• শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন |

রাজধানীতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে পুড়িয়ে হত্যা

Madarঢাকা: রাজধানীর দক্ষিণখানে ইয়াবা বিক্রির খবর জেনে ফেলায় মোহাম্মদ সোহাগ মিয়া (২৬) নামের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যলয়ের এক ছাত্রকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে রাজধানীর কুইন্স বিশ্ববিদ্যলয়ের বিবিএ শেষ বর্ষের ছাত্র।
সে দক্ষিণখানের সংগ্রামী সরণি রোডের মুসলিম পাড়ার খোরশেদ আলমের বাড়ির দ্বিতীয় তলার মেসে বসবাস করত। পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
দক্ষিণখান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহজাহান আলী জানান, গত ১৮ এপ্রিল সোহাগ বিছানায় ছারপোকা থাকায় তা রোদে শুকানোর জন্য ছাদে যায়। পরে ৩৩ হাজার ভোল্টেজের বিদ্যুৎস্পৃষ্টে গুরুতর আহত হয়। সেখান থেকে তার রুমমেট সারোয়ার, মেহেদী হাসান ও বাড়ির মালিক খোরশেদ আলম তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে উত্তরা লিজেন হাসপাতালে ভর্তি করেন।
সেখানে খরচ বেশি হওয়ায় তাকে গত ১৯ এপ্রিল ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের ইনসেনটিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউতে) ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বুধবার দিবাগত রাতে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পর থেকে তার দুই রুমমেট সারোয়ার ও মেহেদী হাসান পলাতক রয়েছে বলেও তিনি জানান।
তবে নিহতের বাবা আব্দুস সালাম মিয়া এই বক্তব্য অস্বীকার করে জানান, আমি আমাদের গ্রামের একজন চায়ের দোকানদার। অনেক কষ্ট করে ছেলেটিকে এই পর্যন্ত লেখাপড়া শিখিয়েছি। পড়া শোনার পাশাপাশি সে একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করত। এতে তার লেখাপড়ার খরচ চলে যেতো। মৃত্যুর আগে সোহাগ আমাকে বলে আমি ওই দিন ছাদে যাইনি। আমার বাড়ির মালিক ও রুমমেট আমাকে পুড়িয়ে দিয়েছে। তারা ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রি করত। বিষয়টি আমি জানতাম বলে তারা প্রায় সময়ে আমাকে শারীরিক ও মানুষিক নির্যাতন করত বলে সে অভিযোগ করেছে। নিহত সোহাগ মিয়ার বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার দেলদুয়ার থানার হরেন্দ্রপুর লাউহাটি গ্রামে। ঢাকা টাইমস


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ