• বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১০:৩৯ অপরাহ্ন |
শিরোনাম :
নিজ আসন থেকে উঠে এসে রওশনের সঙ্গে কথা বললেন প্রধানমন্ত্রী গ্রামীণফোনের সিম বিক্রি নিষিদ্ধ করেছে বিটিআরসি শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা: প্রধান আসামি জিতু গ্রেপ্তার সৈয়দপুরে কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় বিজিবি সদস্যকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ শ্রেণিকক্ষে রাবি শিক্ষিকাকে মারতে গেলেন ছাত্র! অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযােগ এনজিও’র দুই কর্মকর্তা গ্রেফতার জলঢাকায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধকল্পে সমন্বিত কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নে কর্মশালা ইউনূস, হিলারি ও চেরি ব্লেয়ারের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার দাবি সংসদে মার্কেট-শপিং মলে মাস্ক বাধ্যতামূলক করে প্রজ্ঞাপন খানসামায় র‌্যাবের অভিযান ইয়াবাসহ দুই মাদককারবারী গ্রেপ্তার

বিরামপুরের নাজু মেহেদির রঙ মোছার আগেই চিরবিদায়

75197_1ঢাকা: হাতের মেহেদির রঙ মোছেনি। বিয়ের এক বছরের মাথায় ছবি হয়ে গেলেন নাজমুস সাবা নাজু। মঙ্গলবার টিটিপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় কেড়ে নিয়েছে নাজুর মতো চারটি তরতাজা প্রাণ। ভাগ্যক্রমে বেঁচে গেছেন নাজুর স্বামী একেএম ওবায়দুর রহমান। দৈনিক জনকণ্ঠ’র সাব এডিটর ও ঢাকা সাব এডিটর কাউন্সিলের দপ্তর সম্পাদক। স্ত্রী নাজু দিনাজপুর সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞানের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। বিয়ে হয়েছে মাত্র ১৩ মাস। বেড়াতে পছন্দ করতেন নাজু। নিজের লেখাপড়া ও স্বামীর পেশাগত ব্যস্ততার কারণে প্রতীক্ষায় ছিলেন একটা অবকাশের। শীত মওসুমে কক্সবাজার বেড়াতে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিলো এই নবদম্পতির। সিলেটে হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার জিয়ারতের ইচ্ছাও ছিল তাদের। নানা ইচ্ছা ব্যক্ত করেই নাজু তার ঘনিষ্ঠদের বলতেন, স্বামীর সঙ্গে দূরে কোথাও বেড়াতে যাবেন। দূরে ঠিকই চলে গেলেন তিনি। স্বামী, সংসার সব কিছু ছেড়ে। নাজু এখন না ফেরার দেশে। বিয়ের ছয় মাস পর ঢাকার বড় মগবাজারে বাসা ভাড়া নেন ওবায়দুর। কাছে থাকার আকাঙক্ষা থেকেই দিনাজপুর থেকে নাজুকে নিয়ে আসেন ওই বাসায়। ছোট্ট বাসা। ছিমছাম। সাজিয়ে গুছিয়ে রাখতেন নাজু। ওবায়দুরের বন্ধুরা জানান, বিয়ের পর অফিস থেকে সোজা বাসায় চলে যেতেন ওবায়দুর। অনেক সময় কাজ শেষে তাড়াহুড়া করতেন। জানতে চাইলে বলতেন, বাসায় বউ অপেক্ষা করছে। সে বাসায় না গেলে খাবে না। এখন আর ওবায়দুরের জন্য নাজু আর অপেক্ষা করবেন না। ওবায়দুর বলেন, এভাবে আমার কাছ থেকে মৃত্যু তাকে কেড়ে নেবে কেন। কি অপরাধ করেছিল সে? দুর্ঘটনা সম্পর্কে তিনি জানান, রেল ক্রসিংয়ে কোন বার ছিল না। এছাড়া ট্রেনটি লেভেল ক্রসিংয়ে এসে পৌঁছলেও বাসচালক দ্রুতগতিতে চালিয়ে যাচ্ছিল। চালক ট্রেনটির আগে ক্রসিং পার হতে চেয়েছিল। তাতেই দুর্ঘটনা ঘটে। স্ত্রীকে নিয়ে বোনের বাসা মানিকনগর থেকে দাওয়াত সেরে বড় মগবাজারের বাসায় ফিরছিলেন তারা। গতকাল যখন বিরামপুরে নাজুর লাশ পৌঁছে তখন এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। নাজুর এই অকাল মৃত্যু মেনে নিতে পারছিলেন না কেউ। ওবায়দুরের বন্ধু ও ঢাকা সাব এডিটর কাউন্সিলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এমএ মান্নান জানান, জোহরের নামাজের পর পারগোবিন্দপুরে জানাজা শেষে নাজুর লাশ দাফন করা হয়েছে। ২০১৩ সালের ১৫ই মার্চ এ দম্পতির বিয়ে হয়। ওবায়দুরের বাড়ি দিনাজপুরের পার্বতীপুরে। নাজুর বাড়ি দিনাজপুর জেলার বিরামপুরের পারগোবিন্দপুর গ্রামে। এদিকে, ঢাকা সাব এডিটর কাউন্সিলের দপ্তর সম্পাদক একেএম ওবায়দুর রহমানের স্ত্রী নাজুর মৃত্যুর কারণে আজ সংগঠনের পূর্বনির্ধারিত ফ্যামেলি ডে বাতিল করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সভায় তা বাতিল করা হয়। সেই সঙ্গে আগামী শনিবার দোষীদের শাস্তির দাবিতে প্রেস ক্লাবের সামনে সংগঠনটি মানববন্ধন করবে। উল্লেখ্য, গত সোমবার রাত ১০টায় রাজধানীর কমলাপুরে সায়েদাবাদ থেকে গাজীপুরগামী একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ থেকে কমলাপুরগামী ট্রেনের সংঘর্ষ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে দু’জন মারা যান। আহতদের মধ্যে ছয়জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখানে নাজুর মৃত্যু ঘটে। এ দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত চার জনের মৃত্যু হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ