• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৮:১২ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

তিস্তা চুক্তি হয়েছে, শুধু বাস্তবায়ন বাকি: সুরঞ্জিত

Suronzitঢাকা: আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, “তিস্তা চুক্তি হয়ে গেছে, এখন শুধু বাস্তবায়ন বাকি। এটাকে রাজনৈতিক ইস্যু করবেন না। এই লংমার্চ যদি ভায়োলেন্ট মার্চ হয়, তাহলে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্যবস্থা নেবে। আর যদি আপনারা শান্তিপূর্ণভাবে লংমার্চের কর্মসূচি পালন করেন তাহলে সরকার ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী আপনাদের সহযোগিতা করবে।”
সোমবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির গোলটেবিল মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধু একাডেমী’ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।
সুরঞ্জিত বলেন, “তিস্তা নিয়ে সরকারকে সহযোগিতা করা প্রয়োজন। দীর্ঘ কূটনৈতিক চাপ সৃষ্টি করে এ সমস্যার সমাধানে সরকারকে বিএনপির সহযোগিতা করা উচিৎ। কিন্তু তারা এটাকে না করে ভারতের নির্বাচনকালিন সময়ে ভারত বিরোধীতা করে তাদের উস্কে দিচ্ছেন।”
তিনি বলেন, “তিস্তা নিয়ে রাজনীতি করা ঠিক নয়। এ নিয়ে আমাদের কোনো বিরোধ নেই। এজন্য লংমার্চ নয় ‘লংডিপ্লোমেটিক’ সমঝোতা প্রয়োজন। ভারতের চলমান নির্বাচনের পরে যে সরকার ক্ষমতায় আসবে তাদের সঙ্গে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে এ সমস্যার সমাধান করা হবে। তারপর বিএনপির এ চাল মাঠে মারা যাবে।”
সুরঞ্জিত সেন বলেন, “তারপরও কেউ এ নিয়ে রাজনীতি করতে চাইলে বা এ নিয়ে কোনো উত্তেজনা, আইনশৃঙ্খলা ব্যাহত করা, এই লংমার্চকে ভায়োলেন্স মার্চ বা অশান্তির মার্চ করতে চাইলে, সরকারকে ব্যবস্থা নিতে হবে।”
সুরঞ্জিত বলেন, “আমরা চাই না কোনো কঠোর ব্যবস্থা নিতে। আর এ নিয়ে আপনারা রাজনীতি করেন। তবে এ নিয়ে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করলে সরকারকে বা আমাদের কঠোরভাবে মোকাবেলা করতে হবে।”
বেলা’র নির্বাহী রিওয়ানা হাসানের স্বামীর অপহরণের বিষয়ে সুরঞ্জিত বলেন, “অপহরণ ও গুম শুরু হয়েছে বিএনপির অপারেশন ক্লিনহার্টের মধ্য দিয়ে। বেলার নির্বাহী রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বকরকে অপরণ করা হয়েছে। ৩৫ ঘণ্টার মধ্যে তাকে উদ্ধার করা হয়েছে এটা আশার খবর। তবে এ নিয়ে যে সব প্রশ্ন উঠেছে, সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে জবাব আসা উচিৎ।”
তিনি বলেন, “বিরোধী দল কোনো গুম বা অপহরণ হলেই এর দায়ভার সরকারের ওপর চাপাতে চায়। এই অপহরণ ও উদ্ধারকাজে এটাই প্রমাণ হয়েছে। এটা অভিনব অপহরণ। তাকে ফেরত দেয়ার সময় ৩০০ টাকা দিয়ে গেছে। এ রকম সংবেদনশীল, দয়ালু অপরাধী পাওয়া কঠিন।”
উৎসঃ   নতুনবার্তা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ