• রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন |

সৈয়দপুরে জায়ান্ট মিলিবাগ পোকার আক্রমণ

Jayantএম আর মহসিন: সৈয়দপুরে চলতি গ্রীষ্মকালীন ফলজ মৌসুমে আম ও কাঁঠালে জায়ান্ট মিলিবাগ পোকার আক্রমণ দেখা দিয়েছে। এতে ঝড় ছাড়াই ঝরে পড়ছে আমের গুটি আর মরে যাচ্ছে কাঁঠালের মোচা। এ পোকা নিধনে সংশ্লিষ্টদের পরামর্শ নিয়ে কমছে না এর সংক্রমণ। আর তাই বাগান মালিকরা বিপাকে পড়েছে এবারের আম কাঁঠালের পর্যাপ্ত উৎপাদন নিয়ে। তবে স্থানীয় কৃষি বলছে সমস্যা নেই। তীব্রগতিতে প্রচুর পানি স্প্রে করলে ও বৃষ্টিপাত হলে নেমে যাবে এসব পোকা।
সৈয়দপুর বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা আ. মজিদ জানান, চলতি মৌসুমে এ উপজেলার প্রায় দেড় লাখ কাঁঠাল ও এক লাখ আম গাছে ফলন ধরেছে। এ সকল ফলজগাছে এখন বাসা বেধে বিচরণ করছে জায়ান্ট মিলিবাগ নামে উদ্ভিদভোজি এক পোকা। কিন্তু দাবদাহে গাছের গা-বেয়ে মাটির দিকে নেমে আসছে জায়ান্ট মিলিবাগ। গত শনিবার উপজেলার ৫ ইউনিয়নসহ পৌর এলাকার বাসাবাড়ির আম কাঁঠাল গাছগুলোতে দেখা যায় এ পোকার সংক্রমন। শহরের নয়াটোলা এলাকার সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম পলাশের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় তার বড় দুটি কাঁঠাল গাছে কাঁঠালের বোচায় বসবাস করছে মিলিবাগ। এ গাছটিতে প্রায় ২ থেকে ৩ হাজার কাঁঠাল ধরলেও সবগুলোই শুকিয়ে ঝরে পড়ছে। অনেক বোটা কালো রং ধারণ শক্ত হয়ে পড়ে আছে। এমন দৃশ্য উপজেলার মফস্বল ও পৌর এলাকার প্রতিটি বাড়ি ও বাগানের গাছগুলোতে। সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতারের বিশালাকার ৩০ থেকে ৩৫ আমগাছেও দেখা গেছে এ পোকার সংক্রমণ। গাছগুলোর গুটি আম শুকিয়ে ঝরে পড়ছে। অথচ কোন ঝড় কিংবা লু-হাওয়া হয়নি এ জনপদে।
সাইফুল ইসলাম পলাশ জানান, প্রায় ৮ বছর আগে এ মৌসুমে তার এ কাঁঠাল গাছে এ পোকার আক্রমণ তিনি দেখতে পান। এ নিয়ে স্থানীয় কৃষি অফিস ব্যবস্থাপত্র দিলেও কোন উপকার হয়নি। পরে নিজেস্ব উদ্ভাবিত পদ্ধতিতে তীব্র গতিতে পানি ¯েপ্র করলে পোকার গায়ের উপরে সাদা পাউডার ধুয়ে গেলে এরা নিস্তেজ হয়ে পড়ে এবং এ পোকার প্রকোপ কমে যায়। এভাবেই তিনি প্রতি মৌসুমে আম ও কাঁঠালকে রা করে চলেছেন। তবে এ নিয়ে অন্যান্য গাছ মালিক কিংবা কৃষকদের সাথে কথা হলে তারা মিলিবাগ নামের এ পোকা সম্পর্কে জানেন না। আর বর্তমান এ পোকার পরিচিতি ও আবির্ভাবের আশংকায় আছেন মৌসুমী ফল আম ও কাঁঠালের বাগান মালিকরা।
এ নিয়ে সৈয়দপুর কৃষি অধিদপ্তরের কৃষিবিদ হুমায়রা মন্ডলের সাথে কথা হলে তিনি জানান, যাহারা এ পোকার সংক্রমণ নিধনের পরামর্শ চাইছেন। তাদের আন্তরিকতার সাথে তা দেয়া হচ্ছে। তবে ঔষধের চেয়ে পানি স্প্রে করলেই এটি আর আক্রমণ করবে না বলে পরামর্শ দিচ্ছেন আম ও কাঁঠাল গাছ মালিকদের।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ