃপরে সহযোগিতায় তার কার্ডটি সংশোধন করে দিব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ