• শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন |

নয়া কর্মসুচী ঘোষনা: সিপিবি-বাসদের তিস্তা মার্চ শেষ

Nilphamari Longmarchনীলফামারী প্রতিনিধি: ভারতের একতরফা ভাবে পানি প্রত্যাহার বন্ধ, তিস্তাসহ সব নদীর পানির ন্যায্য হিস্যার দাবীসহ ছয় দফা দাবিতে তিস্তা ব্যারেজ অভিমুখী বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) ঢাকা থেকে তিন দিনের‘তিস্তা মার্চ’ শনিবার বিকাল ৫টা ১০ মিনিটে তিস্তা ব্যারেজ সংলগ্ন দোয়ানী সাধুর বাজারে এসে পৌঁছায়। এরপর সমাবেশের মাধ্যমে নতুন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে তিন দিনের তিস্তা মার্চ কর্মসুচী শেষ হয়।
সমাবেশে শুধু তিস্তার পানি বন্টন সমস্যা নয়, ভারতের সাথে ৫৪টি অভিন্ন নদীসহ ৫৭টি আন্তর্জাতিক নদীর পানি বন্ঠনের সমন্বিত পরিকল্পনা গ্রহন এবং অভিন্ন নদীর পানি সমন্বিত ও যৌথ ব্যবস্থাপনা-ব্যবহার-উন্নয়ন ও রক্ষণাবেক্ষন  এবং এ সংক্রান্ত বিরোধ নিস্পত্তির জন্য চীন,ভারত,বাংলাদেশ,নেপাল ও ভুটানকে নিয়ে যৌথ অববাহিকা কর্তৃপক্ষ গঠনের আহবান জানান বক্তারা।
নতুন কর্মসুচীর মধ্যে রয়েছে সেচের অভাবে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের ক্ষতিপূরনের দাবি নিয়ে আগামী ৮ মে বৃহত্তর রংপুরে আঞ্চলিক কৃষক সমাবেশ, অভিন্ন ৫৪টি নদীর ন্যায্য দাবিতে আগামী ১০ মে ঢাকায় সকল বাম গনতান্ত্রিক প্রগতিশীল রাজনৈতিক দল পরিবেশবাদী সংগঠন, পানি বিশেষজ্ঞ, নাগরিক ফোরামের নেতৃবৃন্দদের নিয়ে পরবর্তি করনীয় নিয়ে পরামর্শ সভা, অভিন্ন ৫৪টি নদীর পানি হিস্যা আদায়ে আগামী জুন মাসে ঢাকায় আন্তর্জাতিক/আঞ্চলিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া পানির হিস্যা আদায়ে চীন,ভারত,নেপাল ও ভুটান সফর করবেন সিপিবি ও বাসদ নেতৃবৃন্দ ও অভিন্ন ৫৪ নদীর পানি দাবিতে দেশ জুড়ে প্রচার প্রচারনা অব্যাহত রাখবে সিপিবি ও বাসদ। সিপিবির কেন্দ্রিয় কমিটির উপদেষ্টা কমরেড সাহাদাত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাপনী সমাবেশে তিস্তা ঘোষনা পাঠ করেন সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড শাহীন রহমান। এদিকে এর আগে সমাবেশে তিস্তা ঘোষনা পাঠ করা হয়।
সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন  সিপিবির কেন্দ্রিয় উপদেষ্টা কমরেড মঞ্জুরুল আহসান খান, বাসদের সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, সিপিবির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহম্মেদ,  সিপিবির কেন্দ্রিয় সদস্য  রূহিন হোসেন প্রিন্স, জলি তালুকদার, বাসদের কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য বজলুর রশীদ ফিরোজ, রাজেকুজ্জামান রতন, জাহেদুল হক মিলু, রংপুর জেলা বাসদের সমন্বয়ক কমরেড আব্দুল কুদ্দুস নীলফামারী জেলা সিপিবি সভাপতি শ্রীদাম দাস প্রমুখ।
এর আগে একতরফা ভাবে  পানি প্রত্যাহার বন্ধ ও ও তিস্তাসহ সব নদীর পানির ন্যায্য হিস্যার দাবিসহ ছয় দফা দাবিতে গত বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে সিপিবি ও বাসদ এ লংমার্চ শুরু করে। লংমার্চটি  সিরাজগঞ্জ, বগুড়া হয়ে শুক্রবার রাতে রংপুরে পৌছায়। শনিবার সকাল ১১টার দিকে রংপুর শাপলা চত্ত্বর থেকে  র‌্যালী  করে রংপুরের শহীদ মিনার চত্ত্বরে সমবেত হয়ে তিস্তা অভিমুখে যাত্রা শুরু করে। পথে রংপুরের ধাপ, পাগলাপীর, তারাগঞ্জ, নীলফামারীর কিশোরীগঞ্জ, জলঢাকার টেঙ্গনমারী, জলঢাকা ট্রাফিক মোড়ে পৃথক পথসভা করে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ