• শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০১:৪৭ অপরাহ্ন |

বিএনপির ইস্যু ভিত্তিক আন্দোলন পরিকল্পনা

BNP Flagরাজনৈতিক ডেস্ক: ইস্যু ভিত্তিক বিশেষ করে জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়কে সামনে রেখে আন্দোলনের পরিকল্পনা করছেন বিএনপি। দলের নেতারা বলছেন নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে আগাম নির্বাচনের জন্য নিরঙ্কুশ জনসমর্থন আদায় করাই তাদের আন্দোলন পরিকল্পনার প্রধান লক্ষ্য।
রাজপথে আন্দোলনের মাধ্যমে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করার এই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই বিএনপি এখন দলকে ঢেলে সাজানোর কাজে ব্য¯ত্ম। নিজেকে সংগঠিত করার পাশাপাশি অন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার অংশ হিসেবে দলটি এরইমধ্যে তি¯ত্মা নদীর ন্যায্য পানির হিস্যা আদায়ের দাবীতে আগামী ২২ ও ২৩ ঢাকা থেকে দেশের উত্তর বঙ্গের তি¯ত্মা ব্যারেজ অভিমুখে লং মার্চ কর্মসূচি পালন করার ঘোষণা দিয়েছে।
৫ জানুয়ারির একতরফা জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রতিহত করার আন্দোলনের ব্যর্থ হওয়ার পর দলটি এখন পর্যšত্ম রাজপথে বড় ধরনের কোন আন্দোলন কর্মসূচি পালন করেনি। দলটির নেতারা তাদের আন্দোলন কর্মসূচির ব্যাপারে নিজেদের দূর্বলতার কথা স্বীকার করে বলেন, জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট সুনির্দিষ্ট ইস্যু ভিত্তিক আন্দোলন গড়ে তুলতে না পারায় আওয়ামী লীগ সরকারের গত ৫ বছরে তাদেরকে অনেক মাসুল দিতে দিতে হয়েছে। তারা বলেন, সাধারণ মানুষের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আন্দোলনকে বেগবান করার ক্ষেত্রে দল পুঁজি বাজার কেলেঙ্কারী, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের উর্ধ্বগতি ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধিসহ অনেক ইস্যুই হাত ছাড়া করেছে। দলের পক্ষে যেসব আন্দোলন কর্মসূচি পালিত হয়েছে তার বেশিরভাগই ছিল নির্বাচনকালীন নির্দলয়ী নিরপেক্ষ সরকারের দাবী কেন্দ্রীক।
তারা আরো বলেন, বিএনপি যদি জনস্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আন্দোলন কর্মসূচিকে বেগবান করতে পারতো তাহলে জনগণই নির্বাচনকালীন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে নির্বাচন দিতে সরকারকে বাধ্য করতো।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক সেনাপ্রধান মাহবুবুর রহমান বলেন, তাদের দলের আগামী কর্মসূচিগুলোতে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবীর পাশাপাশি জনদূর্ভোগের বিষয়গুলোও ফলাও করে তুলে ধরা হবে।
জেনারেল মাহবুব বলেন, ইস্যুভিত্তিক আন্দোলন কর্মসূচির অংশ হিসেবেই আগামী ২২ ও ২৩ এপ্রিল তি¯ত্মা ব্যারেজ অভিমুখে লং মার্চ করতে যাচ্ছে বিএনপি । লংমার্চের পর নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যের উর্ধ্বগতি, বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি, আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি এবং মানুষের জান-মালের নিরাপত্তাহীনার ইস্যুতেও দলের আন্দোলন করার পরিকল্পনা রয়েছে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, বর্তমানে যে সংসদ রয়েছে তা একদলীয় সংসদ যা জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়।
এদিকে, দলকে আরো শক্তিশালী করার উপায় নিয়ে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া দলের মাঠ পর্যায়ের নেতাদের সাথে ধরাবাহিকভাবে বৈঠক চালিয়ে যাচ্ছেন। ১০ এপ্রিল পঞ্চগড়, নিলফামারী এবং সৈয়দপুরের জেলা বিএনপির নেতাদের সাথে বৈঠকের মধ্যদিয়ে তার এই ধারাবাহিক আলোচনা প্রক্রিয়া শুরু হয়।
বিএনপির সহকারী দপ্তর সম্পাদক শামিমুর রহমান শামিম বলেন, জেলা বিএনপির নেতাদের সাথে দলের চেয়ারপার্সনের প্রথম দফার বৈঠক শেষ হবে ২১ এপ্রিল। তাবে দ্বিতীয় দফা আলোচনা কখন শুরু হবে তা এই মুহুর্তে তিনি বলতে পারছেন না।
১২ই এপ্রিল বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ঢাকা মহানগর শ্রমিক দলের কাউন্সিলে বলেছিলেন, সরকারের সাথে আলোচনা ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের লক্ষ্যে যথাসময়ে তাদের আন্দোলন শুরু হবে। কারো নির্দেশনায় তারা আন্দোলন করবে না। তিনি এসময় দলকে আরো শক্তিশালী ও গতিশীল করতে আন্দোলনের প্র¯ত্মতি নেয়ার জন্য দলের নতুন নেতৃত্বের উপর গুরুত্বারোপ করেন। নিউএজ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ