• বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ১০:৩৫ অপরাহ্ন |

প্রচণ্ড তাপমাত্রায় চিংড়ির পোনা মারা যাচ্ছে

Fishসাতক্ষীরা : সাদা সোনা খ্যাত বাগদা ও গলদা চিংড়ি উৎপাদনের অন্যতম প্রধান অঞ্চল সাতক্ষীরা। কিন্তু বর্তমানে প্রচণ্ড তাপমাত্রা ও তীব্র পানি সংকটের ফলে এ জেলার অধিকাংশ ঘেরে ব্যাপক হারে চিংড়ি পোনা মারা যাচ্ছে।

সূত্র মতে, সাতক্ষীরা জেলার তালা, আশাশুনি, দেবহাটা, কালীগঞ্জ, শ্যামনগর ও সাতক্ষীরা সদরের বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে বাগদা ও গলদা চিংড়ি চাষ হয়ে থাকে। কিন্তু চলতি মৌসুমে প্রচন্ড তাপদাহ আর পানি সংকটে অধিকাংশ ঘেরের মাছ মরে যাচ্ছে।

শ্যামনগর উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নের চিংড়ি ঘের মালিক আব্দুল মান্নান জানান, এ এলাকার অধিকাংশ ঘেরে প্রয়োজনীয় পানি নেই। প্রচণ্ড গরমে পানি কমে যাচ্ছে। ফলে পানি স্বল্পতায় ঘেরের মাছ মরে যাচ্ছে।

আশাশুনির দক্ষিণ দরগাহপুর এলাকার চিংড়ি ঘের মালিক বিপ্লব মোড়ল রাইজিংবিডিকে জানান, তার ঘেরে অতিরিক্ত তাপমাত্রার ফলে মাছ মরে যাচ্ছে। একই সঙ্গে প্রচণ্ড গরমের ফলে মাছের শরীরে বিভিন্ন ধরনের রোগ দেখা যাচ্ছে।
তা ছাড়া রেণুতে নানা ধরনের ভাইরাসেও মাছ মরে যাচ্ছে। ফলে তারা এবার ঘেরের হারি ও ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করতেই লোকসানের শিকার হবেন।

দেবহাটার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের চিংড়ি ঘের ব্যবসায়ী ইছহাক গাজী বলেন, মাছ ছাড়ার কিছুদিন পর থেকেই গরম শুরু হওয়ায় মাছ মরে যেতে শুরু করেছে। কিছুদিন পরে যে মাছ বিক্রি করার কথা সে মাছের গায়ে সাদা সাদা এক ধরনের ঘা দেখা যাচ্ছে। আবার নতুন করে মাছ ছাড়ার কথা ভাবছেন এলাকার ঘের মালিকরা।

সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. আব্দুল অদুদ রাইজিংবিডিকে জানান, জেলার ৭৬ হাজার ৫২ হেক্টর জমিতে চিংড়ি চাষ করা হয়ে থাকে। এর মধ্যে বাগদা ৬৬ হাজার ৭৩৫ হেক্টর এবং গলদা ৯ হাজার ৩১৭ হেক্টর জমিতে চাষ করা হয়।

চিংড়ি বা অন্যান্য মাছের খামারে সাধারণত সাড়ে তিন থেকে চার ফুট পানি থাকা প্রয়োজন। কিন্তু প্রচণ্ড গরম বা তাপদাহে পানির স্বল্পতা দেখা দিয়েছে। অনেক ঘেরে এক ফুটের কম পানি আছে। মাটি ও পানির প্রচন্ড তাপের ফলে অক্সিজেন সংকটে পানি দূষিত হয়ে মাছ মরে যাচ্ছে।

এ ছাড়া হিট স্ট্রোকেও মাছ মরে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি। অতিরিক্ত গরমের ফলে প্রতিবছরের এই সময়ে চাষিরা ক্ষতির শিকার হন উল্লেখ করে তিনি বলেন, সামনের দিনে বৃষ্টি হলেও কিছুটা সমস্যা থাকবে, তারপর আস্তে আস্তে ঠিক হয়ে যাবে।

রাইজিংবিডি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ