• বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ০৪:০৯ পূর্বাহ্ন |

রাজারহাটে রোগাক্রান্ত গরুর মাংস বিক্রি নিয়ে তোলপাড়

Meetরফিকুল ইসলাম, রাজারহাট (কুড়িগ্রাম): কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ৮ মাসের গর্ভবর্তী হাইব্রীড জাতের রোগাক্রান্ত লাধিক টাকা মূল্যের একটি গরু মাত্র ১৩ হাজার টাকায় কিনে অসাধু মাংস বিক্রেতারা জবাই করে মাংস বিক্রির ঘটনা ফাঁস হলে উপজেলা সদরে তোলপাড় শুরু হয়েছে। এ নিয়ে মাংস ক্রেতারা পড়েছে চরম বিড়ম্বনায়। অভিযোগে প্রকাশ, উপজেলার সদর ইউপি’র মেকুরটারী গ্রামের মকবুল হোসেন (৫০) এর পালিত হাইব্রীড জাতের ৮ মাসের গর্ভবর্তী প্রায় লাধিক টাকার মূল্যের একটি গাভী হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়ে। অনেক চিকিৎসা করেও গাভীটি সুস্থ্য না হওয়ায় তিনি বিপাকে পড়েন। খবর পেয়ে উপজেলা সদর বাজারের মাংস বিক্রেতা (কসাই) আবু সাঈদ ও হাবিল দু’জনে মকবুল হোসেনের কাছ থেকে ওই রোগাক্রান্ত গাভীটি মাত্র ১৩ হাজার টাকায় গত শনিবার গোপনে কিনে নেয়। পরদিন রোববার গাভীটি ভোর বেলায় জবাই করে সিংগারডাবড়ীহাট ও রাজারহাট বাজারে মাংসগুলো কয়েকজন কসাই মিলে বিক্রি করার চাঞ্চল্যকর তথ্য বুধবার সন্ধ্যায় ফাঁস হয়ে গেলে উপজেলা সদরে তোলপাড় শুরু হয়। পরে মাংস বিক্রেতা কসাই আবু সাঈদের কাছ থেকে রাতে সরকারি রাজনৈতিক দলের কিছু যুবকদের ২ হাজার টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে। পরে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীরা মাংস বিক্রেতা আবু সাঈদের সঙ্গে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ওই গাভীটি রাজারহাটে জবাই করা হয়নি এবং গাভীটি রংপুরের কাউনিয়া উপজেলায় বিক্রি করা হয়েছে। রাজারহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস.এম. মাজহারুল ইসলামের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। আগামী উপজেলা পরিষদের সমন্বয় কমিটির মিটিং-এ বিষয়টি উত্থাপন পূর্বক নির্দ্দিষ্ট কসাইখানা নির্মানে প্রস্তাব নিয়ে আসা হবে এবং পশুগুলো পরীা-নিরীা পূর্বক জবাই করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হবে। উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা নাজমুল হুদা বলেন, সতর্কীকরণ নোটিশ করে মাংস বিক্রেতাদের সতর্কতা জারি করা হবে। এর ব্যত্যয় ঘটলে ওইসব মাংস ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সবমিলিয়ে বর্তমানে রাজারহাট উপজেলায় মাংস বিহীন দিবস অমান্য করে যেখানে সেখানে যত্রতত্রভাবে রোগাক্রান্ত পশু জবাই করে মাংস বিক্রি চলছে দেদারছে । সংশ্লিষ্ট বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত অসাধু কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করে মাংস বিক্রেতারা অল্প দিনের ব্যবধানে আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে যাচ্ছে। মনে হচ্ছে যেন এসব দেখার কেউ নেই।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Red Chilli Saidpur

আর্কাইভ