• সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন |
শিরোনাম :
পদ্মা সেতুর রেলিংয়ের নাট খোলা বায়েজিদ আটক নীলফামারী জেলা শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলামের শ্বশুড়ের ইন্তেকাল সৈয়দপুর সরকারি বিজ্ঞান কলেজের গ্রন্থাগারের মূল্যবান বইপত্র গোপনে বিক্রি ফেনসিডিলসহ সেচ্ছাসেবক লীগের নেতা গ্রেপ্তার এ সেতু আমাদের অহংকার, আমাদের গর্ব: প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ-ভারতে রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকবে ৮ দিন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন বাংলাদেশের জন্য এক গৌরবোজ্জ্বল ঐতিহাসিক দিন: প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যেতে মানতে হবে যেসব নির্দেশনা সৈয়দপুরে বিস্কুট দেয়ার প্রলোভনে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ গণমানুষের সমর্থনেই পদ্মা সেতু নির্মাণ সম্ভব হয়েছে: প্রধানমন্ত্রী

সৌদিতে মার্স ভাইরাসে দুই বাংলাদেশিসহ ১০২ জনের মৃত্যু

Soudiসিসি নিউজ : সৌদি আরবে কোনভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না মিডল ইস্ট রেস্পিরেটোরি সিন্ড্রোম (মার্স) ভাইরাস। গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১০ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে সৌদি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এনিয়ে মার্স ভাইরাসে দুই বাংলাদেশিসহ সৌদিতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ১০২ জনে।

এদের মধ্যে চলতি মাসেই মারা গেছেন ৩৯ জন, যা মোট মৃতের এক-তৃতীয়াংশ। বর্তমানে এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা মোট ৩৩৯ জনে দাঁড়িয়েছে এবং গত ২৪ ঘণ্টায় এই ভাইরাসে ১৬ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে সৌদি সরকার এবং মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো বর্তমানে বেশ উদ্বিগ্ন সময় পার করছে।

মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে নয় মাস বয়সী এক শিশুও রয়েছে।

আক্রান্তদের মধ্যে হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স এবং কর্মচারীরা রয়েছেন। সদ্য শনাক্ত রোগীদের মধ্যে চারজন পেশায় চিকিৎসক, (একজন সৌদি, একজন বাংলাদেশি, একজন মিশরীয় ও একজন সিরিয়) এবং ছয়জন ফিলিপিনো নার্স।

মার্স ভাইরাসটি উট থেকে ছড়াচ্ছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এখনো পর্যন্ত মার্সের কোন টিকা বা প্রতিষেধক আবিষ্কৃত হয়নি, তাই সকলের সচেতনতাই এই ভাইরাস থেকে রক্ষা পাওয়ার এখন পর্যন্ত একমাত্র উপায়।

এদিকে সদ্য সৌদি ফেরত এক মিশরীয় নাগরিকও মার্স ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন মিশরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ২৭ বছর বয়সী ওই রোগীকে কায়রোর একটি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার অবস্থা অপরিবর্তিত বলে জানানো হয়।

সৌদিতে মার্স আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করে এ ব্যাপারে পর্যাপ্ত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডঐঙ)।

এই ভাইরাস মানুষের ঘনবসতি এলাকায়, কাছাকাছি সংস্পর্শ, হাঁচি কাশি ইত্যাদির মাধ্যমে ছড়ায়। রোগের প্রধান লক্ষণ হচ্ছে একটানা ৭-৮ দিনের জ্বর, কাশি, কফ ও শ্বাসকষ্ট। ভ্রমণকালীন কিংবা ফিরে এসে দুই সপ্তাহের মধ্যে এই উপসর্গগুলো দেখা দিলে দেরি না করে দ্রুত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

এই রোগের সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে জনসমাগমে সব সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে, বাইরে থেকে এসে সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে, অপরিষ্কার হাত দিয়ে চোখ, নাক, মুখের ভেতরে স্পর্শ করা যাবে না কারণ জীবানু হাত থেকে নাক, মুখ ও চোখের মাধ্যমে শরীরে প্রবেশ করার সম্ভাবনা থাকে, অসুস্থ রোগীর খুব কাছে বেশীক্ষণ থাকা পরিহার করতে হবে।

এক বিবৃতিতে সৌদির ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রী আবদেল ফকিহ জানান, মার্স আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা দিতে রিয়াদ, জেদ্দা ও পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশে তিনটি মেডিকেল সেন্টার খোলা হয়েছে।

উৎস: রাইজিংবিডি


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ