• মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৪:১১ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :

নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনায় গয়েশ্বরের অব্যাহতি

BNPঢাকা: নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার প্রেক্ষিতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ তিনজনকে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে আজ হাইকোর্ট ইতোপূর্বে জারি করা রুলের নিষ্পত্তি করে দিয়েছে।
দেশের সব আদালতের বিচারিক স্বাধীনতা নিয়ে মন্তব্য করায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ও দুই চিকিৎসক নেতাকে গত ৭ এপ্রিল এক আদেশে হাইকোর্টে তলব করা হয়।
আদেশে আজ ২০ এপ্রিল সকাল সাড়ে ১০টায় তাদেরকে হাজির হয়ে আদালতে বিষয়টির ওপর ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।
বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি এবিএম আলতাফ হোসেন সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ স্বপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দিয়েছিল।
গয়েশ্বর রায় ছাড়া অন্য দু’জন হচ্ছেন বিএনপিপন্থি চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) সহ সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম সালাম ও মহাসচিব ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন। দেশের সব আদালতের বিচারিক স্বাধীনতা নিয়ে মন্তব্য করায় তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননা প্রশ্নে কারণ দর্শাতে রুলও জারি করেছিল আদালত।
আদালতের নির্দেশ অনুসারে রবিবার সকালে এ তিনজন আদালতে হাজির হয়ে নি:শর্ত ক্ষমা চেয়ে আবেদন করেন। এর প্রেক্ষিতে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে তাদের অব্যাহতি দেয় হাইকোর্ট।
গয়েশ্বরসহ অন্য দু’জনের পক্ষে আদালতে আইনজীবী ছিলেন নিতাই রায় চৌধুরী ও ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল।
বাদল সাংবাদিকদের বলেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায় তার মন্তব্যের জন্য নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। এর প্রেক্ষিতে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে রুলের নিষ্পত্তি করে দেয় হাইকোর্ট।
গত ৬ এপ্রিল জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত এক মানববন্ধনে গয়েশ্বর চন্দ্র রায় তার বক্তৃতায় বলেন ‘সব কোর্টই এখন মুজিব কোর্টের পকেটে বন্দি।’পরদিন বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে গয়েশ্বর রায়সহ তিনজনকে তলব এবং রুল জারি করে আদালত। বিএনপি পন্থী চিকিৎসকদের সংগঠন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) মানববন্ধনের আয়োজন করেছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ