• মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০২:৩০ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :

ইমরানকে মুখপাত্র থেকে অব্যাহতি

Dr. Imranঢাকা: বিতর্কিত হওয়ায় ডা. ইমরান এইচ সরকারকে সাময়িকভাবে গণজাগরণ মঞ্চ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে গণজাগরণ মঞ্চের একাংশ। একই সঙ্গে তারা নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

গণজাগরণ মঞ্চের একাংশের নেতাকর্মীরা বলেন, পরবর্তীতে সারা দেশের গণজাগরণ মঞ্চের সকল নেতাকর্মীদের সঙ্গে পরামর্শ করে নতুন মুখপাত্র নির্ধারণ করা হবে। এই মুহূর্ত থেকে ইমরান এইচ সরকারের কোনো বক্তব্য ও কর্মসূচি গণজাগরণ মঞ্চের বক্তব্য ও কর্মসূচি বলে গৃহীত হবে না।

শনিবার দুপুরে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণজাগরণ মঞ্চের অন্যতম সংগঠক সংস্কৃতি কর্মী ও চিত্রশিল্পী কামাল পাশা।

কামাল পাশা বলেন, কয়েকজন মানুষ রাজধানীতে বসে কর্মসূচি দিলে তা সব সময় সমগ্র দেশবাসীর প্রত্যাশার প্রতিফলন ঘটাতে সমর্থ হয় না। ইমরান এইচ সরকারের একতরফা সিদ্ধান্তের কারণে সেটিও বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি এবং ব্যক্তি বিশেষের সিদ্ধান্ত মোতাবেক চলতে গিয়ে গণজাগরণ মঞ্চ আরো খানিকটা বিচ্ছিন্নতার দিকে এগিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, গণজাগরণ মঞ্চ কোনো ব্যক্তির, কোন গোষ্ঠির বা কোন দলের নয়। প্রতিটি মানুষের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চেতনার সম্মিলিত যোগফলের নামই গণজাগরণ মঞ্চ। এটি মানুষের চেতনায় বহমান একটি বিশুদ্ধ দ্রোহ যা মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণের আদর্শিক অনুপ্রেরণা।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গত ৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় কতিপয় ব্যক্তি গণজাগরণ মঞ্চেরই কয়েকজন কর্মীর ওপরে হামলা করেছে। নিজেরা নিজেদেরকেই হামলা করে সেই হামলার দায়ভার চাপানোর অপচেষ্টা করা হয়েছে অন্য একটি রাজনৈতিক সংগঠনের সহযোগী সংগঠনকে, যা মোটেও ঠিক নয়। অনাকাঙ্খিত এ ঘটনার জন্য গণজাগরণ মঞ্চের একনিষ্ট কর্মী হিসেবে আমরা অত্যন্ত ব্যথিত।

এসময় তিনি গণজাগরণ মঞ্চের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করেন। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে-

পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট একটি মুখপাত্র প্যানেল সম্মিলিতভাবে গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্রের দায়িত্ব পালন করবে, সারাদেশে গণজাগরণ মঞ্চ কর্র্মীদের সঙ্গে পরামর্শ করে অচিরেই সে প্যানেল সদস্যদের নাম ঘোষণা করা হবে, একটি অন্তর্বর্তী টিম গণজাগরণ মঞ্চের খসড়া গঠনতন্ত্র তৈরি করবে যাতে সারা দেশের গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা অংশ নেবে, অচিরেই গণজাগরণ মঞ্চের একটি জাতীয় কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করা হবে, গণজাগরণ মঞ্চের আন্দোলন করতে গিয়ে যারা নিহত ও আহত হয়েছেন তাদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানো হবে, শুরু থেকে গণজাগরণ মঞ্চের সঙ্গে সংহতি প্রকাশকারী প্রতিটি সংগঠনের তালিকা প্রণয়ন করা হবে এবং তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ট যোগাযোগ রক্ষা করে মঞ্চকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে, পূর্ব ঘোষিত ৬ দফার ভিত্তিতেই গণজাগরণ মঞ্চ পরিচালিত হবে, আগামী ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর দিবস পালন করা হবে, ওই দিন সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং বিকেলে শাহবাগ প্রজন্ম চত্বরে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অপরাজেয় বাংলা সংগঠনের আহ্বায়ক এইচ রহমান মিলু, গৌরব একাত্তরের সাধারণ সম্পাদক এফ এম সাহিন, জাগ্রত জনতার যুগ্ম আহ্বায়ক হাবিবুল্লাহ মেসবাহ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সভাপতি মেহেদী হাসান, গণজাগরণ মঞ্চের অন্যতম সংগঠক এস এম কামরুজ্জামান সাগর প্রমুখ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ