• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৫:২২ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

হিজরাদের তৃতীয় লিঙ্গের স্বীকৃতি দিল ভারত

Hijraআন্তর্জাতিক ডেস্ক: হিজরাদের তৃতীয় লিঙ্গের স্বীকৃতি দিল ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট। অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণীর মর্যাদা দেওয়ার পাশাপাশি শিক্ষা ও চাকরিতে এঁদের সংরক্ষণের জন্য কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত।
রূপান্তরকামীদের সমানাধিকারের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করে ন্যাশনাল লিগাল সার্ভিসেস অথরিটি। সমাজে রূপান্তরকামীরা যেভাবে বৈষম্যের শিকার হন তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন বিচারপতি কে এস রাধাকৃষ্ণণ এবং বিচারপতি এ কে সিকরি।
হিজড়া সম্প্রদায় এই রায়কে ঐতিহাসিক বলে বর্ণনা করে শীর্ষ আদালতের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে, আর বিশেষজ্ঞরাও মনে করছেন এই রায়ের ফলে হিজড়াদের প্রতি ভারতীয় সমাজের দৃষ্টিভঙ্গী পাল্টানোর পথ প্রশস্ত হতে পারে।
ভারতে এতদিন সরকারি চাকরির আবেদনপত্র থেকে শুরু করে যে কোনও প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ফর্ম – তাতে আবেদনকারীর লিঙ্গর জায়গায় কেবল দুটিই বাক্স থাকত, পুরুষ বা মহিলা।
সুপ্রিম কোর্টের মঙ্গরবারের রায় কার্যকর হলে সেখানে আর একটি তৃতীয় লিঙ্গেরও জায়গা রাখতে হবে – যাতে হিজড়া বা কিন্নররাও তাদের নিজস্ব লিঙ্গপরিচয় বজায় রেখেই আবেদনের সুযোগ পান।
শুধু তাই নয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা সরকারি চাকরিতে এই তৃতীয় লিঙ্গভুক্তদের আলাদা কোটারও ব্যবস্থা করতে নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত।
আজকের যে রায় হিজড়া বা কিন্নরদের আলাদা একটি লিঙ্গ হিসেবে স্বীকৃতি দিল, তাকে ঐতিহাসিক বলে বর্ণনা করেছেন ট্রান্সজেন্ডারদের পক্ষের আইনজীবী সঞ্জীব ভাটনগর।
তিনি বলছিলেন, ‘পুরুষ ও মহিলার পর এরা এখন তৃতীয় একটি লিঙ্গের বলে চিহ্নিত হবেন। সেই সঙ্গেই সরকারকে বলা হয়েছে, চাকরি বা ভর্তির ক্ষেত্রে ওবিসি বা সমাজের অনগ্রসর শ্রেণীর লোকজন যে সব সুবিধা পান, তার সবই এদেরকেও দিতে হবে।’
‘পাসপোর্ট বা ড্রাইভিং লাইসেন্স তো বটেই, রেলওয়ে স্টেশনেও তাদের জন্য আলাদা শৌচাগারের ব্যবস্থা করতে হবে – কারণ এই সংরক্ষণগুলো তাদের প্রাপ্য!’, জানান মি ভাটনগর।
সুপ্রিম কোর্ট  আরও বলেছে, তৃতীয় লিঙ্গের লোকজনের জন্য সরকারকে যেমন বিশেষ সামাজিক উন্নয়ন প্রকল্প চালু করতে হবে – তেমনি হিজড়া বা কিন্নরদের সমাজে যে নিচু নজরে দেখা হয় সেটা পাল্টানোর জন্য জনসচেনতা অভিযানও শুরু করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ